চট্টগ্রাম বুধবার, ০৮ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩

সর্বশেষ:

১৫ জানুয়ারি, ২০২৩ | ১২:৪০ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

৪ দিনে ৮৯ কন্টেইনার পচনশীল পণ্য ধ্বংস

চট্টগ্রাম কাস্টমসের চলমান পণ্য ধ্বংস কার্যক্রমে চারদিনে ৮৯ কন্টেইনার পণ্য ধ্বংস করা হয়েছে। গত বুধবার থেকে শুরু হওয়া এই ধ্বংস কার্যক্রমে মোট ২৬ লটে ২২০ কন্টেইনার পণ্য ধ্বংস করা হবে। এসব কন্টেইনারে রয়েছে ফলমূল, আদা, মহিষের মাংস, মাছ ও মাছের খাবার, ক্যানোলা বীজ ইত্যাদি। ২২০টি কন্টেইনারের মধ্যে চট্টগ্রাম বন্দরে রেফার্ড ও ড্রাইসহ কন্টেইনার রয়েছে ২২টি। বাকি ১৯৮টি রয়েছে বিভিন্ন অফডকে।

দীর্ঘদিন ধরে এসব পণ্য পড়ে থাকার পর বার বার নিলামে তুলে বিক্রি না হওয়ায় এর অধিকাংশই পচে গেছে অথবা মেয়াদোত্তীর্ণ হয়ে গেছে। এখন এসব পণ্য মাটি চাপা দিয়ে খালি করা হচ্ছে ২২০ টি কন্টেইনার।

পরিবেশ অধিদপ্তর কার্যালয় অনুমোদন দেওয়ায় মধ্যম হালিশহরের আনন্দ বাজার বেড়িবাঁধ এলাকায় একটি খালি জায়গাকে পণ্য ধ্বংসের কাজ করা হচ্ছে। এর আগে একই জায়গায় একাধিকবার পণ্য ধ্বংস করেছিল চট্টগ্রাম কাস্টমস কর্তৃপক্ষ। মোট আটটি সরকারি সংস্থার সমন্বয়ে এসব পণ্য ধ্বংস করা হচ্ছে।

কাস্টমস জানায়, প্রায় পাঁচ একর পরিমাণ জায়গায় ধ্বংস কার্যক্রম পরিচালনার জন্য পর্যাপ্ত ক্রেন, স্কেভেটর, ট্রেলার, ট্রাকসহ প্রয়োজনীয় সব ধরনের লজিস্টিক সাপোর্ট দিয়ে শুক্র শনিবারসহ পণ্য ধ্বংস কার্যক্রম চলমান রয়েছে। ওই জায়গা খুঁড়ে পচে যাওয়া পণ্য ফেলে মাটি চাপা দেওয়া হচ্ছে। যার ফলে কোন প্রকার দুর্গন্ধ ছড়ানোর সুযোগও থাকবে না। নির্বাচিত জায়গাটি লোকালয় থেকে দূরে হওয়ায় সাধারণ মানুষের কোন সমস্যাও হবে না।

এদিকে বন্দরের তথ্য অনুযায়ী, চট্টগ্রাম বন্দরে প্রায় ৭ হাজার ৫শ কন্টেইনার পণ্য নিলামযোগ্য রয়েছে। যার মধ্যে প্রায় ২৭০টি কন্টেইনার বিপজ্জনক পণ্যও রয়েছে।

 

পূর্বকোণ/এএস

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট