চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ০২ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩

২৮ ডিসেম্বর, ২০২২ | ১১:১০ পূর্বাহ্ণ

ইফতেখারুল ইসলাম

লক্ষ্য ৩০০ আসনে প্রার্থী, জোট হলে ২০টি আসন চাইবে দলটি

আগামী বছরের শুরুর দিকে জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়া নিয়ে রাজনীতির অঙ্গন এখন থেকে সরগরম। এই নির্বাচনকে সামনে রেখে কাউন্সিল করছে সুফিবাদী রাজনৈতিক সংগঠন ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ। যাতে অতিথি থাকবেন মহাজোটের নেতারাও। জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে ঘিরে নিবন্ধিত দলগুলো নিয়ে রাজনীতিতে নয়া মেরুকরণ হচ্ছে কিনা তা নিয়ে শুরু হয়েছে গুঞ্জন।

 

নির্বাচনে বিএনপির অংশ নেয়া না নেওয়ার প্রশ্নে ছোট দলগুলোকে নিয়ে জোট গঠন করার প্রক্রিয়ার বিষয়টিও এখন আলোচনায়। আগামী ৩১ ডিসেম্বর শনিবার ঢাকা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট হলে অনুষ্ঠিত হবে ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশের জাতীয় কাউন্সিল। প্রথম ও দ্বিতীয় অধিবেশনে ভাগ করে অনুষ্ঠিতব্য কাউন্সিলে সারাদেশ থেকে দুই হাজার ডেলিগেটস এবং ২০ হাজার নেতাকর্মী উপস্থিত হবেন। তবে কাউন্সিলে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমির হোসেন আমু, প্রেসিডিয়াম সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক, ওয়ার্কার্স পার্টির রাশেদ খান মেননসহ ১৪ দলীয় জোট এবং মহাজোটের নেতা উপস্থিত থাকার কথা। এ ব্যাপারে নিশ্চিত হয়েছে সংগঠনটি।

 

ইসলামিক ফ্রন্টের মহাসচিব অধ্যক্ষ জয়নুল আবেদীন জুবায়ের বলেন, আমরা চাই সুষ্ঠু ও গ্রহযোগ্য নির্বাচন। নির্বাচনে অংশগ্রহণের লক্ষ্যেই আমরা কাউন্সিলের মাধ্যমে দলকে পরিপূর্ণভাবে গোছানোর উদ্যোগ নিয়েছি।

 

ইসলামিক ফ্রন্টের কাউন্সিল প্রস্তুতি কমিটির সদস্য সচিব স ম হামেদ হোসাইন বলেন, নিবন্ধিত দল হিসেবে আমরাও প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নিয়ে এগোচ্ছি। দেশব্যাপী ইতোমধ্যেই জেলা ও উপজেলা কমিটি গঠনের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। সংসদীয় আসন ভিত্তিক কার্যক্রমও চলছে। আশা করি, কাউন্সিলের মাধ্যমে তৈরি হবে নতুন নেতৃত্ব। এ নেতৃত্ব আগামী নির্বাচনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

 

ইসলামিক ফ্রন্টের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এইচ এম মুজিবুল হক শাকুর বলেন, গত এক বছর ধরে ৬৪টি জেলায় সাংগঠনিক নতুন কমিটি গঠনের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে, তারই ধারাবাহিকতায় ইতিমধ্যে ৪০টির বেশি শক্তিশালী জেলা কমিটিসহ তৃণমূল পর্যায়ের সাংগঠনিক কাঠামোর শক্তিকে পুঁজি করে আমরা আগামী জাতীয় নির্বাচনে দেশের ৩০০টি আসনে প্রার্থী দেওয়ার পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করে যাচ্ছি। এ ব্যাপারে আমাদের প্রার্থী  ‍চূড়ান্ত এবং সাংগঠনিক প্রস্তুতিও রয়েছে। রাজনৈতিক পরিস্থিতি, সময় এবং অবস্থান মূল্যায়ন করে আমরা জাতীয়ভাবে সিদ্ধান্ত ঘোষণা করবো। জোটগতভাবে নির্বাচন করলে অন্তত ২০টি সংসদীয় আসন চাইবে তাদের দল।

 

জানা যায়, প্রতিবারই জাতীয় নির্বাচন আসলে জোট মহাজোট গঠন প্রক্রিয়া সরব হয়। ছোট দলগুলো বড় দলগুলোর সঙ্গে জোট হয়ে সংসদের আসনের ভাগাভাগি করে। তারই ধারাবাহিকতায় রাজনীতির অঙ্গনে আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে এবারো জোট-মহাজোট সক্রিয় করার প্রক্রিয়া শুরু হচ্ছে। বর্তমান রাজনৈতিক বাস্তবতায় আগামী নির্বাচনেও জোটগত নির্বাচনের প্রয়োজনীয়তার বিষয়টি সামনে আসছে।

পূর্বকোণ/আর

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট