চট্টগ্রাম সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩

২৩ ডিসেম্বর, ২০২২ | ১১:৫৬ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

চালের চেয়েও আটা-ময়দার দাম বেশি

বাজারে চালের চেয়ে বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে আটা ও ময়দা। প্রতিকেজি আটা মোটা চালের চেয়ে ১৫-১৭ টাকা বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে। একইভাবে প্রতিকেজি ময়দাও ২০-২২ টাকা বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে।

 

নগরীর দুই নম্বর গেট কর্ণফুলী কমপ্লেক্স ঘুরে দেখা যায়, এ বাজারে মোটা (সিদ্ধ) চাল প্রতিকেজি বিক্রি হচ্ছে ৫৮-৬০ টাকা দরে। আতপ চাল বিক্রি হচ্ছে ৫৮-৬২ টাকায়। একইভাবে সরু চাল (সিদ্ধ) বিক্রি হচ্ছে ৬৮-৭৪ টাকায়। একই দামে বিক্রি হচ্ছে আতপ সরু চালও। অন্যদিকে, প্রতিকেজি প্যাকেটজাত আটা বিক্রি হচ্ছে ৭৫ টাকায়। খোলা আটা বিক্রি হচ্ছে ৭০ টাকা দরে। বিভিন্ন কোম্পানির প্যাকেটজাত ময়দা কেজিপ্রতি ৮০-৮২ টাকা দরে বিক্রি করা হচ্ছে।

 

আটা ও সরু চালের দামের তফাৎ : আটার সাথে মোটা ও সরু-দুই জাতের চালের পার্থক্য করে দেখা যায়, খুচরায় বাজারে প্রতিকেজি মোটা চালের চেয়ে আটা বিক্রি হচ্ছে ১৫-১৭ টাকা বেশি দরে। আর সরু চালের চেয়ে আটা ৫-৭ টাকা বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে। খোলা আটার মধ্যেও ৮-১০ টাকা বেশি পার্থক্য দেখা যায়।

 

ময়দা ও চালের পার্থক্য : মোটা ও সরু চালের তুলনা করে দেখা যায়, প্রতিকেজি সরু চালের চেয়ে ময়দা বিক্রি হচ্ছে ৬-১২ টাকা বেশি দামে। আর মোটা চালের চেয়ে ১৮-২০ টাকা বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে ময়দা। ব্যবসায়ীরা বলছেন, আটা ও ময়দার দাম পাইকারিতে বাড়তি রয়েছে। প্রতিমণ আটা-ময়দার দাম ১৫০-২৫০ টাকা বেড়েছে। এর প্রভাব পড়েছে খুচরা বাজারেও।

 

চাক্তাই-খাতুনগঞ্জের মিল মালিকরা বলছেন, বাংলাদেশে গম আমদানি হয় রাশিয়া-ইউক্রেন থেকে। এই দুই দেশের যুদ্ধের কারণে দেশীয় বাজারে চাহিদার চেয়ে কম পরিমাণ গম আমদানি হচ্ছে। এতে গমের সংকট দেখা দিয়েছে। যার প্রভাব পড়েছে আটা-ময়দার বাজারে।

 

মিল মালিক আবু সৈয়দ বলেন, পাইকারিতে এখন মণপ্রতি আটা বিক্রি হচ্ছে ২ হাজার ৯০ টাকা। ময়দা বিক্রি হচ্ছে মণপ্রতি ২ হাজার ২১০ টাকা দরে। আটা ও ময়দার দাম মণপ্রতি বেড়েছে ১০০-২০০ টাকা।

 

নাজমুল ইসলাম নামের এক ক্রেতা বলেন, মানুষ এখন ভাতের চেয়ে আটা-ময়দার ওপর নির্ভরশীল বেশি। প্রতিদিনের নাস্তা, অফিসের নাস্তা ও বাচ্চাদের স্কুলের টিফিনসহ ঘরে আমার স্ত্রী-মা দুই জনেই ডায়বেটিসের রোগী। তারা নিয়মিত রুটি খেতে হয়। এক কথায় আটা ময়দা ছাড়া দিনই চলে না। কিন্তু সেই আটা ময়দার দাম অর্ধেকের বেশি বেড়ে গেছে। চালের চেয়েও বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে অত্যাবশকীয় এ দুইটি ভোগ্যপণ্য।

পূর্বকোণ/আর

 

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট