চট্টগ্রাম রবিবার, ০৫ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩

সর্বশেষ:

১৪ ডিসেম্বর, ২০২২ | ২:২৫ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

র‌্যাব কর্মকর্তা পরিচয়ে‌ ‘নির্যাতনের শিকার’ নারীর টাকা হাতিয়ে নিল যুবক

পারিবারিক কলহের জেরে স্বামীর সঙ্গে বনিবনা না হওয়ায় সুমনা রহমান (ছদ্মনাম) সংসারের ইতি টানেন। স্বামীর হাতে নানা সময়ে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের শিকার হওয়ায় তিনি চট্টগ্রাম আদালতে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলাটির খোঁজ নিতে গত ১২ সেপ্টেম্বর আদালতে আসলে সেখানে মো. আমান উল্লাহ নামে একব্যক্তির সঙ্গে পরিচয় হয়। যিনি নিজেকে র‌্যাবের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা হিসেবে নিজেকে পরিচয় দেন। পরে তিনি ওই নারীর মামলা তদন্ত করে তার স্বামীকে গ্রেপ্তারের আশ্বাস দেন। এছাড়া স্বামীর বিরুদ্ধে ওয়ারেন্ট বের করে গ্রেপ্তারের জন্য তার কাছ থেকে ১ লাখ টাকা দাবি করেন এই আমান। তার কথায় বিশ্বাস করে ওই নারী তাকে মোবাইলের মাধ্যমে ৩৭ হাজার ৫০০ টাকা দেন। পরে মামলার বিষয়ে জানতে তাকে ফোন করলে তিনি আরও ২০ হাজার টাকা দাবি করেন। যদি টাকা না দেন উল্টো সেই মামলায় তাকে আসামি বানিয়ে গ্রেপ্তারের হুমকিও দেয় আমান। তিনি তার আত্মীয়ের সঙ্গে পরমার্শ করে র‌্যাব অফিসে একটি লিখিত অভিযোগ দেন।

 

অভিযোগের ভিত্তিতে মঙ্গলবার (১৩ ডিসেম্বর) ফটিকছড়ির ভুজপুর থানাধীন কাজীর টিলা (পাগলীছড়ি) নামক এলাকা থেকে প্রতারক আমানকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। গ্রেপ্তার আমান উপজেলার পশ্চিম সিংহরিয়ার মৃত আবুল কালামের ছেলে।

 

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন র‌্যাব-৭ এর সিনিয়র সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) মো. নুরুল আবছার। তিনি বলেন, আমান ওই নারীকে র‌্যাবের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে প্রতারণা করেন। পরে ওই নারীর অভিযোগের ভিত্তিতে গতকাল বিকেলে উপজেলার কাজীর টিলা (পাগলীছড়ি) নামক এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ সময় তার কাছ থেকে প্রতারণার কাজে ব্যবহৃত একটি ফোন ও হাতিয়ে নেওয়া নগদ ৩০ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়। তার বিরুদ্ধে নগরীর চান্দগাঁও থানায় মানবপাচার প্রতিরোধ ও দমন আইনে একটি মামলা রয়েছে। গ্রেপ্তার আমানকে সংশ্লিষ্ট থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

পূর্বকোণ/পিআর/এএইচ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট