চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারি, ২০২৩

সর্বশেষ:

৯ ডিসেম্বর, ২০২২ | ১১:৩২ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

বছরের ব্যবধানে চার পণ্যে গড়ে দাম বেড়েছে ৫৫.৯৬%

এক বছরের ব্যবধানে প্রতিদিনের খাদ্য তালিকার আবশ্যক প্রয়োজনীয় চার পণ্য আটা, ময়দা, চিনি ও তেল কেজিতে গড়ে দাম বেড়েছে ৫৫ দশমিক ৯৬ শতাংশ। এতে চার সদস্যের সংসারে এক বছরের ব্যবধানে এ চার পণ্যে মাসিক খরচ বেড়েছে ৬৪৪ টাকা।

 

এক বছরে চার পণ্যের বাজার বিশ্লেষণ : গত এক বছরের ব্যবধানে এ চার পণ্যের বাজার বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, ২০২১ সালের ডিসেম্বরে প্রতি কেজি আটার বাজার দর ছিল ৩৮ টাকা, যা বর্তমান দাম কোম্পানি ভেদে বিক্রি হচ্ছে ৭৫ টাকায়। এক বছরে আটায় বেড়েছে ৯৭ দশমিক ৩৬ শতাংশ। ময়দা ৪৮ টাকা থেকে বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৮০ টাকা। যা শতকরা ৬৬ দশমিক ৬৭ টাকা বেড়েছে। চিনি ৮০ টাকা থেকে বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ১১০ টাকায় যা শতকরা ৩৭ দশমিক ৫ শতাংশ এবং ভোজ্যতেল ১৫৫ টাকা থেকে বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ১৯০ টাকায় যা শতকরা ২২ দশমিক ২৮ শতাংশ দাম বেড়েছে। চার সদসের একটি সংসারে আগে এর চার পণ্য বাবদ

মাসিক খরচ হতো ১ হাজার ৬৩৬ টাকা। একই পরিমাণ পণ্য বর্তমানে এক মাসে একই পরিবারে খরচ হচ্ছে ২ হাজার ২৮০ টাকা। শুধু এক মাসে এ চার পণ্যেই খরচ বেড়েছে ৬৪৪ টাকা। পাশাপাশি প্রতিটি পণ্যেই এক বছরের ব্যবধানে বেড়েছে দাম। এতে সংসার চালাতে হিমশিম খাচ্ছেন সব শ্রেণি পেশার মানুষ। মধ্যবিত্ত পরিবারের গৃহিণী ফারজানা বেগম বলেন, আটা, ময়দা, চিনি ও তেল ছাড়া একটা দিনও চলে না। এগুলো প্রতিদিনের সংসারে অপরিহার্য। কিন্তু এ পণ্যগুলোতে মাসিক খরচ অনেক বেশি বেড়ে গেছে। যা মাসকাবারি বাজেটে টান ফেলছে।

 

চলতি সপ্তাহে কমেছে : চলতি বছরের প্রথম থেকেই বাজারে চড়া সবজিসহ মাছ মাংসের দাম। তবে গতকাল বাজার ঘুরে দেখা যায়, সপ্তাহের শুরুতে কিছুটা কমেছে ডিম, মুরগি ও সবজির দাম। সপ্তাহের ব্যবধানে ব্রয়লার মুরগি কেজিতে ৩০ টাকা দাম কমে বিক্রি হচ্ছে ১৫০ টাকায়। সোনালী ও লেয়ার বিক্রি হচ্ছে ২৮০-২৯০ টাকায়। এছাড়া প্রতি ডজন ডিম বিক্রি হচ্ছে ১১৫ টাকায়, পেঁয়াজ ৪০ টাকায়, নতুন আলু বিক্রি হচ্ছে ৬০ টাকায় এবং পুরাতন আলু ২৫ টাকায়সহ বিভিন্ন সবজিতে প্রায় ১০-২০ টাকা পর্যন্ত দাম কমেছে।

 

পূর্বকোণ/আর

 

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট