চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারি, ২০২৩

সর্বশেষ:

৮ ডিসেম্বর, ২০২২ | ১১:৩৩ পূর্বাহ্ণ

ইমাম হোসাইন রাজু

চমেক হাসপাতালে চালু হচ্ছে মাইক্রোবায়োলজি ল্যাব

প্রতিষ্ঠার পর এই প্রথম মাইক্রোবায়োলজি ল্যাব চালু করতে যাচ্ছে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতাল। ইতোমধ্যে ল্যাব স্থাপনের অবকাঠামো থেকে শুরু করে যাবতীয় কার্যক্রম শেষ করেছে কর্তৃপক্ষ। স্থাপন করা হয়েছে আধুনিক সব যন্ত্রপাতি। সব কিছু ঠিক থাকলে নতুন বছরের শুরুতেই কার্যক্রম শুরু করা হবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

 

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, হাসপাতাল প্রতিষ্ঠার পর থেকেই চমেক হাসপাতালে মাইক্রোবায়োলজি ল্যাব ছিল না। বিভিন্ন পরীক্ষা নিরীক্ষার জন্য রোগীদের ছুটতে হতো বেসরকারি ল্যাবগুলোতে। যদিও কলেজের আওতাধীন মাইক্রোবায়োলজি ল্যাব আছে। কিন্তু তাতে সার্বক্ষণিক পরীক্ষা নিরীক্ষা হয়ে থাকে না। তবে নতুন করে হাসপাতালে আধুনিক এ ল্যাব চালু হলে রোগীদের পরীক্ষা নিরীক্ষা আরও সহজ হয়ে ওঠবে।

 

চিকিৎসকরা বলছেন, হাসপাতালে ল্যাব স্থাপনের ফলে অনুজীবসহ বিভিন্ন সংক্রামক রোগগুলো চিহ্নিত করা যাবে। ফলে গবেষণার পরিধিও বাড়বে। এছাড়াও রোগীদের সেবাদানের ক্ষেত্রও আরও সহজ হয়ে ওঠবে।

 

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. শামীম আহসান বলেন, ‘আধুনিক মাইক্রোবায়োলজি ল্যাব চালু করতে সব ধরনের প্রক্রিয়া চলমান আছে। ইতোমধ্যে ল্যাবের যন্ত্রপাতি চলে এসেছে। খুব শীঘ্রই তা চালু করা হবে। তবে ল্যাবকে সমৃদ্ধ করে তুলতে আরও বেশ আধুনিক যন্ত্রপাতি সংগ্রহ করা হবে। যাতে করে সব ধরনের পরীক্ষা হাসপাতালেই করা যায়।’

 

সরেজমিনে দেখা যায়, চমেক হাসপাতালের নতুন বহির্বিভাগ ভবনের চতুর্থ তলায় অবস্থিত প্যাথলজি বিভাগের আওতায় স্থাপন করা হয় মাইক্রোবায়োলাজি ল্যাব। যেখানে ছোট ছোট কক্ষে তৈরি করা হয়েছে আধুনিক ল্যাবটি। বসানো হয়েছে পরীক্ষা নিরীক্ষার জন্য যন্ত্রপাতি।

 

হাসপাতালের প্যাথলজি বিভাগের ইনচার্জ শুভাশীষ বড়ুয়া রাজু বলেন, ‘এতদিন মাইক্রোবালোজির পরীক্ষাগুলো কলেজের ল্যাবে করা হতো। তবে হাসপাতালের পরিচালকের একান্ত চেষ্টায় হাসপাতালেও আধুনিক এ ল্যাব চালু হচ্ছে। এটি চিকিৎসা সেবার জন্য অধিকতর গুরুত্বপূর্ণ। এখন থেকে হাসপাতালের রোগীদের এ সেবা পৌঁছে দেয়া যাবে।’

 

পূর্বকোণ/আর

 

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট