চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারি, ২০২৩

সর্বশেষ:

২ ডিসেম্বর, ২০২২ | ৪:২৪ অপরাহ্ণ

নাজিম মুহাম্মদ

মায়ের পরিয়ে দেয়া নীল ক্লিপটি চুলের সাথে গেঁথে ছিল তখনো

মায়ের পরিয়ে দেওয়া নীল রঙের ক্লিপটি শিশু আয়াতের মাথার চুলের সাথে গাঁথা ছিল তখনো। ময়লা আবর্জনার ভেতর থেকে কসটেপ দিয়ে পলিথিনে মোড়ানো মুখমণ্ডলসহ মাথাটি উদ্ধারের পর অবতারণা হয় হৃদয় বিদারক দৃশ্যের। বার বার আকুতি করছিল মেয়ের শরীরের খণ্ডিত অংশটি যেন একটু দেয়া হয়। পরম মমতায় মেয়েকে আদরে জড়িয়ে নিতে বড়ই ইচ্ছে করছিল বাবা সোহেল রানার। ময়নাতদন্ত ও ডিএনএ নমুনা নেয়ার পর গতকাল (বৃহস্পতিবার) সন্ধ্যায় মেয়ের দেহের খণ্ডিত অংশ হাতে পেয়ে মর্গের সামনে দুই হাতে বুকে চেপে ধরে রাখে সোহেল। পরে এম্বুলেন্সের সাইরেন বাজিয়ে বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা দেন তিনি। সোহেল জানান, যে মক্তবের মাঠ থেকে আয়াতকে অপহরণ করা হয়েছিল সেই মক্তবের মাঠেই রাত নয়টায় জানাজার নামাজ অনুষ্ঠিত হবে।

গত ১৫ নভেম্বর দক্ষিণ হালিশহরের বাসা থেকে বের হয়ে নয়ারহাট আলিশাহ জামে মসজিদের মক্তবে আরবি পড়তে যায় আয়াত। মসজিদের মাঠে খেলা করা অবস্থায় প্রতিবেশী আবির তাকে ডেকে নিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। যে মক্তবে আরবি পড়ত সেই মক্তবের মাঠেই আজ রাত নয়টার ফিরবে আয়াত। তবে জীবিত নয়। ফিরবে তার দেহের খণ্ডিত অংশ। খণ্ডিত দুই’পা উদ্ধারের পর গতকাল বৃহস্পতিবার মুখমণ্ডলসহ মাথার অংশ খুঁজে পেয়েছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

পিবিআই পুলিশ সুপার (মেট্টো) নাঈমা সুলতানা জানান, গ্রেপ্তার আবিরের দেয়া তথ্য অনুযায়ী খণ্ডিত দুই পায়ের অংশ উদ্ধারের পর মাথার অংশটিও পাওয়া গেছে। দেহের বাকী অংশ খুঁজতে আজ (শুক্রবার) দিনভর সাগর পাড়ে অভিযান চালানো হবে। উদ্ধার করা খণ্ডিত পা, মাথার অংশ ময়নাতদন্ত ও ডিএনএ নমুনা নেয়ার পর পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। আমরা চেষ্টা করব শরীরের বাকী অংশ ও হাত দুটি খুঁজে আয়াতের মা বাবার হাতে তুলে দিতে।
পিবিআই’র পুলিশ পরিদর্শক মো. ইলিয়াস খান জানান, শিশু আয়াতের দেহের খণ্ডিত অংশ উদ্ধার অভিযানে গতকাল বৃহস্পতিবার আকমল আলি খালের স্লুইস গেট ও সাগরপাড়ে পিবিআই’র ৩৫ জন পুলিশ সদস্য অংশ নিয়েছে। গত দুইদিন ধরে সিটি কর্পোরেশনের ৫০ জন পরিচ্ছন্নতাকর্মী উদ্ধার অভিযানে অংশ নিয়েছে। সহযোগিতা করেছে পানি উন্নয়ন বোর্ড ও সিডিএ।
রিমান্ডে থাকা আবিরকে নিয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে আকমল আলি সড়কের স্লুইসগেট এলাকায় যায় পিবিআই। আগে থেকে পানি উন্নয়ন বোর্ডের সহযোগিতায় স্লুইসগেট গেটের পানি প্রবাহ বন্ধ করে দেয়া হয়। গেটের মুখের প্রায় ৪৫০ মিটার দূরে যেখানে স্লুইসগেট গেটের মুখ দিয়ে বের হওয়া ময়লা আবর্জনা জমেছে সেখানেই মিলেছে আয়াতের মাথার খণ্ডিত অংশ। পলিথিন আর কসটেপ মোড়ানো মাথার খণ্ডিত অংশটি উদ্ধার করা হলে বাবা সোহেল রানার কান্নায় ভারী হয়ে উঠে সাগর পাড়ের বাতাস। মেয়ের মাথার খণ্ডিত অংশ বুকে জড়িয়ে নিতে আকুতি করছিল বার বার।

আয়াতের নির্মম ঘটনায় পিবিআই প্রধান বনজ কুমার মজুমদার গতকাল বৃহস্পতিবার তাঁর ফেসবুক পেজে লিখেন, গত কয়েকদিন আর্জেন্টিনার ভক্তদের কেটেছে দারুণ উদ্বেগ আর উৎকণ্ঠার মধ্য দিয়ে এবং আজ মধ্যরাত ছিল তাদের উৎসব ও উন্মাদনার-আর্জেন্টিনা ফিরে এসেছে স্ব-মহিমায়। বিগত সাতদিন ধরে পিবিআই চট্টগ্রাম মেট্টোর হার না মানা সন্ধান অভিযান চলাকালে গতকাল বিকেলে আলীনা ইসলাম আয়াতের (৫) খণ্ডিত দুটি পা উদ্ধার করা হয় যা তার মৃত্যুর ১৫ দিন পরও আশ্চর্যজনকভাবে সতেজ ছিল। আজ (বৃহস্পতিবার) পাওয়া গেছে আয়াতের নিষ্পাপ মুখের খণ্ডিত মাথাটি। মায়ের বেঁধে দেওয়া নীল ক্লিপটি এখনো চুলে গেঁথে আছে। এ নীল তো আর্জেন্টিনার রঙ। মেসির আর্জেন্টিনা বা তাঁদের কোন সমর্থক কি জানেন- বাংলাদেশের এক ক্ষুদে দেবশিশু তার প্রিয় দলের বিজয় দেখার জন্য গত (বুধবার) রাতেও সাগর তীরের একটি স্লুইসগেটের প্রকোষ্ঠে হিমশীতল জলের তলে অপেক্ষায় ছিল। অভিমানী আয়াতের অপাপবিদ্ধ মুখটি যেন বারবার বলতে চাইছে-এতকিছুর পর কই, আমাকে তো রক্ষা করতে পারলে না।

পূর্বকোণ/এএইচ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট