চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারি, ২০২৩

সর্বশেষ:

৩০ নভেম্বর, ২০২২ | ১১:০০ পূর্বাহ্ণ

এহছানুল হক

১৩০০ নম্বরে ১২৮২ পেয়ে চমক কলেজিয়েট শিক্ষার্থী রায়হানের

ছোটবেলা থেকেই পড়াশোনায় মনোযোগী মো. রায়হান হোসেন। বরাবরই ভালো ফল ছিল তার হাতের মুঠোয়। পঞ্চম ও অষ্টম শ্রেণিতে পেয়েছিল ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি। এবারের এসএসসি পরীক্ষায়ও দেখিয়েছে চমক। ফলাফলের ভিত্তিতে স্কুলের সবাইকে ছাপিয়ে গেছে। শুধু স্কুল নয়, আশা করা হচ্ছে বোর্ড সেরারও। সোমবার (২৮ নভেম্বর) মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হয়। এই ফলাফলে রায়হান পেয়েছে গোল্ডেন জিপিএ-৫। সে ১৩০০ নম্বরেই পেয়েছে ১২৮২। যা স্কুলের এ যাবৎকালের সর্বোচ্চ নম্বর বলে জানিয়েছেন শিক্ষকরা।

 

চট্টগ্রাম কলেজিয়েট স্কুল থেকে এসএসসি (বিজ্ঞান বিভাগ) পরীক্ষা দিয়েছে রায়হান হোসেন। তার গ্রামের বাড়ি ভোলা জেলায় হলেও মা-বাবার সঙ্গে থাকে চট্টগ্রাম নগরীর হালিশহরে। বাবা মো. আবদুর রহমান সিএন্ডএফ ব্যবসায়ী আর মা আকলিমা বেগম গৃহিণী।

 

রায়হানের মার্কসিটে দেখা গেছে, সে ইংরেজি প্রথম ও দ্বিতীয় পত্রে ২০০ নম্বরে পেয়েছে ২০০, বাংলা দুটিতে ১৯৩, গণিতে ১০০, বাংলাদেশ এন্ড গ্লোবাল স্টাডিজে ৯৮, ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষায় ৯৯, পদার্থ বিজ্ঞানে ১০০, রসায়নে ৯৮, উচ্চতর গণিতে ১০০, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিতে ৫০-এ ৪৬, জীববিজ্ঞানে ৯৮, শারীরিক শিক্ষা ও ক্রীড়ায় ১০০, কর্মমুখী শিক্ষায় ৫০-এ ৫০।

 

রায়হান বলে, সবকিছু আল্লাহর ইচ্ছায় হয়েছে। ভালো ফলাফলের পেছনে আব্বু-আম্মু ও সম্মানিত শিক্ষকদের দোয়া ছিল। তাঁদের সাহায্য এবং নিজেরও চেষ্টা ছিল। তাঁরা আমাকে সাহস যুগিয়েছেন। অষ্টম শ্রেণিতে ট্যালেন্টপুল বৃত্তি পেয়েছি। তখন থেকেই অনুপ্রেরণা ছিল কিছু করতে পারব। এজন্য আমি রাতেই বেশি পড়াশোনা করতাম। অনেক কষ্টের পর আব্বু-আম্মুকে ভালো ফলাফল উপহার দিতে পেরে খুবই ভালো লাগছে। রায়হানের স্বপ্ন বড় হয়ে ইঞ্জিনিয়ারিং পড়বে।

 

রায়হানের বাবা ব্যবসায়ী মো. আবদুর রহমান বলেন, আমি শিক্ষকদের প্রতি কৃতজ্ঞ, কারণ তাঁদের কারণেই ছেলে ভালো ফল করেছে। তবে অভিভাবক হিসেবে সচেতন ছিলাম, তাকে পুরোপুরি গাইড দিয়েছি। বাচ্চারও চেষ্টা ছিল। যথেষ্ট পড়ালেখা করেছে। পড়ালেখার জন্য তাকে কখনও বলতে হয় নি। মজার ব্যাপার হচ্ছে সে এখনও পর্যন্ত মোবাইল ব্যবহার করে না।

 

চট্টগ্রাম কলেজিয়েট স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম পূর্বকোণকে বলেন, আবহমান কাল ধরেই আমাদের স্কুল ভাল ছিল। ভাল-ভাল ছেলেরা এখানে আসছে এবং মেধার স্বাক্ষর রাখছে। এ স্কুলে ৪৮৩ জন এ প্লাস পাওয়া এবারই প্রথম। আমাদের পূর্বের ফলাফলে কখনও এতগুলো এ প্লাস আসেনি। এত নম্বরও আসেনি। ১৩০০ নম্বরে ১২৮২ আসা এই স্কুলের জন্য প্রথম।

 

তিনি বলেন, সর্বোচ্চ নম্বর পাওয়া রায়হান অত্যন্ত বিনয়ী ছেলে। তার ভেতর আমি ঝোঁক দেখেছি। সহপাঠীরা যখন মাঠে খেলে তখন তাকে বই পড়তে দেখেছি। তাকে বইয়ের পোকা বললেই চলে। আশা করি সে এবার চট্টগ্রাম বোর্ড সেরা হবে। এবারের এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ’তে কলেজিয়েট স্কুল শীর্ষে রয়েছে বলেও জানান সিরাজুল ইসলাম।

 

পূর্বকোণ/আর

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট