চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর, ২০২২

২২ নভেম্বর, ২০২২ | ১১:৪৪ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

পরশু থেকে নগরীর ২০ পয়েন্টে মাইকে প্রচারণা চালাবে আ. লীগ

মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সাবেক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার আগমন ও পলোগ্রাউন্ডে অনুষ্ঠিতব্য ৪ ডিসেম্বরের মহাসমাবেশের নানামুখী প্রচার-প্রচারণার অংশ হিসেবে নগরীর ৪৪ টি সাংগঠনিক ওয়ার্ড এলাকাজুড়ে মাইকিং করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।পলোগ্রাউন্ডের মহাসমাবেশ সফল করার লক্ষ্যে গত ২০ নভেম্বর উত্তর কাট্টলী ওয়ার্ড কাউন্সিলর ড. নিছার উদ্দিন আহমেদ মঞ্জুর বাসভবন প্রাঙ্গণে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের উদ্যোগে এক প্রস্তুতি সভায় তিনি একথা বলেন।

 

কাউন্সিলর নিছার উদ্দিন আহমেদ মঞ্জুর সভাপতিত্বে ও আবু সুফিয়ান হারুনুর রশিদের যৌথ সঞ্চালনায় সভায় আ জ ম নাছির উদ্দীন আরো বলেছেন, নগরীর গুরুত্বপূর্ণ ২০টি পয়েন্টে স্থায়ী মাইকিং, ওয়ার্ড এলাকাজুড়ে ৫ দিনব্যাপী ভ্রাম্যমাণ মাইকিংয়ে প্রচারণা চালানো হবে। তাছাড়া ১ ডিসেম্বর থেকে নগরীর প্রান্তিক ও তৃণমূল এলাকায় শেষ প্রস্তুতিমূলক প্রচার প্রচারণা চালানো হবে।

 

তবে চলমান এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার পরীক্ষার্থীদের লেখাপড়ায় যাতে বিঘ্ন না ঘটে সেজন্য সন্ধ্যা ৭ টার পর মাইকিং বা অন্য প্রচারণামূলক কর্মসূচি বন্ধ রাখা হবে। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড এলাকার দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতৃবৃন্দকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

 

তাছাড়া মহাসমাবেশের দিন যাতে পরীক্ষার্থীদের যাতায়াতে কোন ধরনের প্রতিকূলতার সম্মুখীন হতে না হয় সেজন্য মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার কৃষ্ণপদ রায়ের সাথে আলোচনা হয়েছে। তিনি প্রয়োজনে পুলিশের গাড়িতে করে পরীক্ষার্থীদের স্ব স্ব কেন্দ্রে পৌঁছিয়ে দেয়ার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেছেন।

 

সভায় বক্তব্য রাখেন, চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা নঈম উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী, উত্তর কাট্টলী ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতা ইকবাল চৌধুরী, শ্রমিক নেতা শফি বাঙ্গালি, এএইচএম আবুল খায়ের, মীর কাশেম দুলাল, হাজি মো. ইদ্রিছ মিয়া, আকবর শাহ থানা আওয়ামীলীগ সভাপতি সুলতান আহমদ চৌধুরী, লায়ন গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী, সুভাষ চন্দ্র দে, শিবলু বিশ্বাস, মুসলিম উদ্দিন চৌধুরী, হারুনুর রশিদ চৌধুরী, হাজি আবুল কালাম আবু প্রমুখ।

 

এছাড়া একই দিন ৯ নং উত্তর পাহাড়তলী ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে উত্তর পাহাড়তলী ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ, ছাত্রলীগের উদ্যোগে মহাসমাবেশ সফল করার লক্ষে প্রতিনিধি ও কর্মী সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

 

এদিকে, নগর আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক শফিকুল ইসলাম ফারুক পূর্বকোণকে বলেন, চট্টগ্রামে দীর্ঘ এক দশক পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আসছেন। এটা নিঃসন্দেহে চট্টগ্রামবাসীর জন্য আনন্দের বিষয়। নেত্রী আসছেন তাই উৎসবের আমেজ সৃষ্টি হয়েছে।

 

সেই উৎসবে সর্বস্তরের জনগণকে সামিল করার জন্য নানা পরিকল্পনা চলছে। তিনি জানান, ৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত প্রতিদিন সকাল ১০ টা থেকে শুরু হয়ে সন্ধ্যায় প্রচারণা শেষ হবে। তবে নামাজের সময় মাইক বন্ধ থাকবে। যেসব পয়েন্টে মাইক বাজানো হবে তা হল, নিউ মার্কেট মোড়, আন্দরকিল্লা, কদমতলী মোড়, দেওয়ানহাট মোড়, বাদামতলী, সল্টগোলা, ইপিজেড, স্টিলমিল, বড়পুল, নয়াবাজার বিশ্বরোড, অংলকার, কর্নেল হাট, জিইসি মোড়, টাইগারপাস, ওয়াসামোড়, মুরাদপুর, বহদ্দারহাট, কাপ্তাই রাস্তার মাথা, রাজাখালী ব্রিজ, আতুরার ডিপো, অক্সিজেন, চকবাজার এবং ধুনিরপুল। এসব পয়েন্টে প্রধানমন্ত্রীর জনসভায় যোগদানের আহ্বান জানিয়ে উৎসাহমূলক স্লোগান বাজানো হবে।

 

একইসাথে ২৪ তারিখ থেকে ট্রাক শোভাযাত্রা এবং প্রতিদিন ২০ টি সিএনজি ট্যাক্সির মাধ্যমে প্রচারণা চালানো হবে। ৫ দিন পর আরো ১০টি ট্যাক্সি যুক্ত হবে। শেষের কয়েকদিন অন্তত ৫০টি ট্যাক্সির মাধ্যমে প্রচারণা চালানো হবে।

 

পূর্বকোণ/আর

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট