চট্টগ্রাম শনিবার, ২৬ নভেম্বর, ২০২২

সর্বশেষ:

১৮ নভেম্বর, ২০২২ | ১২:০৪ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

চট্টগ্রামে তথ্য প্রযুক্তির মামলায় আসামি দুই বছরের শিশু!

চট্টগ্রামে পুলিশ পরিচয়ে চুরির চেষ্টার মামলার ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী মোহাম্মদ হাসানের বিরুদ্ধে তথ্যপ্রযুক্তি আইনে মামলা দায়ের করেছেন মফিজুল ইসলাম নামের একব্যক্তি । সেই মামলায় ‘আল নাহিয়ান’ নামের এক শিশুকেও আসামির তালিকায় রাখা হয়েছে।

বুধবার (১৬ নভেম্বর) চট্টগ্রাম সাইবার ট্রাইব্যুনালে পাপ্পি ও ববির প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজার পরিচয়ে মফিজুল ইসলাম নামের ব্যক্তি বিভাগীয় সাইবার ট্রাইব্যুনাল আদালতে মামলাটি করেন। মামলায় মোহাম্মদ হাসান প্রকাশ আল নাহিয়ান বিন হাসান পিতা সামশুল আলমসহ ৮ জনের নাম উল্লেখ করা করা হয়। ২০১৮ সালের নিরাপত্তা আইনের ২৫ (ক) ২৯, ৩৫ ধারায় অভিযোগ আনা হয়েছে ৮ জনের বিরুদ্ধে। সেই তালিকায় ‘বোয়ালখালী আওয়ামী লীগ ‘কে আসামি করা হয়েছে।

জানা গেছে, পুলিশ পরিচয়ে চুরির চেষ্টা মামলায় হাইকোর্ট থেকে জামিন নেবার পরে মনসুর আলম পাপ্পী (ববির ভাই) সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে হুমকি দেন ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী মোহাম্মদ হাসানকে । গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদ ফেসবুকে প্রচারের কারণে এমন মামলা করা হয়েছে।

বুধবার চট্টগ্রামের সাইবার ট্রাইব্যুনালে দায়ের করা এই মামলায় আসামি করা হয়েছে ২ বছর ১০ মাস বয়সি শিশু ও বোয়ালখালী উপজেলা আওয়ামী লীগকে। আসামির তালিকায় এক সাংবাদিকের নামও দেয়া হয়েছে। তথ্য প্রযুক্তির মামলায় শিশুকে জড়ানোর বিষয়টি অনেকেই উষ্মা প্রকাশ করেছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, আল নাহিয়ান বিন হাসান বলে যে আসামীর নাম উল্লেখ করা হয়েছে সেই আল নাহিয়ান বিন হাসান ২ বছর ১০ মাস বয়সী শিশু। শিশুটির পাসপোর্টে তার জন্ম তারিখ ১৬ জানুয়ারি ২০২০ উল্লেখ আছে।

এই বিষয়ে শিশুটির পিতা মোহাম্মদ হাসান বলেন, চুরির মামলার এজাহারভূক্ত আসামি দুই সহোদর পাপ্পি ও ববির বিরুদ্ধে আমি গত ১৪ নভেম্বর সুস্পষ্ট তথ্য প্রমানসহ সাইবার ট্রাইব্যুনালে মামলা করি৷ এরআগে আমার মালামাল চুরির সময় চান্দগাঁও থানা পুলিশের হাতে আটকের ঘটনায় ৫ নভেম্বর আমার অফিস ম্যানেজের বাদি হয়ে যে মামলা দায়ের করেছে সেটির এজাহারভূক্ত আসামী পাপ্পি ও ববি, আমাকে হয়রানী করতে ঢালাও অভিযোগ তুলে তাদের কথিত ম্যানেজার মফিজকে দিয়ে পালটা মামলাটি দায়ের করেছেন। কাউন্টার মামলা হিসেবে তড়িঘড়ি করে মামলাটি করা হয়েছে। তাই আসামীর নামের তালিকায় আমার ২ বছর ১০ মাস বয়সী শিশুর নামটি ঢুকিয়ে দেয়া হয়েছে। ‘

বিষয়টি আইনীভাবেই মোকাবেলা করবেন বলে জানান মো. হাসান।

এই বিষয়ে মামলার আবেদনকারীর আইনজীবি ও বাদির সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তাদের পাওয়া যায়নি।

পূর্বকোণ/মামুন

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট