চট্টগ্রাম শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

সর্বশেষ:

১৭ আগস্ট, ২০১৯ | ১:৫৯ এএম

নিজস্ব প্রতিবেদক

ক্রেতাশুন্য কাঁচা বাজার দাম কমেনি সবজির

নগরীর বাজারগুলো এখনো ক্রেতাশূন্য হলেও দাম কমেনি সবজির। প্রচুর ইলিশ ধরা পড়ায় বাজারে দাম কমেছে। নগরীর ফিশারি ঘাটে ইলিশভর্তি নৌকা নিয়ে সাগর থেকে ফিরছেন জেলেরা। এখানে বাজারের চেয়ে প্রতিকেজি ইলিশের দাম তুলনামূলক কম বলে জানান ক্রেতারা। অন্যান্য মাছের দাম গত সপ্তাহের মতই অপরিবর্তিত আছে। গতকাল (শুক্রবার) নগরীর চকবাজার ঘুরে দেখা যায়, সব ধরনের সবজির দাম ঈদের আগের মতই প্রায় অপরিবর্তিত রয়েছে। তবে অধিকাংশ মাংসের দোকান ছিল বন্ধ। দুই-একটা মুরগির দোকান খোলা থাকলেও ছিল ক্রেতাশূন্য। কাল সবজির বাজারঘুরে দেখা যায় প্রতি কেজি বেগুন বিক্রি হচ্ছে ৬০ টাকা, কাঁকরোল ৫০ টাকা, বরবটি ৬০ টাকা, পটল ৪০ টাকা, কাঁচা পেঁপে ৪০ টাকা, ঢেঁড়স ৪০ টাকা, চিচিঙ্গা ৫০ টাকা, গাজর ৬০ টাকা,

মিষ্টি কুমড়া ৪০ টাকা, লাউ ৬০ টাকা, শিম ৮০ টাকা, ঝিঙ্গা ৫০ টাকা, করলা ৪০ টাকা, কচু ৬০ টাকা, ক্যাপসিকাম ২৮০ টাকা, শসা ৮০ টাকা, কাঁচা মরিচ ১৩০ টাকা, আলু ২৩ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। মাছের বাজার ঘুরে দেখা যায়, ইলিশ ছাড়া অন্যান্য মাছের দাম অপরিবর্তিত থাকলেও গত সপ্তাহের চেয়ে দাম কমেছে লইট্যা মাছের। ১৫০ টাকা থেকে দাম কমে কাল বাজারে প্রতিকেজি লইট্যা মাছ বিক্রি হয়েছে ৮০ থেকে ১শ টাকায়। বাজারে এক কেজি ওজনের প্রতিটি ইলিশ বিক্রি হচ্ছে আটশ থেকে ১ হাজার টাকায়। যা ফিশারি ঘাটে আরো কম দামে বিক্রি হচ্ছে। দেশি রুই ৪০০ টাকা, ভারতীয় রুই ২৫০-৩০০ টাকা, মিয়ানমারের রুই ৩২০ টাকা, কাতাল ৪৫০ টাকা, ফার্মের কৈ আড়াই’শ টাকা, তেলাপিয়া ১৪০ টাকা, ফার্মের মাগুর ৪০০-৫০০ টাকা, রূপচাঁদা ৬০০-৭০০ টাকা, সাদা কোরাল ৭০০ টাকা, লাল কোরাল ৬৫০ টাকা, বড় চিংড়ি ১ হাজার থেকে ১২ শ টাকা, পাবদা ৫০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। বাজারে প্রতি ডজন ফার্মের ডিম বিক্রি হচ্ছে ১১৯ টাকায়। ব্রয়লার মুরগি কেজি ১২০ টাকা, পাকিস্তানি মুরগি ২০০ টাকা ও দেশি মুরগি ৪০০ থেকে ৫০০ টাকা।

The Post Viewed By: 56 People

সম্পর্কিত পোস্ট