চট্টগ্রাম সোমবার, ২৮ নভেম্বর, ২০২২

সর্বশেষ:

১৬ অক্টোবর, ২০২২ | ৫:৫৯ অপরাহ্ণ

অনলাইন ডেস্ক

সিঙ্গার বাংলাদেশের নতুন ম্যানুফ্যাকচারিং প্লান্টের নির্মাণ কাজ শুরু

সিঙ্গার বাংলাদেশ লিমিটেড, কচ গ্রুপের ফ্ল্যাগশিপ প্রতিষ্ঠান আর্চেলিকের সহযোগিতায় ১০ অক্টোবর বাংলাদেশ বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলে (বিএসইজেড) তাদের প্রথম অত্যাধুনিক ম্যানুফ্যাকচারিং প্লান্টের নির্মাণ কাজ শুরু করেছে।

বাংলাদেশে তুরস্কের রাষ্ট্রদূত মাননীয় মুস্তাফা ওসমান তুরান, কচ গ্রুপের ডিউরেবল গুডস কোম্পানির প্রেসিডেন্ট ড. ফাতিহ কেমাল এবিচলিওগ্লু, জেমাল জান ডিনচার, চিফ কমার্শিয়াল অফিসার, আর্চেলিক, নিহাত বাইজ, চিফ টেকনোলজি অফিসার, আর্চেলিক, এম এইচ এম ফাইরোজ, সিঙ্গার বাংলাদেশ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও, আব্দুল আজিম চৌধুরী, অতিরিক্ত সচিব এবং নির্বাহী সদস্য বাংলাদেশ ইকোনমিক জোনস্ অথরিটিসহ অন্যান্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও স্টেকহোল্ডাররা এই মাহেন্দ্রক্ষণে উপস্থিত ছিলেন।

 

আর্চেলিক সিঙ্গারের নতুন ম্যানুফ্যাকচারিং প্ল্যান্ট স্থাপনের জন্য ৭৮ মিলিয়ন মার্কিন ডলার বিনিয়োগ করছে যা বাংলাদেশে ইলেকট্রনিক্স এবং হোম অ্যাপ্লায়েন্স শিল্পে একটি নতুন মাইলফলক স্থাপন করবে। ১৩৫,০০০ বর্গমিটার জমিতে নতুন উৎপাদন কেন্দ্র স্থাপন করা হবে এবং এই প্রকল্পটির নকশা, নির্মাণ এবং প্রকল্প পরিকল্পনার পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশ বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলে একটি ফ্ল্যাগশিপ ম্যানুফ্যাকচারিং প্ল্যান্ট হবে।

 

এই ম্যানুফ্যাকচারিং প্ল্যান্ট ৪,০০০ জন লোকের কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি করবে এবং স্থানীয় সরবরাহকারীদের জন্য একটি কেন্দ্র তৈরি হবে যারা ভবিষ্যতে এই শিল্পখাতে ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে। বাংলাদেশের ইলেকট্রনিক্স এবং হোম অ্যাপ্লায়েন্স শিল্পখাতে আমদানিও অনেকাংশে হ্রাস পাবে।

 

নতুন এই ম্যানুফ্যাকচারিং প্ল্যান্ট চালুর মাধ্যমে সিঙ্গার টেকসই, আধুনিক এবং উন্নত মানের নিজস্ব উৎপাদন প্রক্রিয়া শুরু করবে। এই ম্যানুফ্যাকচারিং প্লান্টে সিঙ্গার বাংলাদেশ রেফ্রিজারেটর, টেলিভিশন, ওয়াশিং মেশিন, এয়ার কন্ডিশনার এবং অন্যান্য এপ্লায়েন্স উৎপাদন করবে যা কোম্পানির উৎপাদন সক্ষমতা বাড়াবে এবং বাজারে তার অবস্থান শক্তিশালী করবে। আমাদের এই বিনিয়োগ বাংলাদেশের ভবিষ্যতের প্রতি আস্থারই প্রতিফলন । যা ভবিষ্যতে বাংলাদেশে বিনিয়োগে আগ্রহীদের আকৃষ্ট করবে এবং বিনিয়োগের অনন্য উদাহরণ হয়ে থাকবে।

 

আর্চেলিকের চিফ কমার্শিয়াল অফিসার জেমাল জান ডিনচার বলেন, ‘আমরা ২০১৯ সালে সিঙ্গার বাংলাদেশ অধিগ্রহণের পর সবচেয়ে বড় বিনিয়োগ করেছি। আমরা বিশ্বাস করি এই বিনিয়োগ বাংলাদেশে আমাদের যাত্রায় একটি নতুন অধ্যায়ের সূচনা করবে। নতুন ম্যানুফ্যাকচারিং প্লান্টের সহায়তায় আমরা বাংলাদেশের ভোক্তাদের জন্য আমাদের পণ্যের ৯০ শতাংশ এই প্ল্যান্টে উৎপাদন করার পরিকল্পনা করছি। বাংলাদেশের জন্য আমাদের উচ্চাভিলাষী পরিকল্পনা রয়েছে এবং আমাদের লক্ষ্য ভবিষ্যতে আরো উন্নত ফলাফল দেখার।

পূর্বকোণ/পিআর

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট