চট্টগ্রাম শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর, ২০২২

সর্বশেষ:

১৪ অক্টোবর, ২০২২ | ১১:১৩ অপরাহ্ণ

বান্দরবান সংবাদদাতা

মাকে বাঁচাতে ‘১০ বছরের জন্য নিজেকে বিক্রি’র আবেদন যুবকের

ক্যান্সার আক্রান্ত মা হাসপাতালে মৃত্যু শয্যায়। চিকিৎসা করাতে গিয়ে ইতিমধ্যে খরচ হয়ে গেছে অনেক টাকা। এখন মাকে বাঁচাতে কলেজপড়ুয়া ওই সন্তান ১০ বছরের জন্য শ্রমিক হিসেবে নিজেকে বিক্রির ঘোষণা দিয়েছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তার এই আবেদন ছড়িয়ে পড়ার পর ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। ইতিমধ্যে বান্দরবানের বিভিন্ন এলাকার লোকজন মায়ের চিকিৎসার জন্য সহায়তা দেয়া শুরু করেছে। বান্দরবান সরকারি কলেজের অনার্স তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী আনোয়ারুল ইসলাম মামুন।

শুক্রবার (১৪ অক্টোবর) নিজেকে শ্রমিক হিসেবে ১০ বছরের জন্য বিক্রির ঘোষণা দিয়ে ফেসবুকে পোস্ট দিয়েছেন তিনি।

 

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, তিন মাস আগে বান্দরবানের আলীকদম উপজেলার সদর ইউনিয়নের পান বাজার এলাকার বাসিন্দা বৃদ্ধা মো. নুরুল ইসলামের স্ত্রী খালেদা বেগমের জরায়ু ক্যান্সার ধরা পড়ে। তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের সহকারী অধ্যাপক এম এ আউয়ালের তত্ত্বাবধানে চট্টগ্রামের পপুলার ডায়াগনস্টিক সেন্টারে কেমু থেরাপি দেয়া হয়। চিকিৎসা চলাকালে খালেদা বেগমের সারা শরীরে ক্যান্সার ছড়িয়ে পড়ে। এতে শারীরিক অবস্থার গুরুতর অবনতি হয়। তার একমাত্র ছেলে সন্তান আনোয়ারুল ইসলাম মামুন পরিবারের সহায়-সম্বল বিক্রি করে মায়ের জন্য ইতোমধ্যে ১৪ লাখ টাকা খরচ করেছেন।

 

মায়ের ক্যান্সারের চিকিৎসার খরচ জোগাড়ের আর কোনো উপায় না পেয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শ্রমিক হিসেবে নিজেকে ১০ বছরের জন্য বিক্রি করার ঘোষণা দিয়ে স্ট্যাটাস দিয়েছেন আনোয়ারুল ইসলাম মামুন। পরে এটি ভাইরাল হয়।
মামুন জানান, পরিবারে আমি একমাত্র ছেলে। আমি গরিব ঘরের সন্তান। আমার মায়ের অবস্থা এখন খুবই খারাপ। মায়ের চিকিৎসা করাতে গিয়ে ইতিমধ্যে সবকিছু শেষ হয়ে গেছে। এখন আমরা নিঃস্ব। শেষ চেষ্টায হিসেবে সিলেটের একটি ক্যান্সার হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার প্রস্তুতি নিয়েছি। কিন্তু এ চিকিৎসা করাতে গিয়ে প্রচুর টাকার প্রয়োজন। কোন উপায় না দেখে শেষমেষ আমি নিজেকে ১০ বছরের জন্য শ্রমিক হিসেবে বিক্রি করার ঘোষণা দিয়েছি ফেসবুকে।

 

সমাজের বিত্তবানরা যদি আমার মায়ের জন্য সহযোগিতা করেন তাদের কাছে চির ঋণী থাকব। আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছি আমাদের গ্রামে অল্প কিছু জায়গা আছে, প্রয়োজনে সেই শেষ সম্বলটুকু বিক্রি করে হলেও মাকে বাঁচাতে যারা সহযোগিতা করবেন তাদের টাকা আমি পরিশোধ করব। তিনি সহায়তা করার জন্য একটি বিকাশ নাম্বার দিয়েছেন (০১৩২১-১৯৯৬২৮)।

আবেগ তাড়িত কণ্ঠে তিনি বলেন, কেউ যদি আমাকে শ্রমিক হিসেবে কিনে নিতে চান তাদের কাছে আমি বিক্রি হবো।

 

পূর্বকোণ/মিনার/মামুন/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট