চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর, ২০২২

সর্বশেষ:

৮ অক্টোবর, ২০২২ | ১২:১৬ পূর্বাহ্ণ

হাটহাজারী সংবাদদাতা

একদিন পার, এখনো খোঁজ মিলেনি হালদায় নিখোঁজ মাদ্রসাছাত্রের

ফুটবল খেলা শেষে গোসল করতে গিয়ে হাটহাজারীর হালদা নদীতে নিখোঁজ মাদ্রাসাছাত্র মোহাম্মদ আনাসের (১৪) সন্ধান মিলেনি এখনো। তাকে উদ্ধারে অভিযান অব্যাহত রেখেছে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দলের সদস্যরা।

সন্ধ্যা নেমে আসায় আপাদত অভিযান বন্ধ হলেও কাল শনিবার সকাল থেকে পুনরায় আবারও উদ্ধার অভিযান শুরু করা হবে বলে জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস। এদিকে ছেলের নিখোঁজ হওয়ার কথা শুনে তার পিতা আবু তাহের দুবাই থেকে শুক্রবার সকালে বাড়িতে চলে আসে। এরপর থেকে ঘটনাস্থল (স্লুইস গেট) এলাকায় সারাদিন নদীর দিকে থাকিয়ে বসে আছে।

এর আগে গতকাল বৃহস্পতিবার (৬ অক্টোবর) হালদা নদীর গড়দুয়ারা ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের চেংখালী খালের মুখের স্লুইস গেট এলাকায় নিখোঁজ হয় আনাস।

শুক্রবার (৭ অক্টোবর) ভোরে উদ্ধার কাজে অংশ নিতে নগরীর আগ্রাবাদ ফায়ার স্টেশন থেকে আসা ৫ সদস্যের একটি ডুবুরি দল সকাল ৭টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত হালদা নদীতে তল্লাশী চালিয়েছে। পুনরায় বিকাল ৪টা থেকে রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত নদীতে তল্লাশী চালিয়েছে।

এদিকে ঘটনাস্থল এবং উদ্ধার তৎপরতা দেখতে যান হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো. শাহিদুল আলম। এসময় তার সাথে উপস্থিত ছিলেন গড়দুয়ারা ইউপি চেয়ারম্যান সরওয়ার মোর্শেদ তালুকদার।

প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার (৬ অক্টোবর) বিকেলে হালদা নদীর পাড়ে ফুটবল খেলার পর নদীতে গোসল করতে গিয়ে নদীতে তলিয়ে যায় মাদ্রাসা শিক্ষার্থী আনাস।

সে ওই ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের হাজী দুলা মিঞা সওদাগর বাড়ির দুবাই প্রবাসী মোহাম্মদ আবু তাহেরের ছেলে। নিখোঁজ আনাস হাটহাজারী পৌরসভার পূর্ব দেওয়ান নগরের ১১ মাইল এলাকার শাহ অলিউল্লাহ ইনস্টিটিউট নামে একটি মাদ্রাসার কিতাব বিভাগের শিক্ষার্থী। সে তার মায়ের সাথে উক্ত এলাকার ১১ মাইল এলাকার উম্মে মঞ্জিলে নানাদের ভাড়া বাসায় দীর্ঘদিন ধরে বসবাস করতো।

হাটহাজারী ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র স্টেশন অফিসার মোহাম্মদ শাহাজাহান জানান, শুক্রবার সকাল ৭টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত এবং এর বিকাল ৪টা থেকে সাড়ে ৮টা পর্যন্ত হাটহাজারী ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধারকারী নৌকা নিয়ে উদ্ধার তৎপরতা চালানো হয়। ঘটনাস্থল ছাড়াও এর উপরে এবং নিচে প্রায় কয়েক কিলোমিটার উদ্ধার অভিযান পরিচালনা করেও নিখোঁজ শিক্ষার্থীর সন্ধান পাওয়া যায়নি। জোয়ারের কারণে আপাতত ডুবুরি দল উদ্ধার অভিযান সাময়িক স্থগিত করেছে ।

এছাড়া ইউএনও মো. শাহিদুল আলম, স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সরওয়ার মোর্শেদ তালুকদারসহ আমরা হালদা নদীর বিভিন্ন স্পট ঘুরে দেখেছি ।

তিনি আরো জানান, বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৫টায় হাটহাজারী ফায়ার সার্ভিসের একটি উদ্ধারকারী দল দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে নদীতে তল্লাশি শুরু করে সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় তল্লাশি অভিযান স্থগিত করি।

 

পূর্বকোণ/খোরশেদ/মামুন/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট