চট্টগ্রাম রবিবার, ২৭ নভেম্বর, ২০২২

৬ অক্টোবর, ২০২২ | ১:৩১ অপরাহ্ণ

রাউজান সংবাদদাতা

রাউজানে নাইট গার্ডকে বেঁধে ৫ দোকানে চুরি

চট্টগ্রামের রাউজানে নাইট গার্ডকে বেঁধে দুর্ধষ চুরির ঘটনা ঘটেছে। বুধবার (৫ অক্টোবর) রাত ৩টার দিকে উপজেলার জগন্নাথহাট বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

 

চুরি হওয়া দোকানগুলো হলো- সিরাজ চেয়ারম্যানের মুদির দোকান, নুর মোহাম্মদের লাইব্রেরি, মামুন ট্রেডার্স, নাজিমের মুদির দোকান, সুমনের মুদির দোকান।

 

প্রত্যক্ষদর্শী মাওলানা সৈয়দ তৈয়বুর রহমান জানান, রাত ৩টা ১০ মিনিটে কয়েকজন মুখোশপড়া লাল রঙের হাফ প্যান্টপড়া লোক আমাকে দেখে বলে উঠে, আপনি চলে যান আমরা রাজনৈতিক সমস্যার কারণে এসেছি। তাদের দেখে আমার হাত-পা কাঁপতে থাকে। আমার পিছনে পিছনে ওরা ৩ জন আমার বসতঘর পর্যন্ত গিয়ে আবার ফিরে আসে। সকালে জানতে পারি বাজারে দোকান চুরি হয়েছে।

 

বাজার কমিটি ও চুরি হওয়া দোকান মালিকরা জানান, দশ থেকে এগারো জন মুখোশ লাগানো ও হাফপ্যান্ট পড়া চোর চক্র কয়েকটি সিএনজি অটোরিকশায় এসে বাজারের ২৩টি সিসি ক্যামরার লাইন কেটে দেয়। এরপর তিন জন নাইট গার্ডকে বেঁধে রেখে ৫টি দোকানের তালা কেটে নগদ টাকা ও মালামাল চুরি করে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় ব্যবসায়ীদের মাঝে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

 

বাজার কমিটির সভাপতি জাহাঙ্গীর মেম্বার ও সেক্রেটারি আবদুল্লাহ আল মামুন জানান, আমাদের সন্দেহ এরা চুরি করতে এসেছিল। পুলিশ আসার খবর পাওয়ায় তারা পালিয়েছে। তাদের মারধরে বাজারের নাইটগার্ড মমতাজ সওদাগরের মাথা ও গলা ফুলে গেছে। তার পরনের লুঙ্গি ছিঁড়ে তার মুখ বেঁধে রাখা হয়। অপর দুই নাইটগার্ড দিদার ও টুকুকেও বেঁধে টাওয়ার গলিতে ফেলে রাখা হয়।

 

রাউজান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল্লাহ আলহারুন মুঠোফোনে বলেন, ‘খবর পেয়ে দ্রুত গিয়ে পাহাড়াদারদের উদ্ধার করা হয়েছে। দ্রুত ডাকাতদের শনাক্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

 

ডাবুয়া ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ আবদু রহমান চুরি হওয়া দোকানদারদের দেখতে এসে পুলিশের ডিউটির অবহেলা উল্লেখ করে বলেন, ‘বাজারের অদূরে পুলিশ ফাঁড়ি। তারা আন্তরিকতা নিয়ে একটু দায়িত্ব পালন করলে অসম্ভবকে সম্ভব করা যেত।’

পূর্বকোণ/পিআর/এসি

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট