চট্টগ্রাম সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩

সর্বশেষ:

২১ সেপ্টেম্বর, ২০২২ | ১১:৪০ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

ইস্পাত শিল্পকে তুলে ধরার আয়োজন

৩২ দেশের ইস্পাত শিল্প সংশ্লিষ্টদের নিয়ে চট্টগ্রামে শুরু হয়েছে দুই দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক স্টিল কনফারেন্স। গতকাল (মঙ্গলবার) নগরীর তারকা হোটেল রেডিসন ব্লুতে এই কনফারেন্স শুরু হয়। বাংলাদেশের ইস্পাত শিল্পের সক্ষমতা ও সম্ভাবনা বিশ্বের কাছে তুলে ধরার এই আয়োজনে পিএইচপি, বিএসআরএম, কেওয়াই স্টিল, এইচএম স্টিল, আনোয়ার ইস্পাত, সালাম স্টিল, জেডএসআরএম’র মতো বড় প্রতিষ্ঠানগুলো অংশ নিয়েছে।

শীর্ষস্থানীয় শিল্পগ্রুপ পিএইচপি ফ্যামিলির চেয়ারম্যান সুফি মোহাম্মদ মিজানুর রহমান ‘আন্তর্জাতিক স্টিল কনফারেন্স : উদীয়মান বাংলাদেশ-২০২২’ এর উদ্বোধন করেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন দেশের ‘ইস্পাত শিল্পের গুরু’ হিসেবে খ্যাত বিএসআরএম গ্রুপের চেয়ারম্যান আলীহোসাইন আকবরআলী। স্বাগত বক্তব্য দেন কনফারেন্সের আয়োজক প্রতিষ্ঠান স্টিলমিন্টের সিইও ধ্রুব গোয়েল।

উদ্বোধনী বক্তব্যে পিএইচপি ফ্যামিলির চেয়ারম্যান সুফি মোহাম্মদ মিজানুর রহমান বলেন, আধুনিক সভ্যতার ভিত্তি হচ্ছে স্টিল। স্টিল ইন্ডাস্ট্রির কোয়ালিটি, ভ্যালু ক্রিয়েশন, বাজার সম্প্রসারণে এই কনফারেন্স ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে। আশাকরি এই কনফারেন্সে স্টিল লং ও ফ্ল্যাট প্রোডাক্ট বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা হবে। জ্ঞান-প্রজ্ঞা কাজে লাগিয়ে ইস্পাত শিল্পের উন্নয়নে সবাইকে একযোগে ভূমিকা রাখতে হবে।

বিএসআরএম গ্রুপের চেয়ারম্যান আলীহোসাইন আকবরআলী বলেন, ইস্পাত শিল্প নিয়ে এই ধরনের বড় আয়োজন আমাদের জন্য সুবর্ণ সুযোগ। আমরা এই আয়োজন থেকে পাওয়া নতুন নতুন ধারণা নিয়ে কাজ করতে অধীর আগ্রহ নিয়ে মুখিয়ে আছি। যারাই নতুন নতুন আইডিয়া নিয়ে কাজ করবেন আমরা তাদের সুযোগ করে দেব। বাংলাদেশের ইস্পাত শিল্পকে আরও সমৃদ্ধ করার লক্ষ্যে সবাইকে নিয়ে কাজ করে যাব।

আয়োজকরা জানিয়েছেন- দুই দিনব্যাপী এই কনফারেন্সে দেশ ও বিদেশে ব্যবহৃত লৌহ ও ইস্পাত পণ্যের বিশ্বব্যাপী বর্তমান পরিস্থিতি ও সম্ভাবনা নিয়ে আলোচনা হবে। এছাড়া স্টিলের কাঁচামালের ব্যয় বৃদ্ধি, সঙ্কট ও সার্বিক অবস্থা, গুণগতমান, বর্তমান টেকসই প্রযুক্তির জাহাজ ভাঙা শিল্প, আধুনিক মার্কেটিং পলিসি নিয়ে দেশি-বিদেশি বিশেষজ্ঞরা মতবিনিময় করবেন। মূল্যবান পেপার উপস্থাপন করবেন।

আন্তর্জাতিক এই কনফারেন্সে বাংলাদেশ, যুক্তরাষ্ট্র, জার্মানি, বেলজিয়াম, ইতালি, ভিয়েতনাম, অস্ট্রেলিয়া, ভারত, অস্ট্রিয়া, তাইওয়ান, চীন, জাপানসহ ৩২টি দেশের প্রতিনিধিরা অংশ নিচ্ছেন। দেশীয় প্রতিষ্ঠানের বাইরে ভারতীয় টাটা গ্রুপ, রাঘব প্রোডাক্টস, জাপানের মিটস্যুই, কোরিয়ার কোবে স্টিল, হোন্দাই স্টিল, জামার্নির এসএমএস গ্রুপ, ইলেক্ট্রোথামসহ নামকরা প্রতিষ্ঠানগুলো ৪২টি স্টলে অংশ নিয়েছে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, চট্টগ্রাম বন্দরের সচিব মো. ওমর ফারুক, বাংলাদেশ শিপ ব্রেকিং এন্ড রিসাইক্লার্স এসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট আবু তাহের, বিএসআরএম গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আমীর আলীহোসাইন, পিএইচপি ফ্যামিলির পরিচালক আলী হোসেন, আমীর হোসেন সোহেল, কেওয়াই স্টিলের সিইও জাবের হোসেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে একুশে পদক পাওয়ায় পিএইচপি ফ্যামিলির চেয়ারম্যান সুফি মোহাম্মদ মিজানুর রহমানকে এবং বিএসআরএম’র ৭০ বছর পূর্তি উপলক্ষে প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান আলীহোসাইন আকবরআলীকে ক্রেস্ট দিয়ে সম্মানিত করা হয়।

 

এক বছরের কাজ একদিনে হচ্ছে

সুফি মোহাম্মদ মিজানুর রহমান

পিএইচপি ফ্যামিলির চেয়ারম্যান

আমরা এখন ‘গ্লোবাল ভিলেজে’ বাস করি। এখানে একজনের সাথে অন্যজনের ভাবের আদান-প্রদান, কাজের আদান-প্রদান দরকার। এই কনফারেন্সে বিভিন্ন দেশের ৪০০ প্রতিনিধি এসেছেন। প্রডিউসার, মেইকার, সাপ্লাইয়ার- সবাই আছেন। আলোচনা করে আমাদের কি প্রয়োজন, ওদের কি প্রয়োজন- তা জানা যাচ্ছে।

আমরা সহজেই এক বছরের কাজ এক দিনে করছি। বাংলাদেশ স্বাধীনতার ৫০ বছর পার করেছে। ৫০ বছর আগে আমরা যা ছিলাম- এখন অনেক উপরে চলে এসেছি। আমাদের উন্নয়ন, অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি নির্ভর করে ইস্পাত ব্যবহারের উপর। ইস্পাতের জন্য বাংলাদেশ উদীয়মান দেশ। তাই আজকের এই কনফারেন্স থেকে আমাদের দেশের ইস্পাত শিল্প সংশ্লিষ্টরা অনেক উপকার পাবেন। ইট ইজ এ গ্রেট কনফারেন্স!

সর্বোচ্চ সুবিধা নেয়া উচিত আমাদের

আলীহোসাইন আকবরআলী

বিএসআরএম গ্রুপের চেয়ারম্যান

নানা সমস্যার কারণে সব সময় সবার কাছে যাওয়া সম্ভব হয় না। কিন্তু কনফারেন্সের কারণে সবাই এখন আমাদের কাছেই চলে এসেছেন। একেবারে আমাদের বাড়িতে। আমার মনে হয় এই সুযোগের সর্বোচ্চ সুবিধাটা নেওয়া উচিত। এখানে মেশিনারিজ সাপ্লাইয়াররা এসেছেন। স্টিল মিল সংশ্লিষ্টরা এসেছেন। আমার মনে হয় এটা আমাদের দেশ এবং আমাদের ইস্পাত শিল্পের জন্য অনেক বড় সুযোগ। আমাদের দেশের ইস্পাত সংশ্লিষ্টরা এই সুযোগ কাজে লাগালে নিজেদের উন্নতি হবে। তাদের ক্রিয়েটিভিটি বাড়বে। এটা আমাদের দেশের জন্য খুবই ভালো। এখানে এতো লোকজন দেখে আমি নিজেই সারপ্রাইজড!

পূর্বকোণ/আর

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট