চট্টগ্রাম সোমবার, ২৮ নভেম্বর, ২০২২

সর্বশেষ:

১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২২ | ৯:০২ অপরাহ্ণ

চকরিয়া-পেকুয়া সংবাদদাতা

চকরিয়ার এমপি জাফর আলমকে স্ত্রী-সন্তানসহ মঙ্গলবার দুদকে তলব

কক্সবাজার-১ আসনের ক্ষমতাসীন দলের সংসদ সদস্য আলহাজ্ জাফর আলম। তিনি চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগেরও সভাপতি। এই দুই পদের অপব্যবহার করে চকরিয়া-পেকুয়া সংসদীয় এলাকায় অবৈধভাবে দখল করছেন সরকারি জমি, জলাশয়, নদী এবং বিক্রি করছেন পাহাড় কেটে মাটিও। এমন সব অভিযোগে মঙ্গলবার (২০ সেপ্টেম্বর) তার পরিবারের সম্পদের হিসাব দিতে এমপিকে স্ত্রী-সন্তানসহ তলব করেছে কক্সবাজারস্থ দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

এর আগে গত ৪ সেপ্টেম্বর এমপি এবং স্ত্রী-সন্তাদের দুদক তলব করলেও রাজনৈতিক সংসদে উপস্থিতির কারণ দেখিয়ে সময় নেন তিনি। ফলে ২০ সেপ্টেম্বর সময় নির্ধারণ করা হয়।

নানা অপকর্ম ও ক্ষমতার অপব্যবহার করে অবৈধভাবে বিপুল পরিমাণ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে এমপি জাফরসহ তাঁর পরিবারের আরও তিন সদস্যের বিরুদ্ধে অবশেষে অনুসন্ধান শুরু করেছে দুদক। সেই অনুসন্ধানের অংশ হিসেবে আলহাজ জাফর আলম এমপি, তাঁর স্ত্রী শিক্ষিকা শাহেদা বেগম, ছেলে ব্যবসায়ী তানভীর আহমদ সিদ্দিকী তুহিন ও মেয়ে আসন্ন জেলা পরিষদ নির্বাচনে সংরক্ষিত আসনে সদস্য প্রার্থী তানিয়া আফরিনকে দুদকে ডাকা হয়।

দুদকের কক্সবাজার কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক রিয়াজ উদ্দিন স্বাক্ষরিত গত ২৪ আগস্টের নোটিশে বলা হয়েছে, এমপি জাফরের স্ত্রী ও উপজেলার পালাকাটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক শাহেদাসহ পরিবারের চারজনের বিরুদ্ধে সরকারি জমি ও জলমহাল দখল, মাদকের কারবার নিয়ন্ত্রণ, চাঁদাবাজি ও অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে বিক্রির মাধ্যমে কোটি কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ বিষয়ে তাঁদের বক্তব্য নেওয়া প্রয়োজন। তাই ৪ সেপ্টেম্বর সময় নিলে ২০ সেপ্টেম্বর বেলা ১১টায় দুদকের কক্সবাজার কার্যালয়ে তাঁদের উপস্থিত থাকার জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে।

ওইদিন একই সঙ্গে তাঁদের জাতীয় পরিচয়পত্র, পাসপোর্ট, আয়কর রিটার্নের কপি, বিভিন্ন ব্যাংকে থাকা হিসাবের বিবরণী, অর্জিত স্থাবর-অস্থাবর সম্পদের ক্রয়-বিক্রয়ের দলিল এবং তাঁদের ওপর নির্ভরশীলদের চাকরি বা ব্যবসা অথবা অন্য উৎস থেকে প্রাপ্ত আয়ের বিবরণীসহ সংশ্নিষ্ট রেকর্ড (নথিপত্র) নিয়ে যাওয়ার জন্য বলা হয়েছে।

দুদক কর্মকর্তা মুনিরুল ইসলাম বলেন, এমপি জাফর ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে বিপুল পরিমাণ অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগের অনুসন্ধানের অংশ হিসেবে তাঁদের ডাকা হয়েছে।

তবে এসব অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ অস্বীকার করে এমপি জাফর আলম সাংবাদিকদের জানান, কিছু বিষয় নিয়ে আমার স্ত্রীর বিরুদ্ধে অনুসন্ধান করছে দুদক। এর পরিপ্রেক্ষিতেই পরিবারের সদস্য হিসেবে আমাকেও নোটিশ দেয়া হয়েছে।

সংস্থাটি চাইলে যে কারও বিরুদ্ধে ওঠা অনিয়মের অভিযোগ অনুসন্ধান করতে পারে। এতে আমি বিচলিত নই; কারণ, আমি এবং আমার পরিবারের কেউ কোনো অপরাধের সঙ্গে জড়িত নয়। অভিযোগগুলো ভিত্তিহীন।

 

পূর্বকোণ/মামুন/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট