চট্টগ্রাম শুক্রবার, ০৭ অক্টোবর, ২০২২

সর্বশেষ:

৬ সেপ্টেম্বর, ২০২২ | ৯:২৩ অপরাহ্ণ

মিনারুল হক, বান্দরবান

বান্দরবানের জুম চাষী তোয় ম্রো পাচ্ছেন বঙ্গবন্ধু কৃষি পুরস্কার

বান্দরবানের চিম্বুক পাহাড় জুড়ে এখন দেখা মেলে শত শত মিশ্র ফলের বাগান। জুমে ফসল উৎপাদন কমে যাওয়ায় পাহাড়িরা এখন জুম চাষ ছেড়ে অনেকেই মিশ্র ফলের বাগানে উৎসাহী হয়ে উঠেছেন। আর এতে চিম্বুক পাহাড়ে বসবাসকারী ম্রো, বম, মারমাসহ পাহাড়ি জনগোষ্ঠীগুলোর জীবনমান পাল্টে গেছে।

এই মিশ্র ফল বাগান গড়তে যিনি উৎসাহ যুগিয়েছেন তিনি হলেন সেখানকারই একজন জুম চাষী। তার নাম তোয় ম্রো। বান্দরবান জেলা শহর থেকে ১৪ কিলোমিটার দূরে চিম্বুক সড়কের পাশ ঘেঁষে বসন্ত পাড়ায় তার ঠিকানা।
পাড়াটি মূল সড়ক থেকে প্রায় এক কিলোমিটার দূরে। এলাকার শতশত জুম চাষীদের যিনি পথ দেখিয়েছেন তিনি হলেন এই তোয় ম্রো। তাকে চিম্বুকের কৃষিবিদও বলেন অনেকে। এ ছাড়া তাকে বাগান মাস্টারও ডাকেন অনেকে। পড়ালেখা করেননি কিন্তু চাষাবাদে বিশেষ করে ফল বাগান নিয়ে অনেক জ্ঞান অর্জন করেছেন। এ কারণেই তার এই নাম। একসময় দুমুঠো খাবার জোগাড় করাও তার পক্ষে কঠিন ছিল। জুম চাষ করে সারা বছরের খাদ্য সংস্থান করা সম্ভব হতো না তার অথচ এখন এই তোয় ম্রো হাজার জুম চাষির অনুপ্রেরণার উৎস।

তার সাফল্যে অনুপ্রাণিত হয়ে চিম্বুক পাহাড়ের অনেকেই এখন জুম ছেড়ে মিশ্র ফলের বাগান গড়ে তুলেছেন। চিম্বুক পাহাড়ের বসন্ত পাড়ায় তার বাগানে শোভা পাচ্ছে ড্রাগন ফল, আপেল কুল, কলা, পেঁপে, আম সফেদাসহ অসংখ্য ফলের বাগান। অনেকেই ভীড় জমান তোয় ম্রোর এই বাগান দেখতে। তারা জানতে চান কিভাবে মিশ্র ফলের বাগান করে এই সাফল্য অর্জন সম্ভব।

তাদের জবাবে তোয় বলে থাকেন, ” মানুষ কখনো নিজের ভাগ্য বদলাতে পারে না, কিন্তু পরিশ্রম করে ভাগ্য বদলানো সম্ভব। যে যতই বাধা দিক কখনোই ঠেকিয়ে রাখতে পারবে না।’

তোয় জানান, ‘২০০৫ সালের দিকে যখন তিনি জুম চাষ করে কঠিন অবস্থায় জীবিকা নির্বাহ করতেন সে সময়ে ওয়ার্ল্ডভিশন থেকে কৃষি প্রশিক্ষণ নিয়ে প্রথম রেড লেডি পেঁপে চাষ করেন। প্রথমেই তিনি রেড লেডি পেঁপে বিক্রি করে তিন লাখ টাকা আয় করেন। পরে তিনি জুম চাষ ছেড়ে দিয়ে বিভিন্ন জাতের ফলের বাগান গড়ে তুলেন। এরপরে আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি তাকে। এখন তিনি চিম্বুক পাহাড়ের এক সফল চাষী। হাজারো চাষীর অনুপ্রেরণা। 

ইতিমধ্যে বেশ কয়েকটি পুরস্কার পেয়েছেন এই তোয় ম‍্রো। এবার তিনি বঙ্গবন্ধু জাতীয় কৃষি পুরস্কারে ভূষিত হচ্ছেন। আগামী তিন অক্টোবর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই পুরস্কার তুলে দিবেন। বঙ্গবন্ধু কৃষি পুরস্কার ট্রাস্টি বোর্ড সেরা কৃষক নির্বাচিত করেছেন। তোয় ম্রো পাবেন একটি স্বর্ণপদক নগদ ১ লক্ষ টাকা ও সনদ। গুণী এই চাষির সাফল্য কামনা করছে দৈনিক পূর্বকোণ।

 

পূর্বকোণ/মিনার/মামুন/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট