চট্টগ্রাম শনিবার, ২৮ জানুয়ারি, ২০২৩

সর্বশেষ:

২৭ আগস্ট, ২০২২ | ১২:০০ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

উদ্ভাবন আর বিজ্ঞানের জয়গানে শেষ হল জুনিয়র সায়েন্স কার্নিভাল

বিজ্ঞান নিয়ে নতুন নতুন সব জ্ঞান, ভবিষ্যতের স্বপ্ন এবং বিভিন্ন প্রজেক্ট প্রদর্শনের মাধ্যমে আট শতাধিক শিক্ষার্থীর স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল ‘জুনিয়র সায়েন্স কার্নিভাল ২০২২’।

শুক্রবার (২৬ আগস্ট) নগরীর চট্টগ্রাম সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে দিনব্যাপী এ কার্নিভাল অনুষ্ঠিত হয়। হোয়াইট বোর্ড সায়েন্স ক্লাব চট্টগ্রামের আয়োজনে অনুষ্ঠানের সহযোগিতায় ছিল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘর এবং চট্টগ্রামের ডিজিজ বায়োলজি এন্ড মলিকুলার এপিডেমিওলজি রিসার্চ গ্রুপ (ডিবিএমই)।

ক্লাবের মডারেটর জনাব সাইফুদ্দিন মুন্নার সভাপতিত্বে উদ্বোধনী পর্বের প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) মিজানুর রহমান। বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. শহীদ উল্লাহ। বক্তব্য রাকেন ইনসাইট অটোমেটার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা শহীদুল আলম রিজভী ও সায়েদ খান সাগর ও আদিল রায়হান।

অনুষ্ঠানে জীববিজ্ঞান, অলিম্পিয়াড, ফিজিক্স-ম্যাথ অলিম্পিয়াড নিয়ে শুরু হয় মূল অনুষ্ঠান। এছাড়াও ৫০টিরও অধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা অংশ নেয় তাদের উদ্ভাবিত নতুন নতুন প্রজেক্ট ডিসপ্লেতে। যাতে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা, কৃষি বিজ্ঞান, জীববিজ্ঞানের নানা জ্ঞান উপস্থাপন করা হয়। পরবর্তীতে উন্মুক্ত আলোচনা ও প্রশ্নোত্তর পর্বের আলোচনায় অংশ নেন গুগলে কর্মরত চট্টগ্রামের ছেলে অনিক সরকার। অনুষ্ঠানে মোট ২১ জন বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার তুলে দেয়া হয়।

সমাপনী অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড বায়োটেকনোলজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. আদনান মান্নানের সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি ছিলেন চমেক হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ডা. এম এ সাত্তার।

বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপপরিচালক ডা. বিদ্যুৎ বড়ুয়া, চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিত বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ড. উজ্জ্বল কুমার দেব, প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের ডিন ড. তৌফিক সায়ীদ, স্মার্ট গ্রুপের ম্যানেজার সাকিব। আরও বক্তব্য রাখেন হোয়াইট বোর্ড সায়েন্স ক্লাবের পরিচালক ও নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক রক্তিম বড়ুয়া এবং কো-অর্ডিনেটর মাহির আজিরাফ।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, তরুণরা যত বেশি বিজ্ঞানমনস্ক হবে, তত বেশি নতুন নতুন আবিষ্কারের সম্ভাবনা বাড়বে। আমাদের দেশের নিজস্ব প্রযুক্তি আর উদ্ভাবন প্রয়োজন এবং একমাত্র বিজ্ঞান চর্চার মাধ্যমেই সেটা সম্ভব। তাই বিজ্ঞান চর্চায় তরুণদের এগিয়ে আসতে হবে।

 

পূর্বকোণ/মামুন/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট