চট্টগ্রাম সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩

২৫ আগস্ট, ২০২২ | ৮:৪৯ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

‘চট্টগ্রাম বন্দরে কাজ দেওয়ার আশ্বাসে সংগঠনের নামে টাকা আত্মসাৎ’

চট্টগ্রাম বন্দরে কাজ পাইয়ে দেওয়ার আশ্বাসে চট্টগ্রাম কোস্টারহেজ ঠিকাদার শ্রমিক ইউনিয়নের নাম ভাঙিয়ে সাধারণ মানুষ থেকে টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে এরশাদুর রহমান চৌধুরী নামে একব্যক্তির বিরুদ্ধে। তবে তিনি এই সংগঠনের কেউ নয় বলে দাবি করেছে সংগঠনটির নেতারা।

তারা বলছে, শুধু অর্থ আত্মসাতই নয়, এরশাদুর রহমান চৌধুরী নিজেকে উপদেষ্টা ও সমন্বয়কারী পরিচয় দিয়ে বেআইনীভাবে বিভিন্ন দপ্তরে পত্র দিয়ে হয়রানি করছে সংগঠনের সবাইকে।

বৃহস্পতিবার (২৫ আগস্ট) বিকেলে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে এসব অভিযোগ করেন চট্টগ্রাম কোস্টারহেজ ঠিকাদার শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মো. আলমগীর হোসেন।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, এরশাদুর রহমান চৌধুরী নামে একব্যক্তি তার কিছু অনুসারিদের নিয়ে আমাদের কর্মরত শ্রমিকদের নানা ধরনের জুলুম-নির্যাতন করছে। শুধু তাই নয়, ইদানিং কোস্টারহেজ ঠিকাদার শ্রমিক ইউনিয়নের নাম ভাঙিয়ে নিজেকে উপদেষ্টা ও সমন্বয়কারী পরিচয় দিয়ে বেআইনীভাবে বিভিন্ন দপ্তরে পত্র দিয়ে আমাদের সংগঠনের সবাইকে হয়রানির করছে। বাঁশখালীসহ বিভিন্ন জেলার নিরীহ শ্রমিকদের কাছ থেকে বহিঃনোঙ্গরে কাজ পাইয়ে দেয়ার কথা বলে লাখ লাখ টাকা আত্মসাৎ করেছে। আর এর জন্য আমাদের সংগঠনের পরিচয় ব্যবহার করেন তিনি।

তবে এরশাদুর রহমান এই সংগঠনের কেউ নয় দাবি করে আলমগীর হোসেন বলেন, তিনি কোনকালে আমাদের সংগঠনের সাথে জড়িত ছিল না। তার এই ধরনের কর্মকাণ্ড বিএনপি জামায়াতের যোগসাজসে বন্দর এলাকায় একটি অস্থিতিশীল পরিস্থি সৃষ্টি ও বহিঃবিশ্বে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করে সরকারকে বেকায়দায় ফেলার একটি সুগভীর ষড়যন্ত্র।

লিখিত বক্তব্যে তিনি আরও বলেন, ভবিষ্যতে কর্মরত শ্রমিকদের বিরুদ্ধে কোন ধরনের ষড়যন্ত্র করা হলে আমরা সংগ্রামের কমসূচি ঘোষণা করে তার দাঁতভাঙ্গা জবাব দেব। আমরা ওই দুর্নীতিবাজ এরশাদুর রহমান চৌধুরীর বিরুদ্ধে অতি দ্রুত আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনের কার্যকরি সভাপতি মো. মহি উদ্দিন কবির, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. জসিম উদ্দিন, যোগাযোগ সম্পাদক মো. জাফর ইকবাল, সহ-অর্থ সম্পাদক মোহাম্মদ উল্লাহ, সমাজ কল্যাণ সম্পাদক মো. লোকমান, কার্যকরি সদস্য মো. আলমগীর হোসেন মোক্তার, মো. ইউসুফ নবী, মো. কাঞ্চন মাঝি, মো. কামাল দোভাষ, মো. জুয়েল উপস্থিত ছিলেন।

পূর্বকোণ/মামুন/এএইচ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট