চট্টগ্রাম সোমবার, ৩০ জানুয়ারি, ২০২৩

২২ আগস্ট, ২০২২ | ১০:১৫ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

সরকার ক্ষমতায় থাকতে মরিয়া হয়ে ওঠেছে : ডা. শাহাদাত

চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির আহবায়ক ডা. শাহাদাত হোসেন বলেছেন, সরকার ক্ষমতায় টিকে থাকতে মরিয়া হয়ে ওঠেছে। এই অবৈধ সরকারের উন্নয়নের ফাঁকা বুলি সব ফাঁস হয়ে গেছে। বিদ্যুৎ খাতে হাজার হাজার কোটি টাকা লুট করে সরকার বিদ্যুতের অনেক গল্প শুনিয়েছিল। এখন বিদ্যুৎ না দিতে পারায় সেই ফাঁকা বুলি মানুষ জেনে গেছে। তাই সরকার এখন ভয় দেখিয়ে গদি রক্ষা করতে চায়। কিন্তু মানুষকে ভয় দেখিয়ে লাভ নেই। এবার এক দফা নিয়ে রাজপথে নেমেছে মানুষ। রাজপথ ফুঁসে উঠেছে। এক দফা দাবি হচ্ছে, এই ফ্যাসিবাদী সরকারের পতন। এ জন্য সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে আন্দোলনে শামিল হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

সোমবার (২২ আগস্ট) বিকেলে নগরীর লালদিঘীর পাড়ে কোতোয়ালি থানা বিএনপির কেন্দ্র ঘোষিত প্রতিবাদ মিছিল পূর্ব সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

জ্বালানি তেল, গণপরিবহনের ভাড়া, নিত্যপণ্যের মূল্যবৃদ্ধিসহ অসহনীয় লোডশেডিং এবং ভোলায় গুলিতে নূরে আলম ও আবদুর রহমানকে হত্যার প্রতিবাদে এই মিছিলের আয়োজন করা হয়।

প্রতিবাদ মিছিল শুরুর আগে কোতোয়ালি থানার বিভিন্ন ওয়ার্ড থেকে বিএনপির নেতা কর্মীরা মিছিল নিয়ে সমাবেশে যোগ দেন। লালদীঘির পাড় থেকে মিছিল শুরু করে বক্সি বিট হয়ে আন্দরকিল্লা মোড়ে এসে সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়।

এসময় জ্বালানি তেলের পাশাপাশি গ্যাস ও বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর প্রক্রিয়া চলছে দাবি করে ডা. শাহাদাত হোসেন বলেন, এই সরকারের সময় ফুরিয়ে এসেছে। তাদের পতন আসন্ন বুঝতে পেরে গণবিরোধী সরকার জনগণের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছে। শুধু জ্বালানি তেলের দাম নয়, গ্যাস ও বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর প্রক্রিয়া চলছে। এমনিতেই নিত্যপণ্যের সীমাহীন মূল্যবৃদ্ধির কারণে মানুষের জীবন বিপন্ন। তার ওপর আরেক দফা জ্বালানি তেলের দাম বাড়ায় মানুষের না খেয়ে মরা ছাড়া কোনো গতি নাই। কিন্তু তাতে লুটেরা সরকারের কিছু যায় আসে না।

কোতোয়ালি থানা বিএনপির সভাপতি মঞ্জুর রহমান চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আলহাজ জাকির হোসেনের পরিচালনায় উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক ইয়াছিন চৌধুরী লিটন, আবদুল মান্নান, আহবায়ক কমিটির সদস্য হারুন জামান, হাজী মো. আলী, গাজী মো. সিরাজ উল্লাহ, মো. কামরুল ইসলাম, মহানগর যুবদলের সভাপতি মোশাররফ হোসেন দিপ্তী, সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ শাহেদ, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি এইচ এম রাশেদ খান, সাধারণ সম্পাদক বেলায়েত হোসেন বুলু, মহানগর বিএনপি নেতা মো. আলী মিটু, হাজী নুরুল আক্তার, আবদুল বাতেন, ইউছুপ শিকদার, কৃষকদলের নাজিমুল হক নাজু, মহানগর ছাত্রদলের আহবায়ক সাইফুল আলম, সদস্য সচিব শরিফুল ইসলাম তুহিন, মৎস্যজীবী দলের আহবায়ক নুরুল হক, থানা বিএনপির সি. সহ-সভাপতি ফরিদ উদ্দিন, ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি আকতার খান প্রমূখ।

 

পূর্বকোণ/মামুন/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট