চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ০২ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩

১৩ আগস্ট, ২০২২ | ১২:০৭ অপরাহ্ণ

সৌমিত্র চক্রবর্তী

নাইট সাফারি পার্ক ও নিরাপত্তা চৌকি স্থাপনে স্থান নির্ধারণ

সীতাকুণ্ডের জঙ্গল সলিমপুরে স্থাপিত হচ্ছে দক্ষিণ এশিয়ার প্রথম নাইট সাফারি পার্ক। গতকাল (শুক্রবার) বিকালে সরকারি কর্মকর্তারা সেখানে সাড়ে তিন ঘণ্টা অবস্থানকালে আলোচিত এই পার্ক ও একটি নিরাপত্তা চৌকির স্থান নির্ধারণ করেন। আগামী এক মাসের মধ্যে এখানে এই সাফারি পার্কসহ প্রাকৃতিক সৌন্দর্য ও পাহাড় অক্ষুণ্ন রেখে সরকারের মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নের কাজ শুরু হবে। এ নিয়ে জঙ্গল সলিমপুরে টানা সপ্তম দিনের মতো অভিযান চালায় জেলা প্রশাসন। তবে এর আগে ৬দিন অভিযান চলে আলীনগর অংশে।

 

গতকাল (শুক্রবার) অভিযান চালানো হয় জঙ্গল সলিমপুরের ছিন্নমূল বস্তি এলাকায়। এদিকে প্রশাসনের অভিযানে ইতিমধ্যে আলীনগর ছাড়তে শুরু করেছে অবৈধ বাসিন্দারা।

 

সহকারী কমিশনার (ভূমি) এর গণবিজ্ঞপ্তি প্রচারের পর সেখান থেকে ২৭টি পরিবার অন্যত্র চলে গেছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, গতকাল টানা ৭ম দিনের মতো সীতাকুণ্ডের দুর্গম জঙ্গল সলিমপুরে অভিযান পরিচালনা করে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন। এদিন বিকাল ৩টা থেকে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা পর্যন্ত সাড়ে তিন ঘণ্টার এই অভিযানে অংশ নেন

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোহাম্মদ নাজমুল আহসান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. শাহাদাত হোসেন, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. আশরাফুল আলম, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. তৌহিদুল ইসলাম, নু এমং মারমা, মিজানুর রহমান, মো. মাসুদ রানা ও অফিসার্স ইনচার্জ আবুল কালাম আজাদ।

এদিন নাইট সাফারি পার্কের জন্য উদ্ধারকৃত ৫৭.৫০ একর জায়গার চারদিকে সীমানা বেস্টনি নির্মাণের কাজ শুরু করে সন্ধ্যা পর্যন্ত ২৫ টি সীমানা পিলার স্থাপন করা হয়। এরপর আলীনগরের প্রবেশমুখে সহকারী কমিশনার (ভূমি) কর্তৃক জারীকৃত গণবিজ্ঞপ্তি সম্বলিত সাইনবোর্ড স্থাপন, জঙ্গল সলিমপুর ও আলীনগরে অবৈধ বসতি নির্মাণ ও অবৈধ পাহাড় কাটা রোধে নিরাপত্তা চৌকি স্থাপনের জন্য ২ টি খাস জায়গা নির্ধারণ করা হয়। এর একটি বায়েজিদ লিংক রোডে হবে জঙ্গল সলিমপুর প্রবেশের মুখে এবং অন্য একটি জঙ্গল সলিমপুর হতে আলীনগর প্রবেশের মুখে। এসব নিরাপত্তা চৌকি সমূহে যৌথ বাহিনীর সদস্যগণ দায়িত্ব পালন করবেন বলে জানা গেছে।

 

অভিযানকালে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো. নাজমুল আহসান বলেন, সরকারের মহাপরিকল্পনার অংশীদার হিসেবে যারা কাজ করতে চায় তাদের সকলকে সাথে নিয়ে, সকল প্রকৃত ভূমিহীন ও গৃহহীনদেরকে পুনর্বাসন করে পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করা হবে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. শাহাদাত হোসেন বলেন, জঙ্গল সলিমপুর ও আলীনগরে জেলা প্রশাসন অব্যাহত ভাবে অভিযান পরিচালনা করছে। বৃহস্পতিবার (গতকাল) সপ্তম দিনের মত অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে। সরকার কর্তৃক গৃহীত মহাপরিকল্পনা খুব দ্রুতই বাস্তবায়নের প্রাথমিক পদক্ষেপ হিসেবে আজকের এই অভিযান।

 

সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. আশরাফুল আলম বলেন, আজ দক্ষিণ এশিয়ার প্রথম নাইট সাফারি পার্কের জন্য ৫৭.৫০ একর জায়গার সীমানা বেস্টনি নির্মাণের কাজ শুরু করা হয়েছে। আগামী এক মাসের মধ্যেই এখানে বাঘ, চিত্রা হরিণ, অজগর সাপ, কুমিরসহ নানা রকম পশু প্রাণী অবমুক্ত করে একটি দৃষ্টি নন্দন সাফারি পার্ক নির্মাণ করা হবে। এছাড়া ব্যবস্থাপনা কমিটির জন্যও একটি জায়গা নির্ধারণ করা হয়েছে। সেখানে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, পরিবেশের কর্মকর্তা ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের অফিস কক্ষ স্থাপন করা হবে। এদিনের অভিযানে জংগল সলিমপুরের রড, সিমেন্ট, বালুর দোকান সমূহ বন্ধ করে দেওয়া হয়।

 

তিনি আরো জানান, অবৈধ বাসিন্দাদের সরে যাবার জন্য গণবিজ্ঞপ্তি প্রচারের পর আলীনগর থেকে ২৭টি পরিবার তাদের স্থাপনা সরিয়ে অন্যত্র চলে গেছে। অবৈধভাবে যারা বসবাস করছেন তারা সরে না গেলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

 

পূর্বকোণ/আর

 

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট