চট্টগ্রাম সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২২

সর্বশেষ:

৯ আগস্ট, ২০২২ | ১২:৩৬ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

আইসিডিতে ডিজেলচালিত সেবার চার্জ বাড়ছে সাড়ে ৪২ শতাংশ

দেশের শতভাগ রপ্তানি পণ্যের পাশাপাশি ৩৮ ধরনের আমদানি পণ্য হ্যান্ডলিং করা ১৯টি বেসরকারি আইসিডিতে ডিজেলচালিত সেবা কাজের চার্জ বাড়ছে সাড়ে ৪২ শতাংশ। গত ৬ আগস্ট জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধির তালিকায় ডিজেলের দাম বাড়ানো হয় সাড়ে ৪২ শতাংশ। ওই বর্ধিত হারের সাথে সামঞ্জস্য রেখেই আইসিডিতে সাড়ে ৪২ শতাংশ চার্জ বাড়ানো ইঙ্গিত দিয়েছে আইসিডিগুলোর মালিকদের সংগঠন বিকডা কর্তৃপক্ষ।

 

তবে ওই চার্জ শুধুমাত্র অফডকে ডিজেল চালিত ইঞ্জিনের ব্যবহার হওয়া সেবার ক্ষেত্রেই বাড়ানো হবে, অন্যান্য ক্ষেত্রে নয়। সেবার চার্জ বাড়বে এমন আগাম নোটিশ ইমেলের মাধ্যমে আইসিডিগুলো তাদের স্টেক হোল্ডারদের জানিয়ে দিচ্ছেন। পড়ে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা বিকডা।

আইসিডিগুলোতে ডিজেল চালিত পাঁচ ধরনের সেবার মধ্যে রয়েছে ইমপোর্ট হ্যান্ডলিং প্যাকেজ চার্জ, এক্সপোর্ট স্টাফিং প্যাকেজ চার্জ, লিফট অন/অফ চার্জ, ভিজিএম চার্জ ও হলেজ চার্জ।

 

সাড়ে ৪২ শতাংশ বাড়িয়ে ২০ ফুট কনটেইনারের জন্য ইমপোর্ট হ্যান্ডলিং প্যাকেজ চার্জ পূর্বে ৯ হাজার ৭৫৪ টাকা থেকে বেড়ে দাঁড়াবে ১৩ হাজার ৮৯৯ টাকা। একই সেবার চার্জ ৪০ ফুট কনটেইনারে ১১ হাজার ২৫৫ টাকা থেকে বেড়ে দাঁড়াবে ১৬ হাজার ৩৮ টাকা।

 

এছাড়া এক্সপোর্ট স্টাফিং প্যাকেজ চার্জ ২০ ফুট কনটেইনারের জন্য ৫ হাজার ৯২ টাকা থেকে সাড়ে ৪২ শতাংশ বাড়িয়ে হবে ৭ হাজার ২৫৬ টাকা। অন্যদিকে ৪০ ফুট কনটেইনারে এই চার্জ ৬ হাজার ৭৯০ টাকা থেকে বেড়ে ৯ হাজার ৬৭৬ টাকা হবে। একইভাবে বর্তমানে নির্ধারিত লিফট অন/অফ চার্জ, ভিজিএম চার্জ ও হলেজ চার্জ সাড়ে ৪২ শতাংশ বাড়ানো হবে।

 

এ প্রসঙ্গে বিকডা’র মহাসচিব রুহুল আমিন সিকদার পূর্বকোণকে বলেন, সরকার ডিজেলের মূলবৃদ্ধির কারণে আমাদের যেসব কাজে ডিজেল চালিত ইক্যুইপমেন্টের ব্যবহার হয় শুধুমাত্র সে সব সেবার মাসুল বৃদ্ধি করার কথা জানানো হচ্ছে। এসব চার্জ ডিজেলের বর্ধিত মূল্যের সাথে সামঞ্জস্য রেখেই বাড়ানো হচ্ছে।

 

তিনি আরো বলেন, আইসিডিতে দৈনিক কনটেইনার ভাড়া কিন্তু বাড়ছে না। ডকুমেন্ট চার্জও বাড়ছে না। এমনকি ট্রাক কাভার্ডভ্যান থেকে শ্রমিকরা যে পণ্য কনটেইনারে লোড করে সেই শ্রমিক চার্জও বাড়ছে না। শুধুমাত্র যেসব কাজে ডিজেলের ব্যবহার হয় ওই সব কাজের চার্জই বাড়ানো হবে।

 

তিনি ব্যাখ্যা দিয়ে বলেন, একটি কাভার্ডভ্যানভর্তি পণ্য অফডকে আসলে সেটি কনটেইনারে ভর্তি করতে ইয়ার্ড থেকে খালি কনটেইনারকে একটি গাড়িতে ক্রেন দিয়ে তুলতে হয়। সেখানে ডিজেলচালিত ক্রেনের ব্যবহারকে লিফট অন চার্জ হিসেবে গণ্য করা হয়। পরবর্তিতে ওই ডিজেলচালিত গাড়িটি খালি কনটেইনার নিয়ে পণ্য ভর্তি করতে সেডে আসে। সেই ডিজেল চালিত গাড়িটি পরিবহন হিসেবে ব্যবহার হয়। তারপর সেখানে আবার ক্রেন দিয়ে কনটেইনারটি নামাতে হয় বা লিফট অফ করতে হয়। সেটিও ডিজেলচালিত ক্রেনের ব্যবহার করেই করতে হয়। এরপর আবার পণ্য ভর্তি করার পর পুনরায় কনটেইনারটি ইয়ার্ডে নিতে ঠিক একই কাজগুলো আবার করতে হয় ডিজেলচালিত ক্রেন ও গাড়ি দিয়ে।

 

এরপর যখন কনটেইনারটি জাহাজীকরণের সময় আসে তখন একটি প্রাইম মুভার বা ট্রেইলরে ওই কনটেইনার লিফট অন করতে হয় ক্রেন দিয়ে। সেই কনটেইনারবাহী ডিজেল চালিত প্রাইম মুভার বা ট্রেলরটি বন্দর পাঠাতে হয়। সেখানে পরিবহন খরচ হিসেবে ডিজেল ব্যয় হয়। এই পুরো প্রক্রিয়াটিকে এক্সপোর্ট স্টাফিং প্যাকেজ চার্জ হিসেবে গণ্য করা হয়। যার প্রতিটি স্টেপে ডিজেল চালিত ইঞ্জিনের ব্যবহার রয়েছে। একইভাবে ইমপোর্টের ক্ষেত্রে এমনকি ভিজিএম বা ওজন মাপতেও ডিজেল চালিত ক্রেন ও গাড়ির ব্যবহার রয়েছে। এর বাইরে এক্সটা মুভমেন্ট করতে হলে সেখানেও ডিজেলচালিত গাড়ি ও ক্রেনের ব্যবহার রয়েছে।

এদিকে জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির ফলে বাড়বে আমদানি ও রপ্তানি খরচ। এতে দেশের ব্যবসার উপর নেতিবাচক প্রভাব পড়বে বলে মন্তব্য করেছেন সংশ্লিষ্টরা। অন্যদিকে জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির দোহাই দিয়ে আইসিডিগুলোর চার্জ বৃদ্ধি করা হলে সেটি হবে একতরফা, বলছে তৈরি পোশাকশিল্প মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ। কারণ নীতিমালা অনুযায়ী নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের গঠিত ট্যারিফ কমিটির সুপারিশ ও নৌপরিহন মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন ছাড়া বেসরকারি অফডকের কোনো চার্জ বৃদ্ধি আইনসঙ্গত হবে না। ট্যারিফ কমিটির অনুমোদন ছাড়া চার্জ বাড়ানোর সুযোগ নেই।

 

 

পূর্বকোণ/আর

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট