চট্টগ্রাম বুধবার, ১৯ জানুয়ারি, ২০২২

৭ আগস্ট, ২০১৯ | ১২:৫১ পূর্বাহ্ণ

এম জাহেদ চৌধুরী, চকরিয়া-পেকুয়া

দুর্ভোগে পেকুয়াবাসী

ফুলতলা-কাজী মার্কেট সড়ক কাদায় একাকার

কক্সবাজার জেলার পেকুয়ায় ঠিকাদারের অবহেলায় মগনামা ইউনিয়নের ফুলতলা-কাজী মার্কেট সড়কের বেহাল দশা এখন। কাদামাটিতে একাকার হয়ে চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে সড়কটি। এতে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে মগনামা ইউনিয়নের পাঁচটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীসহ দক্ষিণ মগনামার অর্ধ লক্ষাধিক বাসিন্দাকে।
সরেজমিনে গত ৪ আগস্ট দেখা যায়, ইউনিয়নের প্রধান সড়কের মুহুরীপাড়া এলাকায় মগনামা উচ্চ বিদ্যালয় ও মধ্যম মগনামা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনের অংশ কাদামাটিতে সয়লাব। এতে দক্ষিণ মগনামার বাসিন্দারা ও আশপাশের অন্তত পাঁচটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা চলাচলে ভোগান্তি পোহাচ্ছেন। এছাড়া সড়কপথে যোগাযোগ ব্যবস্থা ব্যাহত হওয়ার গত এক সপ্তাহ ধরে বন্ধ রয়েছে ইউনিয়নের লবণ পরিবহন। এতে আর্থিক ক্ষতিতে পড়েছেন লবণ চাষীসহ অন্য ব্যবসায়ীরা।
স্থানীয় বাসিন্দারা বলেন, প্রয়োজনীয় অর্থ বরাদ্দ দেয়া সত্ত্বেও শুধুমাত্র ঠিকাদারের অবহেলার কারণে সড়কটির এ দশা সৃষ্টি হয়। এছাড়া সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের যোগসাজশে সড়কের কাজে ঠিকাদার ব্যাপক অনিয়ম দুর্নীতি করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। নি¤œমানের সামগ্রী ব্যবহার করায় সড়ক সংস্কারকাজ বন্ধ করে দিয়েছে স্থানীয় লোকজন।
মগনামা ইউপি চেয়ারম্যান শরাফত উল্লাহ ওয়াসিম বলেন, এলজিইডি কর্মকর্তাদের যোগসাজশে নি¤œমানের সামগ্রী দিয়ে সড়কটি সংস্কার করছিল সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার। স্থানীয় বাসিন্দাদের বাধায় তা করতে না পেরে এখন সংস্কারকাজই বন্ধ রাখা হয়েছে। এতে ইউনিয়নের শতশত মানুষ ভোগান্তিতে পড়েছে। এছাড়া দক্ষিণ মগনামা থেকে লবণ পরিবহনও বন্ধ রয়েছে।
এ ব্যাপারে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের পেকুয়া উপজেলা প্রকৌশলী জাহেদুল আলম বলেন, সড়ক সংস্কারে নি¤œমানের ইট ব্যবহার করায় কাজ বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। নুর বক্স নামের একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের পক্ষে শাহাদাত হোসেন ও নুরুল আবছার এ সংস্কার কাজ বাস্তবায়ন করছিল। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে টেকসইভাবে সড়কের সংস্কারকাজ শেষ করতে তাদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
পেকুয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মাহবুবউল করিম বলেন, সড়কের অবস্থা সম্পর্কে এলজিইআইডিকে জানানো হয়েছে। এ ব্যাপারে তারা দ্রুত ব্যবস্থা নেবে বলে জানিয়েছেন।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 298 People

সম্পর্কিত পোস্ট