চট্টগ্রাম শুক্রবার, ১২ আগস্ট, ২০২২

সর্বশেষ:

৬ আগস্ট, ২০২২ | ৭:৫৭ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

চাকরি প্রার্থী থেকে ৮ লাখ টাকা আদায়, চ.বির তদন্ত কমিটি

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) তিন চাকরি প্রার্থীর কাছ থেকে ৮ লাখ ২০ হাজার টাকা আদায়ের ঘটনায় চার সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে প্রশাসন। আগামী পাঁচ কর্মদিবসের মধ্যে এ কমিটিকে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

শনিবার (৬ আগস্ট) বিকেলে চবির ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার অধ্যাপক এস এম মনিরুল হাসান স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে বিষয়টি জানানো হয়।

তদন্ত কমিটিতে চবির শাহ আমানত হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক নির্মল কুমার সাহাকে আহবায়ক করে সদস্য সচিব করা হয় গোপনীয় শাখার ডেপুটি রেজিস্ট্রার সৈয়দ ফজলুল করিমকে। বাকি দুই সদস্য হলেন- সহকারী প্রক্টর মো. আহসানুল কবীর পলাশ এবং কেন্দ্রীয় স্টোর শাখার ডেপুটি রেজিস্ট্রার রাশেদুল হায়দার জাবেদ।

এ বিষয়ে প্রক্টর ড. রবিউল হাসান ভূঁইয়া বলেন, বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রচারিত গ্রন্থাগার সহকারী গ্রেড-২ পদে কর্মরত মানিক চন্দ্র দাস চাকরি দেওয়ার নামে বিভিন্ন লোকের কাছ থেকে অবৈধভাবে টাকা নেওয়ার খবরটি আমাদের নজরে এসেছে। এ অবস্থায় মানিক চন্দ্র দাসের সম্পৃক্ততা ও সংবাদ-মাধ্যমে প্রকাশিত ঘটনা তদন্ত করে আগামী পাঁচ কর্মদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি চবির তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী পদে নিয়োগ পেতে তিন কর্মচারী থেকে টাকা আদায়ের অডিও ফোনালাপ ফাঁসের পর চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত মানিক চন্দ্র দাস বিভিন্ন সময়ে তিন প্রার্থী থেকে টাকা আদায় ও চাকরি না পেলে টাকা ফেরত দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন বলে জানিয়েছেন ভুক্তভোগীরা। কিন্তু গত কয়েকদিন ধরে সে বিষয়টি মানিক অস্বীকার করলে তাদের ফোনালাপ ও টাকা আদায়ের রশিদ ফাঁস করা হয়।

 

পূর্বকোণ/এএস/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট