চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ০৯ আগস্ট, ২০২২

সর্বশেষ:

৪ জুলাই, ২০২২ | ৫:১৭ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

চট্টগ্রাম বন্দরে এলো নতুন ২টি গ্যান্ট্রি ক্রেন

দেশের প্রধান সমুদ্রবন্দরে দ্রুতগতিতে কন্টেইনার হ্যান্ডলিংয়ের জন্য চীন থেকে আনা হলো নতুন দুইটি কি গ্যান্ট্রি ক্রেন (কিউজিসি)।

সোমবার (৪ জুলাই) বিকেলে জাহাজটি বিশেষ ব্যবস্থায় বন্দরের এনসিটি-৫ জেটিতে ভিড়েছে। জাহাজটিতে এসেছে আরও তিনটি রাবার টায়ার গ্যান্ট্রি (আরটিজি) ক্রেনও।

বন্দর সচিব মো. ওমর ফারুক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ‘বন্দরের নিজস্ব শক্তিশালী টাগবোট কাণ্ডারী ৬, ৮, ১০ ও ১১ এবং মুরিং বোট আজমত জাহাজটি বার্থিংয়ের কাজে সহায়তা করে। এ সময় বন্দর চ্যানেল নৌযান চলাচল সীমিত করা হয়।’

বন্দর সচিব আরও বলেন, ‘চীনে তৈরি নতুন দুইটি কিউজিসি ও তিনটি আরটিজি আনলোড, ফিটিং, ট্রায়াল শেষে যত দ্রুত সম্ভব এগুলো অপারেশনে যাবে। এর আগে গত ৭ মে বন্দরে যুক্ত হওয়া কিউজিসি ও আরটিজি দিয়ে অপারেশন চলছে।’

শনিবার (৭ মে) এসব কনটেইনার হ্যান্ডলিং ইক্যুইপমেন্ট নিয়ে আসা ‘জেন হুয়া ১২’ জাহাজটি দুইটি শক্তিশালী টাগবোটের সহায়তায় বিশেষ ব্যবস্থায় বন্দরের নিউমুরিং কনটেইনার টার্মিনালের ৫ নম্বর বার্থে আনা হয়।

বন্দরের শীর্ষ টার্মিনাল অপারেটর সাইফ পাওয়ারটেকের ক্যাপ্টেন তানভির জানান, এনসিটির জন্য নতুন দুইটি কিউজিসি ও তিনটি আরটিজি এসেছে। এ নিয়ে সিসিটিতে ৪টি, এনসিটিতে ১৪টি কিউজিসি হচ্ছে। এনসিটির ১ নম্বর জেটিতে ২টি, ২-৫ নম্বর জেটিতে ৩টি করে কিউজিসি বসবে। নতুন আরটিজিসহ বন্দরের সিসিটি ও এনসিটিতে আরটিজি হচ্ছে ৪৫টি। আধুনিক হ্যান্ডলিং ইক্যুইপমেন্ট সংযোজনের ফলে বন্দরের সক্ষমতা বাড়বে।

গত ৭ মে ‘জেন হুয়া ১২’ জাহাজে বন্দরে পৌঁছেছিল দুইটি কি গ্যান্ট্রি ক্রেন (কিউজিসি) ও তিনটি রাবার টায়ার গ্যান্ট্রি (আরটিজি)।

চট্টগ্রাম বন্দরের সিসিটিতে প্রথম গ্যান্ট্রি ক্রেন যুক্ত হয় ২০০৫ সালে। এরপর ২০১৭ ও ১৮ সালে গ্যান্ট্রি ক্রেন আনা হয় এনসিটি ২, ৩ ও ৪ নম্বর বার্থের জন্য।

 

 

পূর্বকোণ/পিআর/এসি

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট