চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ০৯ আগস্ট, ২০২২

সর্বশেষ:

৩ জুলাই, ২০২২ | ৬:২৮ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

চট্টগ্রামের পশুর হাটে পাঁচ স্তরের নিরাপত্তা, উড়বে ড্রোন ক্যামেরা

ক্রেতা ও ব্যবসায়ীদের নিরাপত্তায় জোরদার করা হচ্ছে চট্টগ্রামের গরুর বাজারগুলো। এবারও পুলিশি নিয়ন্ত্রণে উড়বে ড্রোন ক্যামেরা, বসানো হয়েছে সার্চওয়ে গেট, ওয়াচ টাওয়ার। ৫টি স্তরের নিরাপত্তায় বাড়ি থেকে পশুর হাট পর্যন্ত কাজ করবে র‌্যাব, পুলিশ ও এপিবিএন সদস্যরা। নগদ টাকা বহনে কোন ধরনের সার্ভিস চার্জ ছাড়াই দেয়া হবে পুলিশি স্কর্ট।

এসব বিষয়ে আগামী ৫ জুলাই নগরীর দামপাড়া পুলিশ লাইন্স সম্মেলন কক্ষে সাংবাদিকদের সঙ্গে বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে।

জানা গেছে, এবার ঈদে ৫টি স্তরে চট্টগ্রামের নিরাপত্তা ব্যবস্থাকে ভাগ করা হচ্ছে। এরমধ্যে রয়েছে যারা কোরবানির পশুর হাটের ব্যবসায়ী ও ক্রেতা তাদের নিরাপত্তা। যাত্রীদের বাসস্ট্যান্ড, রেল স্টেশন ও লঞ্চঘাট এলাকায় নিরাপত্তা নিশ্চিত করা। ঈদ জামাতের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পুলিশ মোতায়েন। পশুর চামড়া ক্রয় বিক্রয় ও পরিবহনে নিরাপত্তা এবং ঈদের আনন্দে পর্যটকরা যেন নিরাপত্তাহীনতায় না থাকেন সেজন্য ঈদ ও ঈদ পরবর্তী সময়ে দর্শণীয় স্থানসহ আবাসিক এলাকার নিরাপত্তা নিশ্চিত করবে পুলিশ।

এদিকে, স্থায়ী ও অস্থায়ী মিলে নগরীর ১১টি পশুর হাটে নিরাপত্তা, বাস স্টেশন, রেল স্টেশন, চার শতাধিক ঈদ জামাতের আয়োজন, ৫৪টি এলাকাভিত্তিক কোরবানীর পশুর চামড়া ক্রয় বিক্রয়ের স্থান, ১৫টি বিনোদন কেন্দ্র এবং ১৪৬টি আবাসিক এলাকায় নিরাপত্তা নিশ্চিত করবে পুলিশ। পশুর হাটগুলোতে সাব-কন্ট্রোল রুম, পুলিশের অস্থায়ী ক্যাম্প, ওয়াচ টাওয়ার, জাল টাকা শনাক্তকরণ বুথ, পশু চিকিৎসার বুথ ও ব্যাংকের বুথ স্থাপন করা হয়েছে। বাস স্ট্যান্ড ও রেল স্টেশনে পুলিশের সাব-স্টেশন ও কন্ট্রোল রুম খোলা হচ্ছে। গুরুত্বপূর্ণ মার্কেট সমূহতে পুলিশ মোতায়েনসহ টহল পুলিশের ব্যবস্থা থাকছে। প্রধান ঈদের জামাত হিসেবে জমিয়াতুল ফালহা মসজিদ এলাকায়ও ব্যাপক নিরাপত্তা জোরদার করবে সিএমপি।

নগরবাসীর সচেতনতা বাড়াতে পুলিশের পক্ষ থেকে বেশকিছু সতর্কতা অবলম্বন করার অনুরোধ জানানো হয়েছে। এরমধ্যে রয়েছে পশুর হাটে ও ঈদযাত্রার সময় অজ্ঞানপার্টি ও মলমপার্টি হতে রক্ষা পেতে লোভে পড়ে অপরিচিতজনদের কাছ থেকে কোন কিছু খেতে নিষেধ করেছে পুলিশ। ইজারাদার ও পশু ব্যবসায়ীদের কাছে আহবান জানিয়েছে পুলিশ- ‘যেন বাজারের বাহিরে রাস্তায়’ কোন পশু না রাখা হয়।

পরিবহন মালিক ও চালকদের প্রতি অনুরোধ করা হয়েছে যাত্রীদের কাছ থেকে যেন অতিরিক্ত ভাড়া আদায় না করা হয়, অতিরিক্ত যাত্রী বহন, অস্থায়ী কাউন্টার স্থাপন, ফিটনেস বিহীন গাড়ি রাস্তায় নামাতে নিষেধ করা হয়েছে। ড্রাইভিং লাইসেন্স ছাড়া কোন চালকের কাছে যেন গাড়ির দায়িত্ব না দেয়া হয়।
এদিকে, পোশাক শ্রমিকদের বেতন বোনাসসহ ওভারটাইম মজুরি পরিশোধে বিজিএমইএ ও বিকেএমইএ যেন সুষ্ঠু পরিস্থিতি বিরাজে ভূমিকা রাখে সেদিকেও নজর দেবে পুলিশ। ঈদের ছুটিতে যাওয়ার আগে বাসার নিরাপত্তা ব্যবস্থায় গ্যাসের চুলা বন্ধ রাখা, ইলেকট্রিক ফ্যান ও সুইচ বন্ধ নিশ্চিত করতে বলা হয়েছে।

শনিবার (৩ জুলাই) সকালে সিএমপি’র জনসংযোগ কর্মকর্তা এডিসি শাহদাৎ হোসেন রাসেল বলেন, গবাদি পশু ক্রয়-বিক্রয়, চামড়া ক্রয়-বিক্রয় ও পরিবহন, জাল নোটের ব্যবহার রোধ এবং পশুহাটের সার্বিক আইনশৃংঙ্খলা নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছে পুলিশ। পাঁচ স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করতেই মাঠে থাকবে পুলিশ। পশুর বাজার কেন্দ্রিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে এবার চট্টগ্রামের সবকটি পশুর হাটে ড্রোন ক্যামেরার ব্যবস্থা করা হবে।

 

পূর্বকোণ/মামুন/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট