চট্টগ্রাম বুধবার, ০৬ জুলাই, ২০২২

সর্বশেষ:

২৪ জুন, ২০২২ | ১২:৪৪ অপরাহ্ণ

নাজিম মুহাম্মদ

সারেগামাপা’র মূলপর্বে চট্টগ্রামের ছেলে শুভ

সাত বছর বয়সেই গুনগুন করে গান গাইতো শিশু শুভ দাশ। গানের প্রতি ছেলের আগ্রহ চোখ এড়াইনি মা আন্না দাশের। সময় পেলেই গানের তালিম দিতেন ছেলেকে। ক্রমে গানের প্রতি ঝুঁকে পড়ে শুভ। সাত বছরের শিশু শুভ দাশের বয়স বর্তমানে ২৯ বছর। এরমধ্যে গানের সাথে জড়িয়ে নিয়েছেন নিজেকে। ছাড়িয়েছেন দেশের সীমানা। জায়গা করে নিয়েছেন কলকাতার জি বাংলা টেলিভিশনের সংগীত প্রতিযোগিতার আসর সারেগামাপা’তে। ৩৬ হাজার প্রতিযোগীকে পেছনে ফেলে সংগীতের বড় মাপের এ আসরে মূল পর্বে গান করছেন শুভ দাশ। এবারের সারেগামাপা’তে বাংলাদেশ থেকে একমাত্র প্রতিযোগী তিনি।

প্রতিযোগিতার ফাঁকে কয়দিনের ছুটিতে দেশে এসেছিলেন শুভ। আগামী ২৮ জুন ফিরে যাবেন কলকাতায়। গত রবিবার কথা হয় শুভ দাশের সাথে। জানালেন সারেগামাপা’র মতো রিয়েলিটি শোতে অংশ নেয়ার লড়াইয়ের নেপথ্যের কথা। শুভ’র বাড়ি সাতকানিয়ার ডলুনদী তীরের এঁওচিয়া। দুই বোন এক ভাই মধ্যে ছোট শুভ প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আইন বিষয়ে স্নাতক পাশ করেছেন। বাবা খোকন কান্তি দাশ ব্যবসায়ী। মা আন্না দাশ গৃহিনী।

 

গানের হাতেখড়ি প্রসঙ্গে জানতে চাইলে শুভ জানান, ছোট বেলা থেকেই আমি নিজে নিজে গাইতাম। ষষ্ট শ্রেণিতে পড়া অবস্থায় মায়ের হাতে গানের হাতে কড়ি। মা আমার গানের প্রথম শিক্ষক। পরবর্তীতে চট্টগ্রামে এসে সদারং উচ্চাঙ্গ সংগীত পরিষদে পণ্ডিত স্বর্ণময় চক্রবর্তীর কাছে গানের তালিম নেন। ২০০৮ সালে মার্কস অল রাউন্ডার গানের প্রতিযোগিতায় চট্টগ্রাম জোনে প্রথম হয়েছিল।

গানে উচ্চতর তালিম নিতে ২০১২ সালে কলকাতায় চলে যান শুভ। সেখানে বিখ্যাত সংগীত পরিচালক গৌতম ঘোষালের কাছে তালিম নেয়া শুরু করেন। এখনো ঘোষালের কাছেই তালিম নিচ্ছেন।

কলকাতা জি বাংলার সারেগামাপা অনুষ্ঠানে অংশ নেয়া প্রসঙ্গে জানতে চাইলে শুভ দাশ জানান, অনলাইনে আবেদন করেছিলাম। রেকর্ড করা একটি গানও পাঠিয়েছিলাম আয়োজকদের কাছে। পরবর্তীতে তারা আমাকে ডাকে। মূল পর্বের আগে তিনটি অডিশন হয়। সেখানে ৩৬ হাজার প্রতিযোগী অংশ নিয়েছিল।

বিপুল সংখ্যক এ প্রতিযোগী থেকে ৩০ জনকে মূল পর্বে নির্বাচিত করা হয়। বর্তমানে ২১ জন প্রতিযোগী রয়েছে। মূল পর্ব থেকে দশজনকে বাছাই করা হবে। এরপর হবে চূড়ান্ত পর্ব। অনুষ্ঠানটিতে বিচারকের দায়িত্ব পালন করছেন বিখ্যাত শিল্পী শ্রীকান্ত আচার্য্য, শান্তুনু মৈত্র, রিচা শর্মা আর মহাগুরু পণ্ডিত অজয় চক্রবর্তীর মতো সংগীতজ্ঞরা।

 

পূর্বকোণ/এএস

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট