চট্টগ্রাম শনিবার, ১৩ আগস্ট, ২০২২

সর্বশেষ:

২৮ মে, ২০২২ | ৮:০৪ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

‘মিথ্যা মামলা’ প্রত্যাহারের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন

চট্টগ্রামে ফটিকছড়ির নানুপুর ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক রাশেদ কামাল হত্যার ঘটনায় উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সদস্য সৈয়দ বাকেরসহ ৩৯ আওয়ামী, যুব ও ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে মামলাকে মিথ্যা দাবি করে তা প্রত্যাহার চেয়ে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে।

গত বৃহস্পতিবার রাতে ফটিকছড়ি সদরের একটি কমিউনিটি আয়োজিত সেন্টারে সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সৈয়দ মোহাম্মদ বাকের।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘রাশেদ কামাল হত্যা মামলায় মূল আসামিদের শনাক্ত না করে আমাকে এবং আমার দলীয় নেতা কর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দেয়া হয়েছে। আমাদের রাজনৈতিক অগ্রযাত্রাকে রুখে দিতে ও আমাকে হেয় প্রতিপন্ন করতে এ মামলায় আমাকে আসামি করা হয়েছে।’

মোহাম্মদ বাকের আরও বলেন, ‘মামলার এজাহারভুক্ত হওয়ার পরপরই তড়িঘড়ি করে ১০-১২ জন নিরপরাধ ব্যক্তিকে পরোয়ানা ছাড়াই আটক করে পুলিশ। আটককৃতদের কাছ থেকে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি নেয়ার জন্য অমানবিক নির্যাতন করা হয়। তাঁদের পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলার ভয় দেখিয়ে পুলিশ জোর করে এ মামলায় আমার বিরুদ্ধে জবানবন্দি নিয়েছে।’

মামলাটি পুনঃতদন্ত করে ন্যায় বিচার নিশ্চিত করার জোর দাবি জানান তিনি ।

এ সময় উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক শাহ আলম সিকদার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আব্দুস সালাম, আওয়ামী লীগ নেতা দিদারুল বশর চৌধুরী, মুজিবুল হক, সামশুল আলম, আব্বাছ উদ্দিন বাদল, দিদারুল আলম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

ফটিকছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো . মাসুদ ইবনে আনোয়ার পুলিশের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘এভাবে সংবাদ সম্মেলন করা আইনবহির্ভূত। আসামিদের কিছু বলার থাকলে আদালতে শরণাপন্ন হওয়ার আহ্বান জানান।

‘উল্লেখ্য, ২০২০ সালের ১১ জুন নানুপুর বাজারে দুর্বৃত্তদের হাতে খুন হন নানুপুর ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক রাশেদ কামাল। ঘটনার পর রাশেদ কামালের মা জাহানারা বেগম বাদী হয়ে সৈয়দ মোহাম্মদ বাকেরকে প্রধান আসামি করে ফটিকছড়ি থানায় একটি হত্যা মামলা করেন ।

 

পূর্বকোণ/মামুন/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট