চট্টগ্রাম সোমবার, ০১ মার্চ, ২০২১

সর্বশেষ:

২৮ জুলাই, ২০১৯ | ২:০৫ পূর্বাহ্ণ

রবীন্দ্রনাথ এখনো বাঙালির প্রেরণার উৎস : অনিন্দ্য বান্যার্জী

বাংলা সাহিত্য ও সংস্কৃতির সামগ্রিকতার প্রতীক রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। তিনি এখনো বাঙালি সাধনার বিষয় ও অনুপ্রেরণার উৎস। আপদে-বিপদে আনন্দ বেদনায় সুখে দুঃখে মননে সৃজনে আন্দোলনে সংগ্রামে রবীন্দ্রনাথ বাঙালির পরম আশ্রয়। তাঁর সান্নিধ্যে রেশমাত্রই যে কোন দেশ অঞ্চল ও সমাজের জন্য আনন্দের ও গর্বের। রবীন্দ্রনাথকে নিয়ে বাঙালি চিরদিন গর্ব করেছে, ভবিষ্যতেও করবে। গতকাল ২৭ জুলাই চট্টগ্রাম থিয়েটার ইনস্টিটিউট হলে সঙ্গীত পরিষদ আয়োজিত রবীন্দ্র স্মরণানুষ্ঠান উদ্বোধন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে চট্টগ্রামস্থ ভারতীয় দূতাবাসের সহকারী হাই কমিশনার অনিন্দ্য ব্যানার্জী উপরোক্ত বক্তব্য রাখেন। পরিষদের সভাপতি মেজর জেনারেল (অব.) আবদুল মতিন‘র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন পরিষদের সম্পাদক তাপস হোড়। অতিথি ছিলেন পশ্চিমবঙ্গ রবীন্দ্র ভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক প্রফেসর ড. মৃগাঙ্ক সরকার। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন রোটারিয়ান মীর নাজমুল আহসান রবিন, সাইফুর রহমান চৌধুরী, অধ্যাপক শ্যামলী বড়–য়া ও এডভোকেট অমিত কুমার দে। অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন অধ্যাপক দেবাশীষ রুদ্র। অনুষ্ঠানে প্রফেসর ড. মৃগাঙ্ক সরকার ও তাঁর সহধর্মিনী রীতা সরকারকে ক্রেস্ট, ফুলের মালা ও উপহার সামগ্রী প্রদান করে পরিষদের পক্ষ থেকে সম্মাননা প্রদান করা হয়। প্রফেসর মৃগাঙ্ক সরকার বলেন, রবীন্দ্র জীবন ও সাহিত্যে বাংলাদেশ একটি গুরুত্বপূর্ণ স্থান জুড়ে আছে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পর পরিষদের ছাত্র-ছাত্রীরা ‘তুমি আদি কবি, কবিগুরু তুমি হে’ শীর্ষক সঙ্গীতানুষ্ঠানে রবীন্দ্র সঙ্গীত পরিবেশন করে। পরিচালনায় ছিলেন পরিষদের শিক্ষক যথাক্রমে প-িত স্বর্ণময় চক্রবর্ত্তী, মনীষা রায়, বনান চক্রবর্ত্তী, জয়প্রকাশ ভট্টাচার্য, অলক ভট্টাচার্য, প্রান্ত আচার্য, ত্রিদীপ বৈদ্য, দীপ্ত দত্ত, পিন্টু ঘোষ প্রমুখ। ছাত্র-ছাত্রীদের পরিবেশনের পর একক রবীন্দ্র সঙ্গীত পরিবেশন করেন প্রফেসর ড. মৃগাঙ্ক সরকার।-বিজ্ঞপ্তি

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 231 People

সম্পর্কিত পোস্ট