চট্টগ্রাম সোমবার, ০১ মার্চ, ২০২১

সর্বশেষ:

২৮ জুলাই, ২০১৯ | ১:১৭ পূর্বাহ্ণ

নিশ্চিত করা হোক ছিন্নমূল শিশুদের সুরক্ষা

শিশুরা জাতির ভবিষ্যৎ। পূর্বপুরুষদের অর্জিত অভিজ্ঞতা এবং তাদের সৃজনশীল প্রতিভা দিয়ে তারা দেশকে আরো সমৃদ্ধ করবে, বিশ্বদরবারে সগৌরবে তুলে ধরবে নিজের দেশকে। কিন্তু এ শিশু কারা? যারা স্যুট-বুট পরে নামিদামি স্কুলে যায় তারা? আসলে শিশু শব্দটার মাঝে আমরা চরম বৈষম্য করে ফেলছি। সমাজে উঁচু তলার লোকদের সন্তানরাই কেবল জাতির ভবিষ্যৎ? ১৬ কোটির বেশি জনসংখ্যার দেশে কত কোমল মতি শিশু পথে প্রান্তরে ছড়িয়ে আছে তার খোঁজ কেউ রাখে না। উপরন্তু তাদের তাদের কাব্যিক নাম দিয়েছি ‘পথশিশু’। আমরা ভুলে যাই এরাও শিশু, কারো না কারো সন্তান। এদেরও রয়েছে প্রতিভাউপযুক্ত পরিবেশ পেলে তারাও দেশের সম্পদ হতে পারে। পৃথিবীর ইতিহাস পর্যালোচনা করলে দেখা যায়, সফল ব্যক্তিদের অনেককে তাদের ছেলে বেলায় পথশিশুর তকমা নিয়ে জীবন পার করতে হয়েছিলো। অথচ তারাই পরবর্তীতে বিশ্বকে চলার পথ দেখিয়েছিল।
একবিংশ শতাব্দীতে ছিন্নমূল শিশুদের বাদ দিয়ে উন্নয়ন সম্ভব না। অসুস্থ ও ঘিঞ্জি পরিবেশে বেড়ে উঠা এ শিশুগুলো অনৈতিক পথে পা বাড়িয়ে হতে পারে দেশ ও সমাজের জন্য বিপজ্জনক। তাই সময় থাকতে এদের সমাজের মূলস্রোত ধারায় যুক্ত করতে হবে। প্রচলিত শিক্ষাপদ্ধতিতে তাদের শিক্ষিত করা না গেলেও বিকল্প উপায়ে তাদের শিক্ষিত ও দক্ষজনশক্তিতে রূপান্তর করতে হবে। তাদের জন্য অবশ্যই কিছু করতে হবে। তাহলেই প্রকৃত উন্নয়ন সম্ভব।

গিয়াস উদ্দীন মুহম্মদ মুন্না
ঢাকা।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 263 People

সম্পর্কিত পোস্ট