চট্টগ্রাম রবিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

২৭ জুলাই, ২০১৯ | ১:৪১ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রতিরোধ দেয়াল নেই, ভেঙ্গে যাচ্ছে পাঠানিয়াগোদা সড়ক

ওয়ার্ড ৪ চান্দগাঁও

এটিই একমাত্র যাতায়াতের সড়ক। এ পথ দিয়ে দৈনিক যাতায়াত করে কয়েক হাজার মানুষ। নগরীর পুরাতন চান্দগাঁও থানার পাঠানিয়াগোধা সড়কটি এলাকার গুরুত্বপূর্ণ সড়ক। সড়কের পাশেই খাল। কিন্তু সড়কে কোনো প্রতিরোধ দেয়াল না থাকায় সড়কের একাংশ ধবসে পড়েছে। সহসা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া না হলে পুরো সড়কটি ভেঙ্গে যাওয়ার আশংকা বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা। এমনিতে এলাকাটি নগরীর অন্যান্য এলাকার চেয়ে নিচু। সামান্য জোয়ারে পানির নিচে ডুবে যায় পুরো এলাকা। তার উপর বর্ষাকালে তো বলার অপেক্ষাই রাখেনা। পানি জমে এমন করুণ ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ সৃষ্টি হয়। এখানে সরকারি-বেসরকারি মিলে প্রায় সাত থেকে আটটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আছে। আর শিক্ষার্থীরা এপথ দিয়ে কষ্ট করে দৈনিক বিদ্যালয়ে যাতায়াত করে। তার উপর একমাত্র চলার রাস্তায় সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার খালের পাড়ে ব্রিজ নির্মাণের ভারী লোহার প্লে­ইট রেখে সড়কটি দখল করে আছে। আবার এমন ভারী লোহার প্লেইট রাখায় যানবাহন চলাচলেও সমস্যা হচ্ছে। এলাকার বাসিন্দারা বলেন, রাস্তাটি আমাদের একমাত্র যাতায়াতের মাধ্যম। যদি এ রাস্তাটি ভেঙ্গে যায় আমরা চরম দুর্ভোগে পড়বো। দীর্ঘদিন ধরে এখানে লোহার ভারি এঙ্গেলগুলো ফেলে রাখা হয়েছে। এমনিতে রাস্তাটি ভেঙ্গে যাচ্ছে তার উপর এগুলোর কারণে রাস্তায় চলাচলে সমস্যা হচ্ছে।
পাঠানিয়াগোদার ব্যবসায়ী সেলিম বলেন, রাস্তাটি এতদিন ভালো ছিল। পাঠানিয়াগোদা ব্রিজটি ভাঙ্গার পর রাস্তা ভাঙ্গা শুরু হয়েছে। রাস্তাটি যেভাবে ভেঙ্গে যাচ্ছে তাতে আগামী কয়েক দিনের মধ্যে পুরো রাস্তা ভেঙ্গে যাওয়ার আংশকা আছে। এতে করে এলাকাবাসী চরম কষ্টের মধ্যে পড়বে।
আরেক ব্যবসায়ী আজিজ ও এয়াকুব বলেন, খালের পার্শ্ববর্তী এলাকায় নুরুল ইসলাম পৌর বালিকা বিদ্যালয়। রাস্তাটি ভেঙ্গে গেলে স্কুলে শিক্ষার্থীদের যাতায়াত বন্ধ হয়ে যাবে। তাই শীঘ্রই খালের পাশে প্রতিরোধ দেয়াল দিয়ে রাস্তাটি পুনরায় ঠিক করলে আমরা এলাকাবাসী উপকৃত হব। এমনিতে রাস্তাটি ভেঙে যাচ্ছে আবার এরমধ্যে রাস্তার উপর ভারী ভারী লোহার পাত রাখায় রাস্তাটি আরো সমস্যা হচ্ছে। এব্যাপারে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের কোন মাথাব্যাথা দেখা যাচ্ছে না। তাছাড়া পাঠানিয়াগোদা সেতুটি বর্ষাকালে ভেঙ্গে ফেলায় এলাকাবাসী চরম দুর্ভোগের মধ্যে পড়েছেন। খালে বিকল্প সেতুও নির্মাণ করা হয়নি। তাই চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে আমাদের। বিশেষ করে জোয়ারের সময় জোয়ারের পানির মধ্যে স্কুলের শিশু ও মহিলাদের ঝুঁকি নিয়ে যাতায়াত করতে হচ্ছে।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 284 People

সম্পর্কিত পোস্ট