চট্টগ্রাম সোমবার, ০১ মার্চ, ২০২১

সর্বশেষ:

২৬ জুলাই, ২০১৯ | ১:৫৮ পূর্বাহ্ণ

শাহজাহান কবির সাজু, পানছড়ি

বৃক্ষপ্রেমিক হালিম

গাছে গাছে সাজিয়ে দিতে চাই পানছড়িকে

পানছড়ি শুক্রবারের প্রতিবেদন

আমি গাছের সাথে মিশে আছি। ঘুম ভাঙলেই ছুটে আসি কলমে গজানো চারাগুলো কি অবস্থায় রয়েছে তা দেখতে। ২০০৬ সাল থেকে মুহূর্তের জন্যও অন্যত্র যেতে পারিনি গাছের মায়ায়। আমার প্রাণের সাথে মিশে আছে গাছ, আর গাছের সাথে মিশে আছি আমি। এভাবেই মনের কথাগুলো জানালেন বৃক্ষ প্রেমিক মো. আবদুল হালিম। তিনি মোহাম্মদপুর গ্রামের মো. এরশাদ আলীর ছেলে। ইতিমধ্যে হালিম পানছড়ির বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, মসজিদ, মন্দির ও গির্জার নামের তালিকা প্রস্তুত করে শুরু করেছেন বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির মিশন। সম্পূর্ণ নিজের অর্থায়নে শুরু করা এই মিশন শেষ না হওয়া পর্যন্ত মনে স্বস্তি ফিরবে না বলেও জানান। তার মহতী উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম ও উপজেলা কৃষি অফিসার মো. আলাউদ্দিন শেখ। লোগাং বাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সীমানা প্রাচীর এলাকায় চারা রোপণ কর্মসূচিতে তারাও অংশ নেন। বিষয়টি সার্বিক তত্ত্বাবধান করছে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর। পানছড়ি বন বিভাগের ফরেস্টার সঞ্জয় হাওলাদার জানান, তার ব্যক্তিগত এই উদ্যোগকে আমরা স্বাগত জানাই। পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা, অর্থনৈতিক চাহিদা, ফলের চাহিদা ও পুষ্টি চাহিদা মেটাতে তার লাগানো গাছগুলো যথেষ্ট সহায়ক হবে। গাউসিয়া নার্সারির স্বত্বাধিকারী হালিম চারা কলম তৈরিসহ বিভিন্ন বিষয়ের ওপর উচ্চতর প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেছে। দীর্ঘবছর ধরে সে বাবা-মাকে সাথে নিয়েই কাজগুলো করছে। বর্তমানে বিভিন্ন জাতের আমসহ প্রায় অর্ধ লক্ষাধিক চারাকলম বাজারজাতের অপেক্ষায় রয়েছে বলে হালিম জানায়।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 304 People

সম্পর্কিত পোস্ট