চট্টগ্রাম শনিবার, ০৬ মার্চ, ২০২১

সর্বশেষ:

২৫ জুলাই, ২০১৯ | ১২:৫২ পূর্বাহ্ণ

মেট্রো চেম্বারের সাথে বেঙ্গল চেম্বার প্রতিনিধির মতবিনিময়

‘ভারত-বাংলাদেশ বাণিজ্য সম্পর্কের উন্নয়ন জরুরি’

বেঙ্গল চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি, কলকাতার প্রতিনিধি উৎপল রায়ের সাথে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির (সিএমমিসসিআই) পরিচালক ও সাধারণ সদস্যদের সাথে ভারত-বাংলাদেশ উভয় দেশের মধ্যে আমদানি/রপ্তানি বাণিজ্য বিষয়ক এক মতবিনিময় সভা গতকাল সিএমসিসিআই কনফারেন্স রুমে অনুষ্ঠিত হয়। এতে উপস্থিত ছিলেন সিএমসিসিআই সহ সভাপতি এ এম মাহবুব চৌধুরী, পরিচালক প্রফেসর জাহাঙ্গীর চৌধুরী, দিদারুল আলম, অজিত কুমার দাশ, বিএসআরএম গ্রুপের জি এম কর্পোরেট এ ফেয়ার্স শোভন এম শাহাবউদ্দিন রাজ, সদস্য মাশউক ইমতিয়াজ, তাজ উদ্দিন, সালেহ আহমেদ, শহীদুল আলম প্রমুখ।
সভায় মেট্রোপলিটন চেম্বারের পক্ষ থেকে পরিচালক ও সদস্যবৃন্দ বাংলাদেশ থেকে রপ্তানিযোগ্য পণ্য ভারতে প্রেরণের ক্ষেত্রে বেশ কিছু অসুবিধার কথা তুলে ধরেন এবং প্রতিবেশী দেশ হিসাবে বাংলাদেশের পণ্য যাতে ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে সহজে বাজার সৃষ্টি করতে পারে তার জন্য বেঙ্গল চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সহযোগিতা কামনা করেন। বেঙ্গল চেম্বারের প্রতিনিধি মি. উৎপল রায় বলেন, বাংলাদেশ ভারত যেহেতু প্রতিবেশী দেশ সেহেতু বাংলাদেশী পণ্য যাতে সহজেই ভারতের বিভিন্ন রাজ্যের বাজারে প্রবেশ করতে পারে তার জন্য বেঙ্গল চেম্বার শতভাগ চেষ্টা অব্যাহত রাখবে। সমগ্র ভারতে বাংলাদেশের পণ্য যাতে সহজে বাজার সৃষ্টি করতে পারে বেঙ্গল চেম্বার সে চেষ্টাই করবেন বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন। উভয় দেশের মধ্যে আমদানি রপ্তানির ক্ষেত্রে শুল্ক এবং অশুল্ক যে সব সমস্যা ছিল তা এখন অনেকাংশেই কমে গেছে বলে তিনি জানান। তিনি আশা প্রকাশ করেন যে, আগামীতে চলতি বছরেই ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে আয়োজিত বাণিজ্য মেলা গুলোতে বাংলাদেশী বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান পণ্যের প্রদর্শনের মাধ্যমে পণ্যের প্রচার ও বিপণনে সুযোগ সৃষ্টি করতে পারে।
সিএমসিসিআই সহ সভাপতি এএম মাহবুব চৌধুরী তার বক্তব্যে বলেন, ভারত বাংলাদেশের প্রতিবেশী বন্ধু দেশ। বাংলাদেশের বর্তমান উন্নয়নের গতিধারা অব্যাহত রাখতে ভারত বাংলাদেশ বাণিজ্য সম্পর্কের উন্নয়ন অতীব জরুরী। তিনি বাংলাদেশী পণ্য বিশেষ করে গার্মেন্টস্ পণ্য ভারতের বাজারে রপ্তানির ক্ষেত্রে বর্তমানে যে সুবিধা অর্জন করছে তা আগামীতে যাতে আরও সহজতর উপায়ে প্রবেশ করতে পারে তার জন্য বেঙ্গল চেম্বারের সহযোগিতা কামনা করেন। তিনি মেট্রোপলিটন চেম্বারের পক্ষ থেকে বেঙ্গল চেম্বারের প্রতিনিধি মি. উৎপল রায়কে পুনরায় ধন্যবাদ জানান।-বিজ্ঞপ্তি

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 179 People

সম্পর্কিত পোস্ট