চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ০৯ মার্চ, ২০২১

সর্বশেষ:

২৪ জুলাই, ২০১৯ | ১:৩০ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

বাজার ইজারা নিয়ে রাস্তা দখল

নগরীর ৩৬ নম্বর গোসাইলডাঙ্গা ওয়ার্ডের ফকিরহাট সড়কের একপাশ দখল করে গড়ে ওঠেছে ভ্রাম্যমাণ হকার মার্কেট। জনগণের দূর্ভোগ লাঘবে ফকিরহাট বাজারের এই সড়কটি ভেঙে চওড়া করা হলেও দখলের কারণে দূর্ভোগ নামেনি। অভিযোগ উঠেছে, রাস্তার একপাশ দখল করে যে দোকান বসানো হয়েছে সেগুলো থেকে টাকা আদায় করছে ফকিরহাট বাজারের ইজারাদার। রাস্তা দখল করে গড়ে ওঠা এসব দোকানগুলোর জন্য চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে এই এলাকার সাধারণ মানুষদের।
সরেজমিনে দেখা যায়, বন্দর থানাধীন ফকিরহাট বাজারের সামনের রাস্তাটির একপাশ দখল করে স্থায়ীভাবে গড়ে তোলা হয়েছে বেশ কয়েকটি দোকান। দোকানগুলোর পিছনে রয়েছে একটি পারিবারিক কবরস্থান। তবে দোকানগুলো কবরস্থানের দেয়াল ঘেঁষে বসানোর কারণে দূর থেকে বুঝার কোন উপায় থাকে না যে, এখানে কোনো কবরস্থান রয়েছে। শুধু তাই নয়, বিমানবন্দর সড়কটিতে যানজট বেশি হলে সিএনজি ট্যাক্সি, প্রাইভেট কার ও মোটর সাইকেলগুলো এই সড়কটি বিকল্প পথ হিসেবে ব্যবহার করে। এতে করে প্রায়শই এ রাস্তায় ছোট-ছোট গাড়ির জট লেগে থাকে। সরু রাস্তাটির একপাশ দখল আর গাড়ির চাপ বেশি থাকায় এ রাস্তায় চলাচল করতে বেশ বেগ পেতে হয় পথচারীদের। সন্ধ্যা নাগাদ গাড়ি আর মানুষের চাপে থমকে যায় সড়কটি।
রাস্তা দখল করে বসা কাপড়ের দোকানদার সোহেল পূর্বকোণকে বলেন, ‘গত এক বছর ধরে এখানে ব্যবসা করছি। এখানে বসতে কবরস্থানের দারোয়ানকে প্রতি মাসে তিন হাজার টাকা করে দিই। এছাড়া প্রতিদিন ১০০ টাকার মত খরচ আছে। আমি আর আরেকজন দোকানদার শুধু দারোয়ানকে মাসিকভিত্তিক টাকা দিই। এখানে বাকি যে দোকানগুলো আছে তারা সবাই দেয় ফকিরহাট বাজারের ইজারাদার খালেক চৌধুরীকে’। াজার ইজারাদার খালেক চৌধুরী পূর্বকোণকে বলেন, ‘দোকানগুলো থেকে যে টাকা নেয়া হয় তা দিয়ে ফকিরহাট মসজিদে কর্মরত ইমাম ও মোয়াজ্জিনদের বেতন দেয়ার পাশাপাশি মসজিদের উন্নয়ন কাজ করি। এছাড়া রাস্তাটি একসময় আমাদের ছিল। আমার বাবা-চাচারা এটা জনসাধারণের জন্য দান করে গেছে। সিটি কর্পোরেশন থেকে বাজার ইজারা নেয়ার সুবাধে এ দোকানগুলো থেকে আমরা টাকা নিই। প্রতি মাসে মসজিদ ও ইমাম-মোয়াজ্জিন বাবদ ৩০ হাজার টাকা খরচ হয়। এই টাকা কোথায় পাবো? তাই রাস্তার পাশে বসা এসব দোকান থেকে টাকা নেয়া হয়’।
বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুকান্ত চক্রবর্তী পূর্বকোণকে বলেন, ‘এ বিষয়টি আমাদের জানা ছিলো না। যদি এমনটা হয় তবে খুব শীঘ্রই এগুলো উচ্ছেদের ব্যবস্থা গ্রহণ করবো’।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 319 People

সম্পর্কিত পোস্ট