চট্টগ্রাম রবিবার, ২২ মে, ২০২২

সর্বশেষ:

২৪ জানুয়ারি, ২০২২ | ১০:২০ অপরাহ্ণ

বান্দরবান সংবাদদাতা

বান্দরবানে পৌর মেয়রসহ সাতজনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা

নারী ও শিশু নির্যাতন মামলায় বান্দরবান পৌরসভার মেয়র মোহাম্মদ ইসলাম বেবীসহ ৭ জনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে।

সোমবার (২৪ জানুয়ারি) জেলা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. সাইফুর রহমান সিদ্দিক এ আদেশ দেন।

বাদীপক্ষের আইনজীবী কাজী মহিতুল হোসেন যত্ন বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

আদালত সূত্রে জানা যায়, নারী নির্যাতন, ভাঙচুর ও লুটপাটের অভিযোগে ২০২১ সালের ২৭ জুন মেয়র মোহাম্মদ ইসলাম বেবী, মাহাবুর রহমান, নাছির উদ্দিন, আশুতোষ দে, শেখ ফরিদ উদ্দিন, মো. মিলনসহ সাতজনকে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন রেহেনা আক্তার নামের এক নারী। দীর্ঘ তদন্ত শেষে উক্ত মামলার প্রেক্ষিতে সোমবার বান্দরবান জেলা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মদ সাইফুর রহমান সিদ্দিক পৌরসভার মেয়র ইসলাম বেবীসহ ৭ জনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন।

এ বিষয়ে মামলার বাদী রেহেনা বেগম বলেন, ‘আমাদের ভাইবোনদের জায়গায় আমাদের পিতা তার মৃত্যুর আগে আমাদেরকে যার যার অংশ ভাগ করে দিয়েছেন কিন্তু মেয়র ক্ষমতা দেখিয়ে আমাদেরকে পুলিশ দিয়ে হয়রানি করেন এবং জোরপূর্বক আমাদের জায়গা দখলের চেষ্টা করেন। আমি এর সুষ্ঠু বিচার চাই।’

মেয়রের একান্ত সহকারী আশুতোষ দে বলেন, ‘রেহেনা আক্তার নামের এক নারী মামলা করেছিলেন। গ্রেপ্তারি পরোয়ানার বিষয়ে তিনি এখনো কিছু জানেন না।

বান্দরবান পৌরসভার মেয়র মোহাম্মদ ইসলাম বেবী সাংবাদিকদের জানান “জমি সংক্রান্ত বিরোধে এটি মিথ্যা মামলা। পার্শ্ববর্তী ব্যক্তিরা আমরা তিনজনের নামীয় বাজার ফান্ডের রেকর্ডীয় জমির দেয়াল ভেঙে জোরপূর্বক জায়গা দখলের সময় আমার ভাইসহ কয়েকজন বাধা দেন। আর কোনো ঝামেলা হয়নি। ওই সময়ে আমি লামায় ছিলাম। গ্রেপ্তারি পরোয়ানার বিষয়টি আমার জানা নেই।

 

পূর্বকোণ/মিনার/মামুন/পারভেজ

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট