চট্টগ্রাম শনিবার, ২৯ জানুয়ারি, ২০২২

সর্বশেষ:

৩০ নভেম্বর, ২০২১ | ১০:৫১ অপরাহ্ণ

সীতাকুণ্ড সংবাদদাতা

প্রেমিকাকে বিষপান করিয়ে হত্যা চেষ্টার অভিযোগ প্রেমিকের

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে প্রেমিকের বাড়ির পাশ থেকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় তিশা (১৭) নামক এক প্রেমিকাকে উদ্ধার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (৩০ নভেম্বর) বিকেলে এ খবর পেয়ে স্বজনরা তাকে উদ্ধার করে চমেক হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করায়। তার অবস্থা আশংকাজনক বলে জানা গেছে। এদিকে ঘটনার পর মেয়েটির পরিবার দাবি করেছে মেয়েটিকে পরিকল্পিতভাবে বিষপান করিয়েছে প্রেমিকের বাড়ির লোকজন। অন্যদিকে পুলিশ বলছে মেয়েটি নিজে বিষপান করেছে বলে ধারণা।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সীতাকুণ্ডের কুমিরা ইউনিয়নের বড় কুমিরা সেরাং বাড়ির ছলি আহমদের কন্যা উচ্চ মাধ্যমিকের শিক্ষার্থী ও স্থানীয় অরবিট প্যাথলজি ল্যাবের কর্মী তিশা আক্তারের সাথে চার বছর ধরে প্রেমের সম্পর্ক চলছিলো একই এলাকার মোহাম্মদ জসীমের ছেলে নিশান (২২) নামক এক যুবকের। মঙ্গলবার বিকেলে তিশাকে ওই প্রেমিকের বাড়ির পাশ থেকে অজ্ঞান অবস্থায় পাওয়া যায়। এসময় মেয়েটির মুখ দিয়ে ফেনা বের হচ্ছিল। এতে সে বিষপানে অসুস্থ হয়ে পড়েছে বলে ধারণা করে চমেক হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়।

ঘটনার পর তিশার ভাই জিসান সাংবাদিকদের জানান, তার বোনের সাথে নিশানের ৪ বছরের প্রেমের সম্পর্ক। বিষয়টি দুই পরিবারই জানত। মঙ্গলবার বিকালে তিশাকে তার প্রেমিক নিশান নিজ বাড়িতে ডেকে নেয়। কিন্তু এরপরই আমরা খবর পাই যে তাদের বাড়ির পেছনের একটি বাগানে তিশা অজ্ঞান অবস্থায় পড়ে আছে।

তিনি বলেন, আমরা ধারণা করছি পরিকল্পিতভাবে আমার বোনকে হত্যা করতে তারা তাকে বিষ খাইয়ে অজ্ঞান অবস্থায় ফেলে রেখেছিলো। পরে আমরা তাকে চমেক হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করাই।

সীতাকুণ্ডের কুমিরার ইউপি চেয়ারম্যান মো. মোর্শেদুল আলম চৌধুরী জানান, আমি যতটুকু জেনেছি মেয়েটি তার প্রেমিকের বাড়িতে যায়। সেখানে প্রেমিক ও তার বাবা মেয়েটিকে অপমান করায় সে নিজেই বিষপান করেছে। পরে তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

সীতাকুণ্ড থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) সুমন বণিক বলেন, চার বছরের প্রেমের সম্পর্ক থাকার পরও প্রেমিক এখন তার সাথে সম্পর্ক রাখতে না চাওয়ায় মেয়েটি রাগে ক্ষোভে বিষপান করেছে বলে শুনেছি। তবে সে এখন চিকিৎসাধীন থাকায় আমরা বিস্তারিত জানি না। কিছুটা সুস্থ হলে প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে।

 

পূর্বকোণ/সৌমিত্র/মামুন/পারভেজ

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 382 People

সম্পর্কিত পোস্ট