চট্টগ্রাম সোমবার, ১৪ অক্টোবর, ২০১৯

সর্বশেষ:

১৮ জুলাই, ২০১৯ | ১:৪৯ এএম

ডেইজী মউদুদ

এমনই বরষা ছিল সেদিন

সিইউ ফ্রেন্ডস এর বর্ষার গান কবিতা আর কথামালায় গতকাল মুখর ছিল টিআইসি অঙ্গন। পেছন থেকে হঠাৎ একজন জানতে চায়, আপু আপনি কোন ব্যাচ? বললাম ১৫তম। জিজ্ঞেস করলাম,তুমি? বললো আমি ২৩ তম। পাশের জন বলে, আপু, আমি ২৬তম ব্যাচ। আহারে একজন ৮ বছরের ছোট, আরেকজন ১৫ বছরের ছোট! এমনি করে নানান বয়সের নানা বিভাগের শিক্ষার্থীদের পদচারণায় গতকাল বিকালে মুহূর্তেই মুখর হয়ে উঠে নগরীর টিআইসি চত্ত্বর। বিকাল ৫টা না বাজতেই নীল বসনা নারী আর নীল ফতুয়া আর পাঞ্জাবি পড়া স্ইিউ ফ্রে-সদের আগমনে নগরীর টিআইসি অঙ্গনে যেন সিইউর প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের হাট বসে। নানা বর্ষের, নানা বিভাগের এবং নানা বয়সের নারীপুরুষের কলকাকলি, পাখির ডানা ঝাপটানোর শব্দের মতো, চবি ক্যাম্পাসে ফেলে আসা দিনগুলো যেন ভেসে উঠে সকলের হৃদয়ের মনিকোটায়। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি বিশিষ্ট ভাষাবিজ্ঞানী ড. প্রফেসর মনিরুজ্জমান এসে পৌঁছালে পরিবেশ অন্যরকম ব্যঞ্জনা পায়। অতিথিকে পেয়ে সিইউর প্রাক্তনীরা আনন্দে আত্মহারা হয়ে পড়ে। শুরু হয় ফটো সেশন। পর্বে পর্বে , বিভিন্ন পোজে, বিভিন্ন গ্রুপে। অনুষ্ঠানটির মূল আয়োজক ফেসবুক ভিত্তিক সংগঠন স্ইিউ ফ্রে-স । এর কর্ণধার সারোয়ার হোসেন আজিজ। তারই ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় আজ সিইউ ফ্রেন্ডসরা এক কাতারে সামিল হয়েছে। শুরুতেই স্বাগত বক্তব্যে

অত্যন্ত বিনয়ের সাথে আজিজ সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে অনুষ্ঠানের সূচনা করেন। বলেন, আমরা আজ বলবোনা, অতিথিদের কাছ থেকে শুনবো। আরেকজন আয়োজক যিনি সর্বক্ষণ সিইউ ফ্রে-সদের গান শুনিয়ে মন্ত্রমুগ্ধ করে রাখেন , তিনি ও কথামালায় অংশনেন। বর্ষা বন্দনা করেন অধ্যাপক মাহবুবুল হক। তিনি বাংলাসাহিত্যে বর্ষার সূচনা বলতে গিয়ে মহাকবি কালিদাশ, তার মেঘদূত ও যক্ষপ্রিয়ার বিরহের কাহিনী বর্ণনা করেন।আর ড. মনিরুজজ্জামান বর্ষাঋতুর সাথে রবীন্দ্রনাথের সম্পর্ক, রবীন্দ্রসাহিত্য, রবীন্দ্রনাথের গান আর কবিতার চরণ অত্যন্ত চমৎকার ভাষায় উপস্থাপন করেন।
শুরুতেই সদ্য প্রয়াত চাকসু সম্পাদক মৃণাল কসুম বড়য়া আর শান্তনু বিশ^াসের অকাল প্রয়াণে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। শান্তনু বিশ^াসের স্মৃতি নিয়ে এজাজ ইউসুফীর এলিজি পাঠ করেন অঞ্জন নন্দী আর মৃনাল বড়–য়াকে নিয়ে কবিতা পাঠ করেন রঞ্জন বণিক।
বর্ষার কবিতা আবৃত্তি করেন আলেক্স আলীম, আইভি হাসান, নাজনীন কাউসার চৌধুরী,কংকন দাশ, সাবিরা সুলতানা বীণাসহ আরো অনেকে। আর গান গেয়ে শোনান শিল্পী শাহরিয়ার খালেদ, মোরশেদা কলি, নুরুন্নবী ইমরান গোলাম কিবরিয়া প্রমুখ। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিশিষ্ট লেখিকা রুনু বিলকিস। উপস্থাপনায় ছিলেন বেতারের সংবাদ পাঠক শাহিদুর রহমান , সংবাদ পাঠিকা জামিলা রহমান , রুহু রোহেল ও বিভা ইন্দু।
গান আড্্ডা , স্মৃতিচারণ আর কথামালায় শেষ হয় সিইউ ফ্রে-সদের বর্ষাবরণ অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানে প্রবেশকালে আমার কেবল মনে পড়ছিল আমাদের বন্ধু শেলীর গাওয়া আমাদের সেই প্রিয় গানটি ঃ ‘ এমনই বরষা ছিল সেদিন/ শিয়রে প্রদীপ ছিল মলিন/ তব হাতে ছিল অলস বীণ / মনে কি পড়ে প্রিয়?

The Post Viewed By: 128 People

সম্পর্কিত পোস্ট