চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর, ২০১৯

সর্বশেষ:

১১ জুলাই, ২০১৯ | ১:৪৩ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব সংবাদদাতা, লোহাগাড়া

ঝুঁকি নিয়ে যানবাহন চলাচল

সড়কজুড়ে খানা-খন্দ লোহাগাড়ায়

টানা বর্ষণে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের লোহাগাড়ার ২৫ কিলোমিটার জুড়েই অসংখ্য ছোট-বড় গর্ত সৃষ্টি হয়েছে। এতে ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে যানবাহন।
বৃষ্টি হলেই সড়কে পানি জমার কারণে একাধিক স্থানে ছোট-বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। এ কারণে সড়কের পাশ দিয়ে চলাচল করতে গিয়ে যানবাহনের চাকা থেকে ছিটকে কাদাযুক্ত পানিতে জামাকাপড় নষ্ট হচ্ছে পথচারীর। পর্যটননগরী কক্সবাজারে প্রতিদিন দেশ-বিদেশের হাজারো পর্যটকের আগমন হওয়ায় এ মহাসড়কটি গুরুত্বপূর্ণ হলেও বছরের বেশির ভাগই দেখা যায় সড়কের বেহাল দশা। বছরে একাধিক স্থানে নামমাত্র সংস্কার হলেও নি¤œমানের কাজ হওয়ায় বেশিদিন টেকে না সড়কটি, এমন অভিযোগ এলাকাবাসীর।
বর্তমানে মহাসড়কে লোহাগাড়ার ঠাকুরদীঘি, পদুয়া, রাজঘাটা, পুরান বিওসি, বটতলী মোটর স্টেশন, আধুনগর খান হাট, চুনতি ডেপুটি বাজার, চুনতি ফরেস্ট অফিসসহ বিভিন্ন এলাকায় শত শত গর্ত সৃষ্টি হয়েছে। যাত্রী, পথচারী, যানবাহনের চালকরা গুরুত্বপূর্ণ এ মহাসড়কটিতে চরম হতাশা ও উদ্বেগের মধ্য দিয়ে চলাচল করছেন।
সড়কে খানাখন্দে ভরে যাওয়ায় প্রতিদিন সড়ক দুর্ঘটনায় পতিত হচ্ছে যানবাহনগুলো। এতে অকালে ঝরে যাচ্ছে অনেক তাজা প্রাণ। পঙ্গুত্ব বরণ করছে অনেকেই।
লোহাগাড়া সদরের আলমগীর হোসেন জানান, মহাসড়কে এতগুলো গর্ত, দেখে মনে হয় এসব দেখভালে কোনো কর্তৃপক্ষ নেই। একটু বৃষ্টি হলেই অবর্ণনীয় দুর্ভোগ পোহাতে হয়। ধূলাবালি আর কাদাপানিতে জামাকাপড় নষ্ট হয়ে যায় ও গর্তে পড়ে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে গাড়িও।
পদুয়ার খানে আলম জানান, প্রতি বছর চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের একাধিক স্থান সংস্কারের নামে সরকারের যে বিপুল পরিমাণ টাকা ব্যয় হচ্ছে তার সুফল জনগণ ভোগ করছে কিনা কর্তৃপক্ষের জানা দরকার।
বাসচালক আমির হোসেন জানান, সামান্য বৃষ্টি হলেই মহাসড়কে ছোট-বড় অসংখ্য গর্ত সৃষ্টি হয়ে যায়। বৃষ্টির পানি জমে থাকলে গর্তগুলো দেখা বা বোঝা যায় না। এতে যানবাহন চলাচলে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। এছাড়াও গর্তে পড়ে যানবাহনের অনেক যন্ত্রাংশের ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে।
এ ব্যাপারে দোহাজারী সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী জাহিদ হোসেন জানান, মহাসড়কে গর্ত সৃষ্টি হওয়ার ব্যাপারে তিনি অবগত আছেন। বৃষ্টি থামলে গর্তগুলো সংস্কার করা হবে।

The Post Viewed By: 146 People

সম্পর্কিত পোস্ট