চট্টগ্রাম শনিবার, ১৬ অক্টোবর, ২০২১

১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১ | ১:১১ অপরাহ্ণ

ইমরান বিন ছবুর

৫১৯টি পদের মধ্যে শূন্য পদ ১৯৪টি

সিডিএ : শীঘ্রই নিয়োগ জট খুলছে!

চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (সিডিএ) প্রতিষ্ঠার পর থেকে কাজের পরিধি বাড়লেও, জনবল বাড়েনি। মামলা জটিলতায় গত এক যুগেও কোন জনবল নিয়োগ দিতে পারেনি এই সংস্থা। জনবল সংকটে দায়িত্বপালনে নিয়মিত হিমশিম খেতে হচ্ছে সিডিএ’র কর্মকর্তা-কর্মচারীদের। তবে প্রায় ছয় মাস আগে মামলা নিষ্পত্তি হলেও নিয়োগ পক্রিয়ায় উল্লেখযোগ্য কোন অগ্রগতি না হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন) মো. হেমায়েত হোসেন। আগামী ১০ দিনের মধ্যে জনবল নিয়োগের বিষয়টি মন্ত্রণালয়ের প্রশাসনিক অনুমোদনের জন্য চিঠি দেয়ার নির্দেশও দেন তিনি। এছাড়াও তিনি সিডিএকে বেশকিছু নির্দেশনা দেন।
গতকাল সিডিএ’র সম্মেলন কক্ষে এক সভায় তিনি এসব কথা জানান বলে সিডিএ’র একাধিক কর্মকর্তা নিশ্চিত করেছেন।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সিডিএ’র একাধিক কর্মকর্তা জানান, ‘সিডিএ’র জনবল নিয়োগের উপর আদালতের যে নিষেধাজ্ঞা ছিল, প্রায় ছয় মাস আগে আদালত তা খারিজ করে দিয়েছেন। জনবল নিয়োগের জন্য আদালত সিডিএ’র পক্ষে রায় দিয়েছেন। কিন্তু এই ছয় মাস জনবল নিয়োগের জন্য কেন সিডিএ কোন কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি, তা নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন) মো. হেমায়েত হোসেন। জনবল নিয়োগের জন্য কোন উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়নি কেন এবং এই ছয় মাস নিয়োগ কার্যক্রমের জন্য সিডিএ কী করেছে তা জানতে চাইলে কর্তৃপক্ষ কোন সদুত্তর দিতে পারেনি।’ সভায় থাকা সিডিএ’র এক কর্মকর্তা বলেন, ১৮৮৪ সালের অর্গানোগ্রাম (জনবল কাঠামো) দিয়ে এখনো সিডিএ চলছে। বর্তমানে সিডিএ’র কার্যক্রম ও কাজের পরিধি বাড়লেও লোকবল কমেছে। অর্গানোগ্রাম পরিবর্তন করার জন্য সিডিএ’র পক্ষ থেকে একাধিকবার উদ্যোগ গ্রহণ করা হলেও কোন এক অজ্ঞাত কারণে নতুন অর্গানোগ্রাম আলোর মুখ দেখেনি। এর পিছনে সিডিএ’র কিছু ‘অসাধু কর্মকর্তা’ জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে। রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ, খুলনা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ ও রাজশাহী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ অর্গানোগ্রাম পরিবর্তন করেছে। প্রয়োজন অনুযায়ী লোকবল নিয়োগ দিয়েছে। কিন্তু সিডিএ পুরাতন অর্গানোগ্রাম দিয়ে চলছে এবং প্রয়োজন অনুযায়ী জনবল নিয়োগ দিতে পারছে না।
অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন) মো. হেমায়েত হোসেন আগামী ১০ দিনের মধ্যে জনবল নিয়োগের বিষয়টি মন্ত্রণালয়ের প্রশাসনিক অনুমোদনের জন্য চিঠি দিয়ে জানাতে বলেছেন। যেহেতু দীর্ঘদিন ধরে নিয়োগ কমিটি অকার্যকর অবস্থায় ছিল, তাই বর্তমান জনবল নিয়োগ কমিটিকে নতুন করে সাজানোর নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। সেই সাথে আগামী সাতদিনের মধ্যে অর্গানোগ্রাম এবং সিডিএ বিধিমালা তৈরির জন্য কনসালটেন্ট নিয়োগের জন্য নির্দেশ দেন অতিরিক্ত সচিব।
সভা সম্পর্কে জানতে চাইলে সিডিএ’র সচিব আনোয়ার পাশা বলেন, মিটিং বেশকিছু বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে। কিন্তু এটা আমাদের অভ্যন্তরীণ সভা। এটা নিয়ে কিছু বলা যাবে না। মামলা জটিলতায় দীর্ঘদিন সিডিএতে নিয়োগ বন্ধ ছিল। জটিলতা কাটিয়ে নিয়োগ পক্রিয়া চালু করার জন্য আমরা কাজ করছি।
সিডিএ’র সূত্র থেকে জানা যায়, সিডিএ’র সর্বশেষ অর্গানোগ্রাম (জনবল কাঠামো) অনুযায়ী সিডিএতে ৫১৯ জন জনবল রয়েছে। তবে বর্তমানে মোট ১৯৪টি পদ শূন্য রয়েছে। এরমধ্যে প্রথম শ্রেণির ৫৮টি পদের মধ্যে ১৮টি, দ্বিতীয় শ্রেণিতে ৪৭টি পদের মধ্যে ১০টি, তৃতীয় শ্রেণিতে ১৪১টি পদের মধ্যে ৬৪টি এবং চতুর্থ শ্রেণিতে ২৭৩টি পদের মধ্যে ১০২টি পদ শূন্য রয়েছে।

 

পূর্বকোণ/এসি

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 291 People

সম্পর্কিত পোস্ট