চট্টগ্রাম শুক্রবার, ২২ অক্টোবর, ২০২১

১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১ | ১১:৩৫ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক 

জটিলতা কেটেছে নির্মাণের

বন্দর কর্তৃপক্ষের অনুমতি না পাওয়ায় এই অংশে নির্মাণ কাজ শুরু করতে পারেনি চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (সিডিএ)। বারিক বিল্ডিং থেকে কাস্টমস পর্যন্ত ১ দশমিক ৭ কিলোমিটার অংশে ৪১টি পিলার নির্মাণ করা হবে। গত বৃহস্পতিবার বন্দর ভবনে সিডিএ ও বন্দরের শীর্ষ কর্মকর্তাদের বৈঠকে এসব বিষয়ে সিন্ধান্ত হয়। অন্যদিকে, গতকাল গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন) মো. হেমায়েত হোসেন এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে পরিদর্শন করেন। পরিদর্শন শেষে তিনি কাজের অগ্রগতি নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন বলে দাবি সিডিএ’র প্রকল্প পরিচালকের। এছাড়াও, অতিরিক্ত সচিব সিডিএ’র চলমান বিভিন্ন প্রকল্প পরিদর্শন করেন।

জানতে চাইলে সিডিএ’র প্রকল্প পরিচালক মাহফুজুর রহমান বলেন, বারিক বিল্ডিং থেকে কাস্টমস পর্যন্ত বন্দরের অনুমতি না পাওয়ায় আমরা কাজ শুরু করতে পারিনি। বারিক বিল্ডিং থেকে কাস্টমস পর্যন্ত মোট তিনটি গেট রয়েছে। কাজ করার সময় গেটগুলো কোন অবস্থায় থাকবে, এসব নিয়ে কিছুটা জটিলতা ছিল। গত বৃহস্পতিবার এসব জটিলতা নিয়ে বন্দরের সাথে আমাদের মিটিং হয়েছে।

অবশেষে বন্দর আমাদের বারিক বিল্ডিং থেকে কাস্টমস পর্যন্ত কাজ করার অনুমতি দিয়েছে। তিনি আরো বলেন, বারিক বিল্ডিং থেকে কাস্টম পর্যন্ত ১ দশমিক ৭ কিলোমিটার অংশে আমাদের এলাইনমেন্টে ৪১টি পিলার ছিল। এলাইনমেন্ট অনুযায়ী বন্দর আমাদের ৪১টি পিলার করার অনুমতি দিয়েছে। নির্মাণ কাজের জন্য আমরা রাস্তা প্রশস্ত করেছি। বৈদ্যুতিক খুঁটি সরানো হলে আমরা কাজ শুরু করবো। বিদ্যুৎ বিভাগের সাথেও আমাদের কথা হয়েছে। আগামী ২৪ তারিখের মধ্যে তারা বৈদ্যুতিক খুঁটি সরাবে বলে আমাদের আশ্বাস দিয়েছেন। খুঁটি সরালেই আমরা নির্মাণ কাজ শুরু করবো।

সিডিএ’র প্রধান প্রকৌশলী কাজী হাসান বিন শামস বলেন, বন্দর ভবনে গত বৃহস্পতিবারের বৈঠকে বেশ কিছু সিদ্ধান্ত হয়েছে। এখন বারিক বিল্ডিং থেকে কাস্টমস পর্যন্ত ফ্লাইওভার নির্মাণে বন্দরের কোন আপত্তি নেই। ফ্লাইওভার নির্মাণে বন্দর ভবনের সামনের ফোয়ারাটি ভাঙা হবে এবং এই ফোয়ারাটি সিডিএ নির্মাণ করে দেবে। উল্লেখ্য, বিমানবন্দর কেন্দ্রিক যানজট নিরসনে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (সিডিএ) এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণের উদ্যোগ গ্রহণ করে। তিন হাজার ২৫০ কোটি ৮৩ লাখ টাকা ব্যয়ে লালখান বাজার থেকে বিমানবন্দর পর্যন্ত এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণ প্রকল্পটি ২০১৭ সালের ১১ জুলাই একনেকে অনুমোদন পায়। ২০১৯ বছরের ফেব্রুয়ারিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের নির্মাণ কাজ উদ্বোধন করেন।

পূর্বকোণ/এএ

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 1087 People

সম্পর্কিত পোস্ট