চট্টগ্রাম রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১

১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১ | ১২:৫০ অপরাহ্ণ

মোহাম্মদ আলী

উদ্বোধনের অপেক্ষায় দুই টিটিসি

চট্টগ্রামে নতুন দুইটি কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র (টিটিসি) উদ্বোধন হতে যাচ্ছে। রাউজান ও দীপাঞ্চল  সন্দ্বীপে এ দুইটি টিটিসি’র নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে। গণপূর্ত অধিদপ্তর থেকে বুঝে নেওয়ার পর এগুলো আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধনের দিনক্ষণ চূড়ান্ত করা হবে। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, দেশে-বিদেশে দক্ষ জনশক্তির কর্মসংস্থানের জন্য চট্টগ্রামে ৬টি কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র (টিটিসি) নির্মাণ করছে সরকার।

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের অধীনে জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরো নিয়ন্ত্রাধীন এসব কেন্দ্র তৈরি হচ্ছে। এরমধ্যে রাউজান ও সন্দ্বীপে নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে। এগুলোতে ২০২২ সাল থেকে শিক্ষার্থী ভর্তির কার্যক্রম শুরু করা হবে।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিস, চট্টগ্রামের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ জহিরুল আলম মজুমদার দৈনিক পূর্বকোণকে বলেন, ‘রাউজান ও স›দ্বীপে টিটিসি নির্মাণকাজ শেষ হয়েছে। এগুলো গণপূর্ত অধিদপ্তর খুব সহসা আমাদের কাছে হস্তান্তর করবে। এরপর এগুলো আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধনের পর শিক্ষার্থী ভর্তির কার্যক্রম শুরু করা হবে।’ মোহাম্মদ জহিরুল আলম মজুমদার বলেন, ‘চট্টগ্রামের ৬ উপজেলা টিটিসি নির্মাণের কাজ চলছে। অবশিষ্ট ৮ উপজেলায়ও কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র (টিটিসি) নির্মাণ করা হবে। মুজিববর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে সারাদেশে আরো ১০০টি টিটিসি নির্মাণ করা হচ্ছে। এর আওতায় চট্টগ্রামের অন্য উপজেলাগুলোতেও টিটিসি নির্মাণ করা হবে।’

তিনি বলেন, ‘দেশে-বিদেশে দক্ষ জনশক্তির চাহিদা মেঠাতে এসব টিটিসি নির্মাণ করা হচ্ছে। যাতে স্বল্প, মধ্যম ও দীর্ঘ মেয়াদি প্রশিক্ষণ নিয়ে শিক্ষার্থীরা উপকৃত হতে পারে। তাতে বাড়বে দেশের রেমিট্যান্স প্রবাহও।’
সূত্র জানায়, আন্তর্জাতিক বাজারে জনশক্তি রপ্তানিতে ঠিকে থাকতে এবং দেশে মানসম্পন্ন লোকবল তৈরি করতে সরকার সারাদেশে উপজেলা পর্যায়ে ৪০টি কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র (টিটিসি) নির্মাণের একটি প্রকল্প গ্রহণ করে। এরমধ্যে চট্টগ্রাম জেলায় রয়েছে ২টি। উপজেলাগুলো হচ্ছে, রাউজান ও সন্দ্বীপ। এগুলোর নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে। এছাড়াও হাটহাজারী, ফটিকছড়ি, মিরসরাই ও পটিয়ায় আরো ৪টি টিটিসি নির্মাণ করা হবে। ইতোমধ্যে মিরসরাই ছাড়া অন্য তিনটি উপজেলার ভূমি নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে।

এর আগে জেলা পর্যায়ে ১টি এবং বিভাগীয় পর্যায়ে মহিলা কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র হিসেবে চট্টগ্রামে আরো ২টি টিটিসি স্থাপন করা হয়। উপজেলা পর্যায়ে প্রতিটি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র নির্মাণে সরকারের ব্যয় হচ্ছে ২৫ থেকে ৪০ কোটি টাকা। ৬টির জন্য ব্যয় হচ্ছে ১৮০ কোটি টাকা। প্রত্যেকটি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র দেড় একর জমিতে নির্মাণ হচ্ছে।
সূত্র জানায়, দেশে-বিদেশে চাহিদা অনুযায়ী এসব প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে স্বল্প, মধ্যম ও দীর্ঘ মেয়াদি কমপক্ষে ২০টি কোর্সে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে। এরমধ্যে অন্যতম কয়েকটি হচ্ছে-ড্রাইভিং, কম্পিউটার, গার্মেন্টস, অটোমোবাইল, রেফ্রিজারেটর, ইলেকট্রিক্যাল, ইলেকট্রনিক্স, সিএনসি, আরপিএল ইত্যাদি। এজন্য প্রতিটি টিটিসি’তে বার্ষিক কমপক্ষে এক হাজার শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে। শিক্ষার্থীর ভর্তির যোগ্যতা অষ্টম শ্রেণি থেকে এসএসসি পাস। কোর্সগুলোর মেয়াদ হবে সর্বনিম্ন চার মাস থেকে সর্বোচ্চ দুই বছর।

 

 

পূর্বকোণ/এসি

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 454 People

সম্পর্কিত পোস্ট