চট্টগ্রাম রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১

১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১ | ১২:৪১ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

পরীর পাহাড় : নতুন স্থাপনায় প্রধানমন্ত্রীর ‘না’

জেলা প্রশাসন ও আইনজীবী সমিতির দ্বন্দ্ব তুষের অনলের মতো ফুঁসছে। পরীর পাহাড়ে অবৈধ স্থাপনার বিষয়ে আট মন্ত্রণালয়ে চিঠি দিয়েছেন জেলা প্রশাসক। এই চিঠির পরিপ্রেক্ষিত সরকারের উচ্চ পর্যায়ে কমিটি গঠন করেছে। এরইমধ্যে পরীর পাহাড়ে নতুন করে স্থাপনা নির্মাণ না করতে প্রধানমন্ত্রী নির্দেশনা দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক।

সূত্র জানায়, পরীর পাহাড়ে অবৈধ স্থাপনা, ঝুঁকিপূর্ণ ভবন ও নতুন ভবন নির্মাণ সংক্রান্ত প্রস্তাব মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে প্রধানমন্ত্রীর কাছে উপস্থাপন করা হয়। এই প্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী পরীর পাহাড়ে নতুন ভবন নির্মাণ না করার বিষয়ে সম্মতি দিয়েছেন।

গত রবিবার মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের মাঠ প্রশাসন সংযোগ অধিশাখা থেকে এ সংক্রান্ত নির্দেশনা কয়েকটি মন্ত্রণালয়ে চিঠি দিয়ে জানানো হয়। এই বিষয়ে ব্যবস্থাগ্রহণ ও এর বাস্তবায়ন অগ্রগতি মন্ত্রিপরিষদ বিভাগকে জানাতে বলা হয়েছে। জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মমিনুর রহমান বলেন, ‘পরীর পাহাড়ে আর কোনো স্থাপনা যেন না হয় সে বিষয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নির্দেশনা দিয়েছেন। আইন ও বিচার বিভাগ, পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয় এবং ভূমি মন্ত্রণালয়কে এই নির্দেশনা দিয়েছেন। ১৩ সেপ্টেম্বর মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ এ বিষয়ে চিঠি দিয়েছে সংশ্লিষ্ট বিভাগ ও মন্ত্রণালয়গুলোকে।’ অবৈধ স্থাপনার বিষয়ে জেলা প্রশাসক বলেন, অবৈধ স্থাপনা অপসারণের জন্য সিডিএ তালিকা করবে। কারণ সিডিএ অনুমোদন দেয়। তালিকা করে আমাদের দিবে। আমরা উচ্ছেদ নোটিশ করে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করার জন্য উদ্যোগ নেব। পরীর পাহাড়ের বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়, জেলা প্রশাসকের কার্যালয়, নতুন আদালত ভবন, চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ভবন এবং আইনজীবীদের পাঁচটি ভবনসহ অনেক স্থাপনা রয়েছে। আইনজীবী সমিতি নতুন আরও দুটি ভবন নির্মাণের উদ্যোগ নিলে আপত্তি তোলে জেলা প্রশাসন।
জেলা প্রশাসনের দাবি, পরীর পাহাড়ে জেলা প্রশাসনের নামে সরকারের ১ নম্বর খাস খতিয়ানভুক্ত ১১ দশমিক ৭২ একর জায়গা রয়েছে। এখানে সাড়ে তিনশ অবৈধ ও ঝুঁকিপূর্ণ স্থাপনা রয়েছে।
মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের প্রস্তাবে বলা হয়, পাহাড় শ্রেণির জমিতে স্থাপিত সম্পূর্ণ অবৈধ ও ঝুঁকিপূর্ণ বহুতল স্থাপনাসমূহ অপসারণ করা এবং জেলা আইনজীবী সমিতি যেন আবারও অবৈধভাবে খাস জমি দখল করে কোর্ট বিল্ডিং এর সম্মুখস্থ একমাত্র ফাঁকা জায়গায় কোনো অবকাঠামো নির্মাণ করতে না পারে সে বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করা প্রয়োজন। এ বিষয়ে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয় এবং ভূমি মন্ত্রণালয়ের সহযোগিতা গ্রহণ এবং আইন ও বিচার বিভাগকে নির্দেশনা প্রদান করা যেতে পারে।
এই প্রস্তাব প্রধানমন্ত্রী অনুমোদন করেছেন জানিয়ে জেলা প্রশাসক মমিনুর রহমান বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী মন্ত্রণালয়গুলোকে নির্দেশনা দিয়েছেন। মন্ত্রণালয়গুলো আমাদের যেরকম নির্দেশনা দেবে সেভাবে কাজ করব। তিনি বলেন, ফায়ার সার্ভিসের সমীক্ষা পরীর পাহাড়কে ঝুঁকিপূর্ণ স্থাপনা হিসেবে চিহিৃত করা হয়েছে।
জেলা প্রশাসন বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ছাড়াও ওয়াসা, পিডিবি ও গ্যাস বিভাগকে চিঠি দিয়েছে। এতে পরীর পাহাড়ে সরকারি ভবন ও স্থাপনা ছাড়া অন্য কোনো স্থাপনায় সংযোগ না দিতে অনুরোধ করা হয়েছে। নতুন সংযোগে জেলা প্রশাসনের অনুমোদন লাগবে বলেও চিঠিতে বলা হয়েছে।

 

পূর্বকোণ/এসি

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 769 People

সম্পর্কিত পোস্ট