চট্টগ্রাম বুধবার, ২০ অক্টোবর, ২০২১

সর্বশেষ:

৫ আগস্ট, ২০২১ | ১২:৩৮ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক 

করোনা ভ্যাকসিন: ঘণ্টায় নিবন্ধন মাত্র দু’জনের!

জনসাধারণের নিবন্ধন কার্যক্রমে সহযোগিতা করতে নগরীর দামপাড়ায় অস্থায়ী বুথ করে মানবতার ক্ষুদ্র পাঠাশালা নামে একটি সামাজিক সংগঠন। গতকাল বুধবার বিকেল ৩টা থেকে রাত আটটা পর্যন্ত নিবন্ধনের কার্যক্রম চালিয়ে যায় সংগঠনটি। এখানে শতাধিক মানুষ নিবন্ধনের জন্য লাইনে দাঁড়ালেও এ পাঁচ ঘণ্টায় মাত্র দশজনের নিবন্ধন সম্পন্ন করতে পেরেছেন স্বেচ্ছাসেবকরা।

সংগঠনটির সদস্য আবু বকর সিদ্দিক পূর্বকোণকে বলেন, ‘এক ঘণ্টা চেষ্টায় মাত্র দুই জনের নিবন্ধন করতে পেরেছি। নিবন্ধনের জন্য থাকা ‘সুরক্ষা’ সার্ভার খুবই ডাউন। কোনোভাবেই কাজ করা যায়নি। সব মিলিয়ে আমাদের দুই বুথে মাত্র ১০ জনের নিবন্ধন করা গেছে। সার্ভারের কারণে চরম ভোগান্তি পেতে হয়েছে। ফলে দীর্ঘ অপেক্ষার পরও যারা দাঁড়িয়ে ছিলেন, তাদের চলে যেতে হয়েছে।’ এ চিত্র শুধু দামপাড়াতেই নয়। অদূরে লালখানবাজার ওয়ার্ড কাউন্সিলরের উদ্যোগে এদিন সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত নাগরিকের সহযোগিতায় ফ্রি নিবন্ধন কার্যক্রম চলে। সকাল থেকে অস্থায়ী নিবন্ধন ক্যাম্পে তিনটি বুথে চার শতাধিক মানুষ অপেক্ষা করেন। কিন্তু সেখানেও সার্ভার ডাউন থাকায় উপস্থিত সকল মানুষের নিবন্ধন কার্যক্রম সম্পন্ন করা যায়নি। ক্যাম্প সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, সকাল দশটা থেকে বিকেল চারটা পর্যন্ত বহু চেষ্টার পর উপস্থিতির মাত্র ১৫ শতাংশের নিবন্ধন করতে পেরেছেন। অথচ অন্য সময়ে একজনের নিবন্ধন কার্যক্রম শেষ করতে সর্বোচ্চ সময়ের প্রয়োজন হতো ২ থেকে ৩ মিনিট। গণটিকাদানের কর্মযজ্ঞ শুরুর আগে সার্ভারের ধীর গতির এ সমস্যা হলে সরকারের উদ্যোগে ব্যাঘাত ঘটবে। তাই দ্রুত সময়ের মধ্যে বিষয়টির সমাধান কিংবা অন্য কোনো উপায় খোঁজার পরামর্শ সংশ্লিষ্টদের।

লালখানবাজার ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবুল হাসনাত মোহাম্মদ বেলাল পূর্বকোণকে বলেন, ‘সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত মাত্র ৭০/৭৫ জনের নিবন্ধন সম্পন্ন করা গেছে। বাকিদের ফিরিয়ে দিতে হয়েছে। সকাল থেকেই সার্ভারে ত্রুটি থাকায় সম্পন্ন করা যায়নি। যেহেতু জনসাধারণকে দ্রুত টিকার আওতায় আনার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে, তাই নিবন্ধনের প্রক্রিয়াটি আরও সহজ করা উচিত বলে আমি মনে করি।’

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, নিবন্ধন ছাড়াও বিদ্যমান টিকাদান কেন্দ্রগুলোতেও সার্ভারের ত্রুটি থাকায় চরম ভোগান্তিতে পড়তে হয়েছে টিকাগ্রহীতা ও টিকাদান কর্মীদের। দ্রুত সময়ে ডাটা আপলোড করা না যাওয়ায় তাদের বেগ পেতে হয়। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ও নগরের ভ্যাকসিন বাস্তবায়ন কমিটির সদস্য সচিব ডা. সেলিম আকতার চৌধুরী পূর্বকোণকে বলেন, ‘সার্ভারের এমন সমস্যার কথা বহুবার উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের বলা হয়েছিল। এর আগেও এমন সমস্যায় পড়তে হয়েছে। কিন্তু পুরো সার্ভারটিই ঢাকা থেকে নিয়ন্ত্রণ করা হয়। যার কারণে আমাদের কিছু করার থাকে না।’

চট্টগ্রাম বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. হাসান শাহরিয়ার কবীর বলেন, ‘মূলত এক সঙ্গে বহু মানুষ প্রবেশ করায় এমন সমস্যা সৃষ্টি হচ্ছে। তাছাড়া সার্ভার নিয়ন্ত্রণ করে আইসিটি মন্ত্রণালয়। যার কারণে আমাদের কিছু করার নেই।’

পূর্বকোণ/এএ

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 573 People

সম্পর্কিত পোস্ট