চট্টগ্রাম শনিবার, ৩১ জুলাই, ২০২১

সর্বশেষ:

১৯ জুন, ২০২১ | ৯:২৪ অপরাহ্ণ

সন্দ্বীপ সংবাদদাতা

সন্দ্বীপ-কুমিরা রুটে নতুন জাহাজের যাত্রা শুরু

চট্টগ্রামের সন্দ্বীপের গুপ্তছড়া থেকে সীতাকুণ্ডের কুমিরা ঘাটে আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করেছে নতুন জাহাজ এমভি আইভি রহমান।

শনিবার (১৯ জুন) সকাল ৯ টায় জাহাজটি সদরঘাট থেকে সন্দ্বীপ গুপ্তছড়া ঘাটে আসে। সেখান থেকে দুপুর ১টায় ২শ’ যাত্রী নিয়ে সীতাকুণ্ডের কুমিরা ঘাটের উদ্দেশ্যে যাত্রা করে।

এরআগে গেল ৬ মে ‘এমভি আইভি রহমান’ ও ‘এমভি তাজ উদ্দিন আহামদ’ জাহাজ দুটি গণভবন থেকে ভার্চ্যুয়ালি উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তবে ১৭ জুন বৃহস্পতিবার জাহাজটি সন্দ্বীপ (গুপ্তছড়া ঘাট) টু সীতাকুণ্ড (কুমিরা) নৌ রুটে আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করার কথা থাকলেও বৈরী আবহাওয়ার কারণে তা পেছানো হয়।

বিআইডব্লিওটিসি এর উপকূলীয় যাত্রীবাহী জাহাজ বহরের জন্য চট্টগ্রামের কালুরঘাট এলাকায় এফ এম সি ডক ইয়ার্ডে নির্মিত হয়েছে জাহাজটি।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, তিনপাশে নদী ও দক্ষিণে বঙ্গোপসাগর বেষ্টিত দ্বীপের প্রায় চার লাখ মানুষকে সাগর পাড়ি দিয়ে দেশের মূল ভূখণ্ডের সাথে যোগাযোগ করতে হয়। জেলা পরিষদের পরিচালনায় ৬ টি ফেরীঘাটে যাত্রী পারাপার করা হয়। তবে ভৌগোলিক ও অবকাঠামো সুবিধার কারণে কুমিরা টু গুপ্তছড়া রুটে যাত্রী ও মালামাল পরিবহন সবচেয়ে বেশি। বৈরী আবহাওয়ায় উত্তাল সাগরে নৌযান চলাচল বন্ধ থাকে। ফলে দেশের মূল ভূখণ্ড থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে দ্বীপের বাসিন্দারা। নৌযান চলাচল বন্ধের সময় রোগীসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের পরিবহন বন্ধ থাকায় অন্যরকম বিভীষিকাময় পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে হয় সন্দ্বীপবাসীকে। নতুন জাহাজ পাওয়ায় দীর্ঘদিনের সেই ভোগান্তি ঘুচেছে দ্বীপবাসীর।

মাইল্ড স্টিল দ্বারা নির্মিত উপকূলীয় অঞ্চলে চলাচলের উপযোগী করে জাহাজটি নির্মাণ করা হয়েছে। ৫০ মিটার দৈর্ঘ্য ও ১০.৫০ মিটার প্রস্থের জাহাজটির হালের গভীরতা ৩ মিটার। এটির লোডেড ড্রাফট ১.৮৫ মিটার। জাহাজটির সার্ভিস গতি হবে প্রতি ঘন্টায় প্রায় ১০ নটিক্যাল মাইল।

জাহাজটির যাত্রী ধারন ক্ষমতা ৫০০ জন। এরমধ্যে ৩৫০ জন ইকোনমি ক্লাস (ডেক) স্পেস ও ১৩৮ জন এর সাধারন আসন ও ১২টি ভিআইপি বিজনেস ক্লাস বিলাসবহুল কেবিন রয়েছে। শারীরিক প্রতিবন্ধীদের জন্য রয়েছে আলাদা আসন। জাহাজটিতে ইউরোপের যান্ত্রিক যুগের বহূল ব্যাবহূত এ.বি.সি (এংলো বেলজিয়াম কর্পোরেশন) এর মেরিন ডিজেল ইন্জিন বসানো হয়েছে। উন্নত মানে ও আধুনিকর নেভিগেশন যন্ত্রপাতি ছাড়াও জাহাজটিতে পর্যাপ্ত সংখ্যক জীবন রক্ষা কারী সরঞ্জাম রয়েছে। এছাড়াও জাহাজে ৫০ টন মালামাল বহন করার সক্ষমতা রয়েছে। যাত্রী চলাচলে জাহাজের সুলভ টিকেট মূল্য ১২০ টাকা, এসি চেয়ার ২০০ টাকা, সিংগেল কেবিন ৫০০ টাকা, ডাবল কেবিন ১০০০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন সন্দ্বীপের সংসদ সদস্য মাহফুজুর রহমান মিতা, বিআইডব্লিউটিসি’র প্রকল্প পরিচালক এস. এম মোতাহের হোসেন, প্রকৌশলী এস. এম আশিকুজ্জামান, ডিজিএম কমার্স মো. খালেদ নেওয়াজ, প্রকৌশলী আব্দুল হামিদ, সন্দ্বীপ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জেপি দেওয়ান, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোহাম্মদ মামুন, সন্দ্বীপ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বশির আহাম্মদ খান, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মাঈন উদ্দিন মিশন, পৌর মেয়র মোক্তাদের মাওলা সেলিম, প্রেসক্লাব সভাপতি মোহাম্মদ রহিম উল্ল্যাসহ আরও অনেকে।

পূর্বকোণ/মামুন/পারভেজ

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 449 People

সম্পর্কিত পোস্ট