চট্টগ্রাম শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর, ২০২২

সর্বশেষ:

৩০ এপ্রিল, ২০১৯ | ২:১০ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

১২ নং সরাইপাড়া ওয়ার্ড

স্থানীয় সাংসদের উদ্যোগে বদলে গেছে ঝর্ণাপাড়া মাঠ

নগরীর ১২ নম্বর সরাইপাড়া ওয়ার্ডের আওতাধীন ঝর্ণাপাড়া খেলার মাঠ। এলাকার একমাত্র মাঠটি প্রায় পরিত্যক্ত হয়ে পড়েছিল অনেক আগেই। যেখানে রাত নামলেই বসত মাদকসেবীদের আড্ডা। ছিল ময়লার স্তূপও। তবে স্থানীয় সাংসদের হাত ধরেই বদলে গিয়েছে সেই মাঠের চিত্র। শুধু মাঠ নয়, উন্নয়নের কাজ শুরু হওয়ার পর থেকে বদলে গেছে আশপাশের চিত্রও। আঁধার ঘেরা মাঠে এখন সন্ধ্যার পর চলে আলো আঁধারের মনোরম খেলা।
সংশ্লিষ্টরা বলছে, মাঠের ও আশপাশের বর্জ্য সরেছে। সংস্কার কাজও প্রায় শেষ। শীঘ্রই এর উদ্বোধন করে সবার জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া হবে। আর স্থানীয়রা বলছে আগে মাঠে খেলাতো থাক দূরের কথা, মাঠের পাশ দিয়ে হাঁটার পরিস্থিতিও ছিল না। সংস্কারের উদ্যোগ নেয়ার পর থেকে আশপাশের পরিবেশের ব্যাপক উন্নত হয়েছে। মাঠটি রক্ষণাবেক্ষণ না করলে আবার হারিয়ে যাওয়ার আশঙ্খা করছেন স্থানীয়রা।
প্রায় ৫০ গন্ডা ওপর অবস্থিত ঝর্ণাপাড়ার খেলার মাঠটি সংস্কার কাজ শুরু হয় ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে। বর্তমানে মাঠ সংস্কারে প্রায় কাজ প্রায় শেষ। এখন আনুষাঙ্গিক কিছু কাজ বাকি। প্রায় অর্ধকোটি টাকা ব্যয়ে এ মাঠটি সংস্কারের কাজ চলছে। ইতিমধ্যে মাঠের চারপাশেই প্রায় ১ লাখ ২৩ হাজার টাকা মূল্যের ২২টি সোলার এলইডি লাইট স্থাপন করা হয়েছে। পুরো মাঠেই এখন নতুন করে মাটি ফেলা হয়েছে। মাঠের চারপাশে লাগানো হবে হরেক রকম ফুলের গাছও। আর বসার ও হাটার জন্য দ্রুতগতিতে কাজ চলছে ওয়াকওয়ের। ক্লান্তিদূর করতে স্থাপন করা হবে বসার বেঞ্চ ও গ্যালারিও।
স্থানীয়রা জানান, পাহাড়তলী রেলওয়ে কারখানার পাশ ঘেঁষা ঝর্ণাপাড়া ময়দান মাঠে একসময় স্থানীয়রাসহ দূরদুরান্ত থেকে খেলার জন্য ভিড় করতো নানা বয়সী যুবক। এ মাঠেই অনুশীলন ও খেলাধূলা করে সিজিকেএস’র মাধ্যমে আট যুবক বাংলাদেশের হয়ে ফ্রান্সেও খেলতে গিয়েছে। তবে কয়েক বছর আগ থেকেই সিটি কর্পোরেশনের ময়লা ফেলার কারণে সে মাঠে আর শিশু বা কোন যুবকের খেলাতো দূরের কথা হাটতেও আসে না। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে স্থানীয়রা লেখালেখি করলে, তা স্থানীয় সাংসদ সদস্য ডা. আফসারুল আমিনের নজরে আসে। পরবর্তীতে তিনি নিজেই সরকার থেকে বরাদ্দ নিয়ে মাঠ সংস্কারের কাজ শুরু করেন।
মাঠ সংস্কারের তত্ত্বাবধায়ক ও ১২ নম্বর সরাইপাড়া ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক মো. নুরুল আমিন এ প্রসঙ্গে পূর্বকোণকে বলেন, ‘এমপির নির্দেশেই আমরা দ্রুতগতিতে কাজ চালিয়ে যাচ্ছি। সংস্কারের কাজ প্রায় শেষের দিকে। আশাকরছি রমজানের মধ্যেই সকল কাজ শেষ হবে। এরপরেই তিনি (এমপি) নিজে উপস্থিত থেকে উদ্বোধন করবেন।’
তিনি বলেন, ‘মাঠটি ঘিরে যেন সবুজে পরিণত হয়, সেজন্য আমরা মাঠের সবুজ ঘাস লাগানোরও পরিকল্পনা রয়েছে। মাঠের চারদিকে গ্যালারি ও বসার জন্য বেঞ্চ স্থাপন করারও পরিকল্পনা আছে। ইতিমধ্যে ওয়াকওয়ের কাজ চলছে। ধাপে ধাপে তা আধুনিক করে তোলা হবে।’

শেয়ার করুন

সম্পর্কিত পোস্ট