চট্টগ্রাম সোমবার, ১৭ মে, ২০২১

সর্বশেষ:

৪ মে, ২০২১ | ৪:০৬ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

নামের মিলে সাজাভোগকারী সেই হাছিনার মুক্তির আদেশ

নামের মিলের কারণে চট্টগ্রাম কারাগারে সাজভোগকারী হাছিনা বেগমকে মুক্তির আদেশ দিয়েছেন আদালত। মঙ্গলবার (৪ মে) দুপুর ১২টায় চট্টগ্রামের অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ চতুর্থ আদালতের বিচারক শরীফুল আলম ভূঁঞার ভার্চুয়াল আদালত হাছিনা বেগমকে মুক্তির আদেশ দেন।

হাছিনা বেগমের আইনজীবী এডভোকেট গোলাম মাওলা মুরাদ জানান, মাদকের মামলায় ৬ বছর সাজার আদেশ হয়েছিল হাসিনা আক্তারের। তার জায়গায় ১ বছর ৪ মাস ২০ দিন ধরে সেই সাজা খাটছেন হাছিনা বেগম। সাজাপ্রাপ্ত আসামির নামের প্রথম অংশ ও স্বামীর নামের সঙ্গে মিল। তবে অপরাধীর নামের সঙ্গে মিল থাকলেও বাবা-মায়ের নামের সঙ্গে রয়েছে অমিল। বিষয়টি আমি নজরে আনার পর আদালত টেকনাফ থানা ও কারা কর্তৃপক্ষের প্রতিবেদনের ওপর ভিত্তি করে তাকে মুক্তির আদেশ দিয়েছেন। যাদের ভুলে তিনি এই অন্যায় সাজা ভোগ করেছেন আমি তাদের শাস্তির জন্যও আদালতে আবেদন করবো।’ 

কারাগারে থাকা হাছিনা বেগমের বাড়ি কক্সবাজারের টেকনাফ থানার পৌরসভার চৌধুরী পাড়ায়। তিনি হামিদ হোছনের স্ত্রী। সাজাপ্রাপ্ত আসামি হাসিনা আক্তারও একই এলাকার ইসমাইল হাজি বাড়ির হামিদ হোসেনের স্ত্রী।

আদলত সূত্রে জানা গেছে, দুই সন্তানসহ হাসিনা আক্তার নামের এক নারী ২০১৭ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি চট্টগ্রাম নগরের কর্ণফুলী থানার মাদক মামলায় কারাগারে যান। একই বছর ২৭ নভেম্বর হাইকোর্ট থেকে জামিন পান তিনি। এরপর ২০১৯ সালের ১ জুলাই চট্টগ্রাম অতিরিক্ত মহানগর পঞ্চম আদালতের বিচারক জান্নাতুল ফেরদাউস চৌধুরী ওই মামলায় হাসিনা আক্তারকে ৬ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও ৫ হাজার টাকা জরিমানার আদেশ দেন। এছাড়া জরিমানা অনাদায়ে আরও একমাস বিনাশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ দেন।

রায় ঘোষণার পর ২০১৯ সালের ১৬ ডিসেম্বর থেকে টেকনাফ থানা পুলিশ হাসিনা বেগমকে তার বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করে কারাগারে প্রেরণ করেন। সেই থেকে তিন সন্তানের জননী হাসিনা বেগম কারাভোগ করছেন।

পূর্বকোণ/পিআর/এএইচ

শেয়ার করুন
  • 76
    Shares
The Post Viewed By: 286 People

সম্পর্কিত পোস্ট