চট্টগ্রাম সোমবার, ১০ মে, ২০২১

১৭ এপ্রিল, ২০২১ | ২:৫৩ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

ক্লিকেই মিলছে বাহারি ইফতার

ইফতারে হালিম পছন্দ আনোয়ার হোসেনের। কিন্তু হালিম রান্না করতে জানেন না তার স্ত্রী। লকডাউনের কারণে ‘ঘরবন্দী’ থাকায় বাইরে বেরোনোর উপায়ও নেই। বিকেলে সোফায় বসে ফেসবুক স্ক্রলিং করার সময় হঠাৎ তার চোখে পড়ে- ‘সুস্বাদু হালিম কিনতে ক্লিক করুন নিচের লিংকে’ লেখা পোস্ট।  ব্যাস! আনোয়ার হোসেনকে আর কে আটকায়? লিংকে দেওয়া মুঠোফোন নম্বরে কল দিয়ে তিনি অর্ডার করলেন আধা কেজি হালিম। আর অর্ডারের ৩০ মিনিটের মধ্যেই তার বাসায় হালিম নিয়ে হাজির ডেলিভারি ম্যান। দামও দিলেন হালিম হাতে পাওয়ার পর। শুধু আনোয়ার হোসেন নয়। তার মতো ভোজন রসিক নগরবাসীর জন্য বাহারি নানান পদের ইফতার মিলছে এখন ঘরোয়া উদ্যোক্তাদের ফেসবুক পেইজে। লকডাউনের কারণে হোটেল-রেস্টুরেন্ট বন্ধ থাকায় নগরীর নামি-দামি হোটেল-রেস্টুরেন্টও দিচ্ছে অনলাইনে ইফতার অর্ডারের এই সুবিধা। আখনি বিরিয়ানি, মাটন বিরিয়ানি, দম বিরিয়ানি, হালিম, জিলাপি, ফিরনি, সেমাই, সমুছা, সিঙ্গারা, রোল, ডেজার্ট, পিঠা-পুলি থেকে শুরু করে নানান পদের বাহারি ইফতার মিলছে এখন অনলাইনেই। ফেসবুক পেজ, পাঠাও ফুড কিংবা ফুড পান্ডা অ্যাপ এ ক্লিক করে ঘরে বসেই এসব ইফতার কেনা যাচ্ছে। অনলাইনে ইফতার অর্ডার নিয়ে কথা হয় বিরিয়ানির জন্য নগরজুড়ে বিখ্যাত হাজী কাচ্চি ঘরের কর্মকর্তা রাজিন চৌধুরীর সঙ্গে।

তিনি দৈনিক পূর্বকোণকে বলেন, পবিত্র রমজান উপলক্ষে আমাদের ১৭০ টাকায় একটি বিশেষ প্যাকেজ আছে। এই প্যাকেজে বিফ তেহারি, খেজুর, বাদাম শরবত, ফিরনি এবং পানি দিচ্ছি আমরা। তিনি বলেন, সরকারি নির্দেশনা মেনে আমাদের ৫টি শাখায় ক্রেতাদের বসিয়ে খাওয়ানোর ব্যবস্থা বন্ধ রাখা হলেও আখনি বিরিয়ানি, মাটন বিরিয়ানি, দম বিরিয়ানি এবং হালিম প্যাকেটে করে বিক্রি করছি আমরা। তবে লকডাউনের কারণে অনেকে ঝামেলা এড়াতে অনলাইনে অর্ডার করছেন। আমরা ডেলিভারি ম্যান দিয়ে খাবার তাদের বাসায় বাসায় পৌঁছে দিচ্ছি।

আরেক জনপ্রিয় রেস্টুরেন্ট সেভেন ডেইজের কর্মকর্তা ফজলে রাব্বি দৈনিক পূর্বকোণকে বলেন, ছোলা, পেঁয়াজু, ফলমূল দিয়ে ইফতার করতে চট্টগ্রামের মানুষ অভ্যস্ত হলেও কয়েক বছর ধরে এই ট্রেন্ড পরিবর্তন হচ্ছে। এখন ইফতারের টেবিলে বিরিয়ানি, মেজবানি মাংস, পরটা, হালিম জায়গা করে নিচ্ছে। ইফতার আইটেম হিসেবে আমরা রেগুলার দামে বিরিয়ানিই বেশি অর্ডার পাচ্ছি।

শুধু হাজী কাচ্চি ঘর কিংবা সেভেন ডেইজ নয়, পাঠাও ফুড এবং ফুড পান্ডা অ্যাপের মাধ্যমে রমজানে নানান পদের বাহারি খাবার অনলাইনে ডেলিভারি দিচ্ছে- চট্টমেট্রো, বাবুর্চিয়ানা, কুটুম্ববাড়ি, নিউ সুলতান ডাইন, লাভ বার্ড, রেড ফোস্টারসহ বিভিন্ন রেস্টুরেন্ট। এসব রেস্টুরেন্টে পবিত্র রমজান উপলক্ষে রয়েছে স্পেশাল অফার।

অনলাইনে ইফতার সরবরাহের ক্ষেত্রে পিছিয়ে নেই ঘরোয়া উদ্যোক্তারাও। ঘরে নানান পদের ইফতার তৈরি করে নিজেদের ফেসবুক পেইজে অর্ডার নিয়ে ডেলিভারি ম্যান দিয়ে সেসব ক্রেতাদের কাছে পৌঁছে দিচ্ছেন তারা।

চট্টগ্রামে অনলাইন বেচাকেনায় জড়িত উদ্যোক্তাদের সবচেয়ে বড় প্ল্যাটফর্ম চিটাগং ই-কমার্স ফ্যামিলি। ১ লাখের বেশি সদস্যের এই গ্রুপে নানা রকমের পণ্য বেচাকেনার তথ্য পাওয়া যায়। শুক্রবার এই গ্রুপে নানা পদের ইফতার আইটেম নিয়ে পোস্ট দেন উদ্যোক্তা মনির হোসেন।

তিনি বলেন, রমজানে সারাদিন রোজা রেখে সবাই একটু ভালো ও ফ্রেস খাবার খেতে চায়। কিন্তু অনেকে কর্মব্যস্ততার জন্য পারেন না। এবার লকডাউনের কারণে বাইরের হোটেলগুলোতেও বড় আয়োজন নেই। তাই আমরা সুইট প্যারাডাইস পেজের মাধ্যমে ন্যায্যমূল্যে ইফতার সরবরাহ করছি। এর মধ্যেই বড় কয়েকটি অর্ডার পেয়েছি। ইফতার আইটেম হিসেবে হাতের বানানো নাস্তা বিক্রি করি আমরা।

পূর্বকোণ/পিআর

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 210 People

সম্পর্কিত পোস্ট