চট্টগ্রাম সোমবার, ১০ মে, ২০২১

১৬ এপ্রিল, ২০২১ | ৬:৫৫ অপরাহ্ণ

হাটহাজারী সংবাদদাতা

ধৈর্য হারাবেন না, এই জুলুমের শেষ একদিন হবে: বাবুনগরী

আল্লাহ তায়ালা ফেরাউনকেও সুযোগ দিয়েছিলেন। কিন্তু ছেড়ে দেননি বলে মন্তব্য করেছেন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের আমির আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী। বলেন, ধৈর্য হারাবেন না, এই জুলুমের শেষ একদিন হবে। 

শুক্রবার (১৬ এপ্রিল) চট্টগ্রামের হাটহাজারীর দারুল উলুম হাটহাজারী মাদ্রাসার বড় মসজিদ বাইতুল করিমে জুমাপূর্ব বয়ানে তিনি এমন মন্তব্য করেন।

দীর্ঘ ৫০ মিনিটের বয়ানে তিনি রোজার ফজিলত, প্রয়োজনীয় মাসায়েল, ইতিকাফসহ নানা বিষয়ে কোরআন ও হাদিসের আলোকে আলোচনা করেন।

এসময় রমজানের পবিত্রতা রক্ষায় মানুষকে পাপাচার, জোর জুলমসহ সবধরণের অন্যায় কাজ থেকে দূরে থাকার উপদেশ দেন।

বাবুনগরী পবিত্র কোরআনের সুরা শুরার ৩০ নাম্বার আয়াত পাঠ করে বলেন, আমরা যত বিপদ-আপদে পতিত হই সব আমাদের কর্মের কারণেই। আমরা অন্যায় পথে চলি বলে আল্লাহ তায়ালা বিপদ দেন। আমাদেরকে পাপাচার, অন্যায়, জোর জুলুম পরিহার করতে হবে। না হয় খোদায়ি গজব থেকে কেউ রক্ষা পাবেন না।

আল্লামা বাবুনগরী আরো বলেন, এই রোজা রমজানের দিনে নিরাপরাধ আলেম উলামাদের উপর অন্যায়ভাবে জুলুম আল্লাহ বরদাশত করবেন না। সারাদিন রোজা রেখে ইফতার করবে তার সুযোগ দিচ্ছেন না। তারাবীর নামাজ থেকে তুলে নিয়ে যাচ্ছে, সারারাত বাহিরে বাহিরে লুকিয়ে থেকে সাহরি খেতে আসে, ওখান থেকেও তুলে নিয়ে যাচ্ছে। রাতে ঘরে ঘরে তল্লাশির নামে মহিলাদের কষ্ট দিচ্ছে নিরাপরাধ সাধারণ জনগণকেও হয়রানি করা হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, আল্লাহ তায়ালা ফেরআউনকেও সুযোগ দিয়েছিলেন কিন্তু ছেড়ে দেননি। মনে রাখবেন আল্লাহ তায়ালা ছাড় দেন, ছেড়ে দেন না। এই জুলুমের শেষ একদিন হবে, পৃথিবীতে কোন জালিম চিরস্থায়ী হয়নি, এই রোজা রমজানের দিনে নিরাপরাধ আলেম উলামাদের ওপর অন্যায়ভাবে এই জুলুম আল্লাহ বরদাশত করবেন না। এগুলোর বদলা নিবেন, অবস্থা দেখে মনে হচ্ছে আপনারা মরবেন না। আল্লাহর আজাবকে ভয় করুন।

তিনি বলেন, সরকার, প্রশাসন, জনগণ সবাইকে নসিহত করছি। আল্লাহকে ভয় করুন। তার আজাবকে ভয় করুন। হাসরের দিনের পাকড়াওকে ভয় করুন। এই জুলুমের শেষ একদিন হবে, পৃথিবীতে কোন জালিম চিরস্থায়ী হয়নি।

ধর্মপ্রাণ মুসল্লিদের উদ্দেশ্যে আল্লামা বাবুনগরী বলেন, চলমান সংকট নিরসনে আমরা সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। যেখানে যা করা দরকার উলামায়ে কেরামের সাথে পরামর্শক্রমে তা-ই করা হচ্ছে। আপনারা ধৈর্যহারা হবেন না। সবর করুন। দোয়া ও ইসতিগফার পড়ুন। আল্লাহ তায়ালা উত্তম বদলা দিবেন।

বিপদ-আপদ থেকে সুরক্ষিত থাকতে এই রমাদানে মুসল্লি ও ইতিকাফকারীদের দোয়ায়ে ইউনুসের খতম, সালাতুত তাসবিহর নামাজ, তাহাজ্জুদের নামাজ, কোরআন তেলাওয়াত, জিকির আজকার, দোয়া দুরুদ ইত্যাদি আমল করার জন্য বিশেষভাবে আহ্বান জানান আল্লামা বাবুনগরী।

পূর্বকোণ/মামুন/পারভেজ

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 801 People

সম্পর্কিত পোস্ট