চট্টগ্রাম সোমবার, ১০ মে, ২০২১

১৪ এপ্রিল, ২০২১ | ৮:১৭ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

লকডাউনে নির্দেশনা অমান্য, ৩৩ মামলায় ১৯ হাজার টাকা জরিমানা

লকডাউনে নির্দেশনা না মেনে  স্বাস্থ্যবিধি অমান্য করায় ৩৩ মামলায় ১৯ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। আজ বুধবার (১৪ এপ্রিল) সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত সর্বাত্মক লকডাউনের প্রথম দিনে চট্টগ্রাম নগরীর বিভিন্ন স্থানে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন জেলা প্রশাসনের দশজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।

 সরকার ঘোষিত লকডাউন সফল করার লক্ষ্যে এসব অভিযানে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. রায়হান মেহেবুব নগরীর পাঁচলাইশ বাকলিয়া ও চকবাজার এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে জনসাধারণকে সচেতন করেন এবং সচেতনতার পাশাপাশি মাস্ক বিতরণ করেন।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নাজমা বিনতে আমিন নগরীর খুলশী, বায়েজিদ ও চান্দগাও এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করার সময় অধিকাংশ সাধারণ মানুষ কে স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলতে দেখেন এবং সচেতনতার লক্ষ্যে জেলা প্রশাসনের পক্ষে মাস্ক বিতরণ করেন।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আশরাফুল হাসান পতেঙ্গা ইপিজেড ও বন্দর এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা কালে ০৩ টি মামলা দায়ের করে ৩৭০০ টাকা অর্থদণ্ড আদায় করেন, এছাড়াও সাধারণ মানুষের মাঝে মাস্ক বিতরণ করেন।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মামনুন আহমেদ অনিক খুলশী, বায়েজিদ ও চান্দগাও এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করার সময় সর্বাত্মক লকডাউন মেনে চলার ব্যাপারে জনসাধারণকে সচেতন করেন এবং জেলা প্রশাসনের পক্ষে মাস্ক বিতরণ করেন।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাসুমা জান্নাত নগরীর কোতোয়ালি সদরঘাট ও ডবলমুরিং এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করার সময় ০৫ টি মামলায় ১৫০০ টাকা অর্থদণ্ড আদায় করেন এবং লকডাউন ও স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলার ব্যাপারে জনসাধারণকে সচেতন করেন।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট  মিজানুর রহমান নগরীর কোতোয়ালি সদরঘাট ও ডবলমুরিং এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করার সময় ৩ টি মামলা দায়ের করে ৪০০০ টাকা অর্থদণ্ড আদায় করেন। এছাড়াও সাধারণ মানুষের মাঝে মাস্ক বিতরণ করেন।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট  মো. মাসুদ রানা শহরের পাহাড়তলী হালিশহর ও আকবরশাহ এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করার সময় ৩ টি মামলা দায়ের করে ১২০০ টাকা অর্থদণ্ড আদায় করেন এবং জেলা প্রশাসন, চট্টগ্রামের পক্ষ হতে মাস্ক বিতরণ করেন।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আশরাফুল আলম নগরীর বাকলিয়া এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করার সময় ৩ টি মামলায় ২৫০০ টাকা অর্থদণ্ড আদায় করেন এবং সচেতনতার পাশাপাশি মাস্ক বিতরণ করেন।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট উমর ফারুক নগরীর পাহাড়তলী হালিশহর ও আকবরশাহ এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে ৩ টি মামলায় ১০০০ টাকা অর্থদণ্ড আদায় করেন। এ সময় অধিকাংশ সাধারণ মানুষকে স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলতে দেখা যায় এবং মাস্ক বিতরণ করা হয়।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. জিল্লুর রহমান নগরীর পতেঙ্গা ইপিজেড ও বন্দর এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে ১৩ টি মামলায় ৫১৩০ টাকা অর্থদণ্ড আদায় করেন।

এছাড়াও লকডাউন সফল করার লক্ষ্যে সন্ধ্যার পর থেকে আরও দুইজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ আতিকুর রহমান ও  প্লাবন কুমার বিশ্বাসের নেতৃত্বে চট্টগ্রাম মহানগরীর বিভিন্ন স্থানে অভিযান পরিচালনা করা হবে।

পূর্বকোণ / আরআর/পারভেজ

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 262 People

সম্পর্কিত পোস্ট